জাতীয়

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ আইনের বর্ধিতকরণ প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

ঢাকা, ০৬ সেপ্টেম্বর – মন্ত্রিসভা ২০২৬ সাল পর্যন্ত আরও পাঁচ বছরের জন্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ (বিশেষ বিধান) আইন ২০১০ এর বর্ধিতকরণ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব আজ অনুমোদন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ সচিবালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। পরে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বৈঠকের বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘২০৩০ সালের মধ্যে উচ্চ-মধ্যম আয়ের এবং ২০৪০ সালের মধ্যে উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে আমরা যাতে নির্বিঘ্নে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ করতে পারি সে পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। এজন্য ২০২৬ সাল পর্যন্ত এটার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। আইনের মেয়াদ ২০২১ সালে শেষ হয়ে যাওয়ার কথা।

তিনি আরো বলেন, এজন্য ‘বিদ্যুৎ জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) (সংশোধন) আইন, ২০২১’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘এখন কেবল আগের আইনটার মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগ বলেছে যে, আইনটি খুবই কার্যকর তাই তাদের আরও পাঁচ বছর দরকার।’

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এটা ছিল স্পেশাল প্রভিশন আইন। ২০১০ সালে বিভিন্ন স্পেশাল প্রভিশন প্রয়োজন হলো। জেনারেল যে ক্রয় প্রক্রিয়া ও ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি এটার বাইরে কিছু এক্সট্রা লাগবে। সেটার জন্য এই আইন করা হয়। এখন দেখা যাচ্ছে এটা কার্যকর, ভালই চলছে। এজন্য মন্ত্রণালয় আরও পাঁচ বছর সময় বাড়িয়ে নিয়েছে।’

এছাড়া বৈঠকে ‘সরকারি ঋণ আইন, ২০২১’-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন এবং ‘বাংলাদেশ পুলিশ (অধস্তন কর্মচারী) কল্যাণ তহবিল আইন, ২০২১’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা।

সূত্র : একুশে
এম এস, ০৬ সেপ্টেম্বর

Back to top button