পশ্চিমবঙ্গ

মমতার পাড়ায় পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তিতে সিপিএম প্রার্থীর, আহত ১

কলকাতা, ২৬ সেপ্টেম্বর – মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (CM Mamata Banerjee) পাড়ায় ভোট প্রচারে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তিতে জড়াল বামেরা। রবিবাসরীয় সকালে ভবানীপুুর উপনির্বাচনে (Bhabanipur By Election) শ্রীজীব বিশ্বাসের (Srijeeb Biswas) প্রচারে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হল। পুলিশি বাধা টপকে এগোতে গেলে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয় পুলিশের। জখম হন এক বাম কর্মী। সুজনদের দাবি, পুলিশের অনুমতি থাকা সত্ত্বেও ইচ্ছাকৃতভাবে আটকেছে।

এদিন ভবানীপুর কেন্দ্রে রবিবারের প্রচারে মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায় বাম-পুলিশের ধুন্ধুমার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। কালীঘাট পটুয়াপাড়ায় বাম প্রার্থী সৃজীব বিশ্বাসের সমর্থনে প্রচারে এসেছিলেন সুজন চক্রবর্তী। প্রচারের শুরুতেই মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায় চেষ্টা করেন সুজনরা। পুলিশ ব্যারিকেড দিতে গেলে তা ঠেলে ঢুকে পড়েন তাঁরা। তখনই পুলিশের সঙ্গে বচসা শুরু হয়। বামেরা পুলিশের ব্যারিকেড ফেলে ঢোকার চেষ্টা করে পাল্টা পুলিশও বলপ্রয়োগ করে। প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির কাছেই আটকে রাখা হয় বাম কর্মীদের। সুজনদের বক্তব্য, তাঁদের হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটে প্রচারের অনুমতি রয়েছে। পুলিশের দাবি, অনুমতি নেই বামেদের। এই নিয়েই চলে তীব্র বচসা। অবশেষে বামেদের চাপে পুলিশ পাঁচজনকে প্রচারের অনুমতি দেয়।

এ নিয়ে সুজন চক্রবর্তী বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী বলে নির্বাচনের সময় কিছু হয় না। নির্বাচনের সময় যে কেউ যেতে পারেন ভোট প্রচারে। মমতা এখন মুখ্যমন্ত্রী নন। এখানে তিনিও একজন ভোটার। কিন্তু কেন এখানে পুলিশি এই ঘেরাটোপ।” তিনি আরও যোগ করেন, “আমরা নির্বাচন কমিশনের গিয়েছি। কমিশন থেকে বলা হয়েছে পুলিশের অনুমতি না দেওয়ার কোনও কারণ নেই। তার পরেও এখানে তিন তিনটে ব্যারিকেড ছিল। প্রথমটি ভাঙতে হল। তার পর দেখা যায় এখানে সাদা পোশাকে রয়েছে কিছু তৃণমূলের গুন্ডা।” তাঁদের প্রার্থী শ্রীজীবের উপরও আঘাত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সুজনবাবুর কটাক্ষ, মুখ্যমন্ত্রী রানি নন। এটা রাজারানির রাজত্বও নয়। ভোটে সবার অংশগ্রহণের অধিকার আছে। জেতবার চেষ্টা সবাই করবেন। তাঁকেও ধাক্কা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। প্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাসের অভিযোগ, তাঁদের কাছে পুলিশি অনুমতি ছিল। তা সত্ত্বেও এমন ঘটনা ঘটল। সুজন যোগ করেন, বাংলাতেও উত্তর প্রদেশের মতো আইন শৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে।

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (CM Mamata Banerjee) বাড়ি লাগোয়া এলাকায় হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিট এবং হাজরা রোড ক্রসিংর সঙ্গে থাকা বলরাম বসু ঘাট রোড এলাকায় বাড়ি বাড়ি প্রচারের অনুমতি দেওয়া যাবে না। এই মর্মে শনিবার বাম প্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাস (Srijeeb Biswas) কে একটি মেল করেছিল পুলিশ (Kolkata police)। এর আগে ভবানীপুরে প্রচারে গিয়ে বিজেপিও বাধা পেয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে। একই রকম অভিযোগ করল সিপিএম-ও।

সূত্র : টিভি৯ বাংলা
এন এ/ ২৬ সেপ্টেম্বর

Back to top button