জাতীয়

১৬০ ইউপিতে ভোট আজ

ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর – আজ প্রথম ধাপের স্থগিত ১৬০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে। এছাড়াও এদিন দেশের ৯টি পৌরসভা ও স্থানীয় সরকার পরিষদের কয়েকটি উপনির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে। ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে।

আগের দিন রবিবার প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে গেছে। নির্বাচনী এলাকায় কোনও সাধারণ ছুটি থাকছে না। তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ছুটির আওতায় থাকবে। নাগরিকরা সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে ছুটি নিয়ে ভোট দিতে পারবেন।

১৬১ ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা থাকলেও উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় একটি ইউপি নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচনে ১৬০টি ইউপির মধ্যে ৪৪টিতে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের সকলেই আওয়ামী লীগ মনোনীত। তবে এসব ইউপিতে সাধারণ সদস্য এবং সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন অনুযায়ী, ভোট গ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে প্রচার-প্রচারণা বন্ধ করতে হয়। সে হিসাবে ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টায় প্রচার কাজ বন্ধ হয়েছে। এ সময়ের পর প্রার্থী বা সমর্থকদের কেউ কোনও ধরনের প্রচারণা চালাতে পারবেন না।

স্বচ্ছ, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন নির্বাচন কমিশনের সচিব মো. হুমায়ন কবীর খোন্দকার। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আমরা যে প্রস্তুতি নিয়েছি তাতে আশা করতে পারি ভোট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে।

নির্বাচনী এলাকায় যেসব যান চলাচল বন্ধ

১৮ সেপ্টেম্বর মধ্যরাত থেকে ২১ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া ভোটের আগের দিন ১৯ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা হতে ভোটের দিন ২০ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ, লঞ্চ, স্পিডবোট এবং ইঞ্জিনচালিত নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া জরুরি সেবাসহ অন্যান্য পরিবহন চলাচল করতে পারবে।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৪৪ ইউপিতে আ.লীগ প্রার্থীর জয়

করোনা মহামারির কারণে স্থগিত প্রথম ধাপের ১৬০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত ৪৪ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। মাঠের রাজনীতির প্রধান বিরোধী দল বিএনপি ইউপি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

দেশে প্রায় সাড়ে চার হাজার ইউপিতে কয়েক ধাপে ভোট গ্রহণ হবে। গত ৩ মার্চ প্রথম ধাপে ৩৭১টি ইউপির ভোটের তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। পরে করোনা পরিস্থিতির কারণে ভোট স্থগিত করা হয়। স্থগিত ভোটের মধ্যে গত ২০ জুন ২০৪টি ইউপির ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
এন এইচ, ২০ সেপ্টেম্বর

Back to top button