দক্ষিণ এশিয়া

সরকার হবে ইসলামিক ও জবাবদিহিতামূলক: তালেবান মুখপাত্র

কাবুল, ০৬ সেপ্টেম্বর – তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, দেশে যুদ্ধের সমাপ্তি হয়েছে এবং তারা আশা করছেন, আফগানিস্তান একটি স্থিতিশীল দেশ হবে। সোমবার কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। আফগানিস্তান থেকে প্রকাশিত তোলো নিউজ এ খবর জানিয়েছে।

এর আগে সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে তালেবান ঘোষণা দেয় যে, তাদের যোদ্ধারা পাঞ্জশির প্রদেশের নিয়ন্ত্রণ হাতে নিয়েছে। তবে যোগাযোগের সীমাবদ্ধতার কারণে তোলো নিউজ তালেবান বিরোধী এনআরএফ সদস্যদের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলতে পারেনি।

তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, তারা পাঞ্জশিরে আলোচনার ভিত্তিতে সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সে আলোচনা ব্যর্থ হয়েছিল।

তিনি বলেন, শিগগিরই সরকার গঠনের একটি ঘোষণা আসবে। তবে পরিবর্তন ও সংস্কারের জন্য একটি তত্বাবধায়ক সরকার প্রাথমিকভাবে গঠন করা হতে পারে।

আফগানিস্তানের অবকাঠামো ও উন্নয়ন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘দখলদাররা’ কখনোই আফগানিস্তানের পুনর্গঠন করবে না; এটা আফগানিস্তানের মানুষের কাজ এবং তাদেরই এটা করা উচিৎ।

কাবুল বিমানবন্দর সংস্কারেও কাজ চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কাতার, তুরস্ক ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের কোম্পানীগুলোর প্রযুক্তিবিদদের দল কাবুল বিমানবন্দর সংস্কারে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

পররাষ্ট্রনীতির প্রশ্নে জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, তালেবান বিশ্বের অন্য দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। তিনি জানান, তালেবান, বিশেষ করে চীনের সঙ্গে ঘনিষ্ট সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়, কারণ তারা বড় অর্থনৈতিক শক্তি এবং তারা আফগানিস্তানের পুনর্গঠন ও উন্নয়নে সহযোগিতা করতে পারবে।

চলতি সপ্তাহে কাবুলে পাকিস্তানের গোয়েন্দা প্রধান ফয়েজ হামিদের সফর সম্পর্কে মুজাহিদ বলেন, ‘তারা (পাকিস্তান) বার বার কাবুল সফরে আসার অনুরোধ জানিয়ে আসছিল। সম্প্রতি আমরা তাদের অনুমতি দিয়েছি।’

সম্প্রতি বেশ কিছু কট্টরপন্থীদের কারামুক্ত করে তালেবান। পাকিস্তানের আশঙ্কা, এদের কেউ কেউ পাকিস্তানে গিয়ে পুনরায় সেখানে হামলা চালাতে পারে। জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, তালেবান তাদের নিশ্চিত করছে যে, আফগান সীমান্তের ভেতরে থেকে কেউ অন্য দেশের জন্য হুমকি হবে না।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

Back to top button