ক্রিকেট

বিশ্বকাপের পর অধিনায়কত্ব ছাড়বেন কোহলি!

নয়াদিল্লী, ১৩ সেপ্টেম্বর – আগামী কয়েক মাসে ভারতের সাদা বলের গল্পের চিত্রনাট্যে বড়সড় পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে। অক্টোবর-নভেম্বরে হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর সীমিত ওভারের দুই ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব ছাড়তে যাচ্ছেন বিরাট কোহলি। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির নেতৃত্বে আসবেন রোহিত শর্মা। ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই) সূত্রে এই খবর দিয়েছেন দেশটির শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বর্তমানে সব ফরম্যাটে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ৩২ বছর বয়সী কোহলি। ভারতের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক এবার দায়িত্ব ভাগাভাগি করবেন ৩৪ বছরের রোহিতের সঙ্গে। অস্ট্রেলিয়ায় টিম ইন্ডিয়ার ঐতিহাসিক সিরিজ জয়ের পর গত কয়েক মাসে রোহিত ও টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে লম্বা আলোচনা করেন কোহলি। ওই সময় পিতৃত্বকালীন ছুটিতে ছিলেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

একটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া লিখেছে, ‘বিরাট নিজেই এই ঘোষণা দিবে। তার মনে হচ্ছে, তার ব্যাটিংয়ে আরও মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন, যেটা সে সবসময় হতে চেয়েছে- বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান।’

দীর্ঘদিনের রেষারেষির পর গত মার্চে কোহলি ও রোহিতের মধ্যে বন্ধুত্ব হয়েছিল। কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশনে থাকার ফলে তারা আরও কাছাকাছি আসার সুযোগ পায় এবং সব তিক্ততা মুছে যায়।

২০২২ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ হবে। এই দুটি আসর সামনে রেখে সেরা ব্যাটিং প্রস্তুতি নিতে চান কোহলি, তাই সময় বের করতেই কাঁধ থেকে নেতৃত্বের ভার নামানোর কথা ভাবছেন।

২০১৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডে কিছু ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন কোহলি। বছরের শেষ দিকে একই কীর্তি গড়তে চান দক্ষিণ আফ্রিকাতেও। শুধু এই সিরিজ নয়, সামনের পাঁচ-ছয় বছর সেরা ক্রিকেট খেলার পরিকল্পনা তার। এসব ভেবেই কিছুটা চাপহীন থেকে এগিয়ে যেতে চান ৯৫ ওয়ানডে ও ৪৫ টি-টোয়েন্টিতে নেতৃত্ব দিয়ে যথাক্রমে ৬৫ ও ২৯ জয় পাওয়া কোহলি।

রোহিতের কাঁধে নিশ্চিন্তে নেতৃত্ব দিতে পারে ভারত। ১০ ওয়ানডে ও ১৯ টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়কত্ব করে ৮টি ও ১৫টি জয় পেয়েছেন তিনি। এছাড়া তার অধীনে দুটি বহুজাতিক ইভেন্ট জিতেছে ভারত। ২০১৮ সালে নিদাহাস ত্রিদেশীয় সিরিজ ও একই বছর ওয়ানডে এশিয়া কাপ। বীরেন্দর শেবাগের পর কেবল তিনিই অধিনায়ক হিসেবে ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকান।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১৩ সেপ্টেম্বর

Back to top button