ব্যবসা

ইভ্যালির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে পেপারফ্লাই

ঢাকা, ০৯ সেপ্টেম্বর – বকেয়া পাওনা আদায়ে ইভ্যালির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে পণ্য পরিবহন প্রতিষ্ঠান পেপারফ্লাই। প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে, বর্তমানে ইভ্যালির কাছে এর বকেয়ার পরিমাণ ৭ কোটি টাকা।

পেপারফ্লাইয়ের চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিএমও) রাহাত আহমেদ জানান, দেশজুড়ে পণ্য ডেলিভারি দেওয়ার খরচ হিসাবে কয়েক কোটি টাকা বকেয়া হলেও গত জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত ইভ্যালি কোনো বিল পরিশোধ করেনি। কয়েকবার বকেয়া আদায়ে আলোচনার উদ্যোগ নিলেও ইভ্যালির কাছ থেকে তারা কোনো সাড়া পাননি।

গত সোমবার পেপারফ্লাইয়ের পক্ষ থেকে ইভ্যালির ঠিকানায় উকিল নোটিস পাঠানো হয়েছে। তাদের জবার পাওয়ার পর আইন অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে পেপারফ্লাই।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ইভ্যালির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শুধু পণ্য সরবরাহকারীরা ইভ্যালির কাছে ২০৬ কোটি টাকা পায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের করা অনুসন্ধানে দেখা গেছে, গ্রাহক এবং ব্যবসায় অংশীদারদের কাছে ৪০৩ কোটি টাকার দেনা রয়েছে ইভ্যালির। প্রতিষ্ঠানটির অস্থাবর সম্পদের মূল্য মাত্র ৬৫ কোটি টাকা। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সঙ্গে লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে।

সবশেষ আলোচিত-সমালোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিতে ১ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে বলে যে ঘোষণা দিয়েছিল তা থেকে সরে এসেছে দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ যমুনা।

গত ২৭ আগস্ট ইভ্যালির চেয়ারম্যান ও এমডির নামে পরিচালিত সব ধরনের অ্যাকাউন্টের তথ্য ও ৫০ লাখ টাকা বা তার বেশি লেনদেনের চেক বা রসিদের কপি চেয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণে থাকা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।

গত বছরের আগস্টে ইভ্যালি এবং এর চেয়ারম্যান ও এমডির ব্যাংক অ্যাকাউন্টে লেনদেন এক মাসের জন্য স্থগিত করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক।

এরই মধ্যে প্রতারণা ও গ্রাহক হয়রানির অভিযোগে ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও এমডি মোহাম্মদ রাসেলের বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জে মামলা করা হয়েছে।

সূত্র: দেশ রূপান্তর
এম ইউ/০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

Back to top button