ঢালিউড

‘এ যদি পৌরুষ হয়, তাকে আমি বলি, ছিঃ’

ঢাকা, ৮ অক্টোবর- নারী নির্যাতনের সাম্প্রতিক ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করলেন জয়া আহসান।

নির্যাতন করে দেশেই ‘নির্মম ভিডিও তৈরি’ বিশ্বাসই করতে পারছেন না ঢাকা-কলকাতার জনপ্রিয় নায়িকা! বলেন, “এই পরিণতি আমরা কখনোই মেনে নেব না। এ যদি পৌরুষ হয়, তাকে আমি বলি, ছিঃ। সবাই কণ্ঠ মিলিয়ে চিৎকার করে বলি, ছিঃ।”

বৃহস্পতিবার সকালে ফেইসবুকে জয়া লেখেন,

“ছিঃ

কীভাবে এই দৃশ্যটি আমি দেখি! ফোনে ফোনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া সেই নির্মম নিষ্ঠুর ভিডিও আমারই দেশে তৈরি, এও বিশ্বাস করতে হবে? আমারই কোনো বোনকে লাঞ্ছনায় নরকের অতলে পৌঁছে দিচ্ছে আমারই পাশের বাড়ির এক ছেলে, এও আমাকে দেখতে হবে আমারই ভাইয়ের রক্তে ভেজা লাল–সবুজের দেশে?

আরও পড়ুনঃ  মহামারিতেও ধনকুবেরদের সম্পত্তি বেড়েছে ১০.২ ট্রিলিয়ন

নিষ্পাপ শিশু, সরল আদিবাসী, বেড়াতে যাওয়া আনন্দিত স্ত্রী, ঘরের কোণে সংসারী মা—সবাই হয়ে যাচ্ছে নরকের অঙ্গারে পোড়া ছবি। একের পর এক এই সর্বনাশা ঢেউ কোথায় ভাসিয়ে নিচ্ছে আমাদের? তাহলে কি মেনে নিতে হবে, ধর্ষণের অতিমারিই আমাদের গন্তব্য?

না। এই পরিণতি আমরা কখনোই মেনে নেব না। এ যদি পৌরুষ হয়, তাকে আমি বলি, ছিঃ। সবাই কণ্ঠ মিলিয়ে চিৎকার করে বলি, ছিঃ।

আর, তুমি এই হৃদয়ে উঠে এসো, দুঃখিনী বোনটি আমার।”

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ঘরে ঢুকে এক গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করেছে একদল যুবক ও কিশোর। ছেলের বয়সী ওই সব কিশোর-যুবকের পায়ে ধরেও রেহাই পাননি ৩৭ বছর বয়সী ওই নারী।

ভয়ে ৩২ দিন আগের ঘটনাটি কাউকে জানাতেও পারেননি নির্যাতিতা কিংবা তার স্বজনরা। ২ সেপ্টেম্বর রাতের ঘটনার একটি ভিডিওচিত্র গতকাল রবিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হলে তা জানাজানি হয়। ওই ঘটনায় নয়জনকে আসামি করে মামলা করা হয়।

এ ঘটনায় ইতিমধ্যে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজন নির্যাতন ও ভিডিওচিত্র ছড়ানো মামলার এজাহারভুক্ত আসামি এবং বাকি পাঁচজন এজাহারবহির্ভূত। তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তদন্তে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে।

Back to top button