ফুটবল

ম্যান ইউকে হারিয়ে ইয়াং বয়েজের চমক

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নতুন করে ‘অভিষেক’ হয়েছে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। মাঠে নেমেই রোনালদো ছুঁয়েছেন ইকার কাসিয়াসের ১৭৭ ম্যাচ খেলার রেকর্ড। তবে রেকর্ডের রাতে পর্তুগিজ তারকা গোল পেলেও দল জিততে পারেনি। ১০ জনের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ২-১ গোলে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে সুইজারল্যান্ডের ইয়াং বয়েজ!

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মঙ্গলবার রাত থেকে শুরু হয়েছে। ‘এফ’ গ্রুপে ম্যান ইউ স্বাভাবিকভাবে ফেভারিট। প্রতিপক্ষের মাঠে ফেভারিটদের মতো শুরুটা হয়েছিল ইংলিশ ক্লাবটির। ৩৫ মিনিট পর্যন্ত ঠিকঠাক চলছিল সব। আধিপত্যের পাশাপাশি গোলও এসেছিল। কিন্তু একটি লাল কার্ড ম্যাচের গতি পাল্টে দেয়! ১০ জনের ম্যান ইউর বিপক্ষে আক্রমণাত্মক খেলে ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে সুইস ক্লাবটি।

ম্যাচ ঘড়ির ১৩ মিনিটে রোনালদো লক্ষ্যভেদ করেন। বাঁ প্রান্ত থেকে ব্রুনো ফার্নান্দেজের ক্রসে গোলকিপার ভন বলমুসের পায়ের নিচ দিয়ে প্লেসিং করে দেন রোনালদো।

২৪ মিনিটে বয়েজের ফাসনাচের শট গোলকিপার ডেভিড ডি গিয়া ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন। প্রতি আক্রমণে রোনালদোর প্রচেষ্টা সফল হয়নি। গোলকিপার প্রতিহত করেন।

৩৫ মিনিটে ম্যান ইউ ১০ জনের দলে পরিণত। অ্যারণ ওয়ান ভিসাকা বাজেভাবে ট্যাকল করেন ইয়াং বয়েজের মার্টিনসকে। পায়ে সরাসরি পাড়া দিয়ে বসেন। রেফারি সরাসরি ভিসাকাকে লাল কার্ড দেখাতে কার্পণ্য করেননি।

১০ জন নিয়ে ম্যান ইউ কিছুটা রক্ষণে মনোযোগ দিয়ে দেখে শুনে খেলতে থাকে। বিপরীতে ইয়াং বয়েজ আক্রমণে জোর দেয়। ৩৮ মিনিটে ইয়াং বয়েজের ফাসনাচের শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।
বিরতির পর সুইস ক্লাব ম্যাচে ভালোভাবেই থাকে। যদিও ৫৩ মিনিটে রোনালদো বক্সের ভিতরে পরে যান। পেনাল্টির দাবি উঠে। রেফারি অগ্রাহ্য করেন।

৬৬ মিনিটে ইয়ং বয়েজ ম্যাচে সমতায় ফেরে। ইলিয়ার নিচু ক্রস থেকে এনগামালেউয়ের প্লেসিং করে দেন। গায়ের সঙ্গে একজন ডিফেন্ডার সেঁটে থাকলেও কিছুই করতে পারেননি। যোগ করা সময়ে ২-১। ভুল পাস থেকে বল পেয়ে জর্দান সিয়েবাতু বক্সের ভিতরে ফাঁকায় পেয়ে গোলকিপারের পাশ দিয়ে বল জড়িয়ে দেন জালে। আর তাতেই তিনবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা দলকে হারানোর উল্লাসে মাতে সুইস ক্লাবটি।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
এন এইচ, ১৫ সেপ্টেম্বর

Back to top button