দক্ষিণ এশিয়া

দেশের উন্নয়নকে পথ দেখাচ্ছেন যোগী, উত্তরপ্রদেশে এসে ঢালাও প্রশংসা মোদির

মুম্বাই, ১৪ সেপ্টেম্বর – দেশকে উন্নয়নের পথ দেখাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ (Uttar Pradesh)। ‘ডবল ইঞ্জিন’ সরকারের সম্পূর্ণ সুফল মিলেছে রাজ্যে। আর এই কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)। মঙ্গলবার আলিগড়ে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন করতে এসে এভাবেই যোগী সরকারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সঙ্গে এর আগের সরকার তথা অখিলেশ সরকারকেও কাঠগড়ায় তুললেন তিনি। ২০২২ সালের উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের আগে কার্যত এভাবেই যোগী সরকারের প্রশস্তি ও বিরোধীদের কটাক্ষ করতে দেখা গেল মোদিকে।

ঠিক কী বলেছেন প্রধানমন্ত্রী? তাঁর কথায়, ”একসময় উত্তরপ্রদেশকে দেশের উন্নয়নের অন্তরায় হিসেবে দেখা হত। আজ তারাই দেশের বৃহত্তম উন্নয়ন অভিযানকে নেতৃত্ব দিচ্ছে।” প্রধানমন্ত্রীর দাবি, উত্তরপ্রদেশ বিনিয়োগের জন্য প্রথম পছন্দ হয়ে উঠেছে। এজন্য যোগী সরকার যেভাবে ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস’ মন্ত্রকে অনুসরণ করছে বলে জানান মোদি।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালের আগে দরিদ্রদের জন্য কেন্দ্র কোনও প্রকল্প নিয়ে এলে উত্তরপ্রদেশে তা বাধা পেত। কিন্তু যোগী সরকার ক্ষমতায় আসার পরে পরিস্থিতি বদলেছে। তিনি আরও বলেন, ”আগে এখানে দুর্নীতি চরমে ছিল। এখন যোগী সরকার সততার সঙ্গে রাজ্যকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে। উত্তরপ্রদেশ দিনে দিনে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের প্রিয় ক্ষেত্র হয়ে উঠেছে। আর সেটা সম্ভব হয়েছে বিনিয়োগের জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরি করা গিয়েছে বলেই।” উল্লেখ্য, গত রবিবার উত্তরপ্রদেশের বিজ্ঞাপন বিতর্কের রেশের মধ্যেই এবার প্রধানমন্ত্রীকে যোগীর হয়ে কথা বলতে দেখা গেল।

সেই সঙ্গে দেশ যে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম বিদেশ থেকে আমদানি করার এতদিনের অভ্যাসমুক্ত হয়ে নিজেরাই আমদানিকারী হয়ে উঠতে চলেছে, সেকথাও জানান প্রধানমন্ত্রী। এদিনের ভাষণে দেশের যে বিপ্লবীরা অধুনাবিস্মৃত, তাঁদের কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। পূর্বতন কংগ্রেস সরকারকে নাম না করে খোঁচা দিয়ে মোদি বলেন, ”এটা দেশের দুর্ভাগ্য যে স্বাধীনতা আন্দোলনে কত নাম বিংশ শতাব্দীর বহু প্রজন্ম জানতে পারেননি। কিন্তু বিংশ শতাব্দীর সেই ভুল একবিংশ শতাব্দীতে এসে শোধরানো হচ্ছে।”

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন
এন এইচ, ১৪ সেপ্টেম্বর

Back to top button