ক্রিকেট

জাতীয় লিগে মুমিনুলদের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতি

ঢাকা, ১৫ সেপ্টেম্বর – পাকিস্তানের বাংলাদেশ সফরের সূচি চূড়ান্ত করেছে দুই বোর্ড। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালের চারদিন পর, ১৯ নভেম্বর বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টির প্রথম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মিরপুরে। পরের দুইটি ম্যাচ একই ভেন্যুতে ২০ ও ২২ নভেম্বর।

এরপর দুই দল দুইটি টেস্ট খেলবে চট্টগ্রাম ও ঢাকায়। দুই টেস্ট দিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় আসরের যাত্রা শুরু হবে। পাকিস্তান এরই মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুইটি টেস্ট খেলেছে।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স ছিল হতশ্রী। সাত ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ছয়টিতেই। শ্রীলঙ্কার মাটিতে ড্র করে ২০ পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছিল মুমিনুল হকের দল। এর আগে ভারতের মাটিতে ২-০, পাকিস্তানের মাটিতে ১-০ এবং দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ।

টেস্ট ‘বিশ্বকাপের’ দ্বিতীয় আসরে ভালো করতে মুখিয়ে বাংলাদেশ। এজন্য সেরা প্রস্তুতি নিয়ে ক্রিকেটারদের মাঠে নামাতে চায় বোর্ড। শুরুটা যেহেতু দেশের মাটিতে হচ্ছে। সেজন্য ভালো করতে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ। মুমিনুল, সাদমান, সাইফ হাসানদের প্রস্তুতি দিতে অক্টোবরে জাতীয় ক্রিকেট লিগ আয়োজন করার পরিকল্পনা নিয়েছে বোর্ড।

মধ্য অক্টোবরে বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটের দেশের প্রধানতম ঘরোয়া টুর্নামেন্ট জাতীয় ক্রিকেট লিগ শুরুর পরিকল্পনা। এজন্য সম্ভাব্য প্রস্তুতিও নিচ্ছে বোর্ড। দেশের দুইটি স্টেডিয়ামের (সিলেট ও কক্সবাজার) চারটি মাঠে ম্যাচ আয়োজন করবে সম্পূর্ণ জৈব সুরক্ষা বলয়ে।

জাতীয় প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছেন, ‘ক্রিকেটাররা প্রস্তুতির ভালো সুযোগ পাবে। অক্টোবরে জাতীয় লিগ শুরু হবে। ক্রিকেটাররা তিন থেকে চার রাউন্ড ম্যাচ অনায়েসে খেলতে পারবে। যেহেতু ডাবল লিগে টুর্নামেন্ট হবে চাইলে বেশি ম্যাচও খেলতে পারবে। আমি মনে করি তারা ভালো প্রস্তুতি নিয়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামতে পারবে।’

‘টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরে আমরা ভালো করতে পারিনি আমাদের উচিত এবার নিজেদের সেরা পারফরম্যান্সটা করার। ছেলেরাও উৎগ্রীব হয়ে আছে ভালো করতে। আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়ে শুরু করবো। মাঠে যদি ওরা ডেলিভার করতে পারে আমরা অবশ্যই ভালো ফল প্রত্যাশা করতে পারি।’ – যোগ করেন প্রধান নির্বাচক।

বাংলাদেশ সবশেষ টেস্ট খেলেছে জুলাইতে, জিম্বাবুয়েতে। মুমিনুলের নেতৃত্বে ম্যাচটা জিতেছিল বাংলাদেশ। পাঁচ ম্যাচ পর সাদা পোশাকে মাঠে নামার আগে জাতীয় ক্রিকেট লিগ নিশ্চিতভাবেই ভালো প্রস্তুতি দেবে ক্রিকেটারদের। জাতীয় টেস্ট স্কোয়াডের নিয়মিত ক্রিকেটাররা এখন চট্টগ্রামে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে এইচপির ক্রিকেটারদের বিপক্ষে দুইটি চারদিনের ম্যাচ খেলার অপেক্ষায় আছেন।

১৬ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর প্রথম ম্যাচ এবং ২৩ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দ্বিতীয় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। মুমিনুল হক ‘এ’ দলকে নেতৃত্ব দেবেন। তার সঙ্গে সাইফ, শান্ত, সাদমান, মিঠুন, মিরাজ, নাঈম, ইবাদত, রাহীকেও রেখেছেন নির্বাচকরা।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১৫ সেপ্টেম্বর

Back to top button