বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ইউটিউবাররা যে পরিমাণ আয় করলেন

দায়িদ হাসান মিলন

ইউটিউবের অর্থ আয়ের ‘প্ল্যাটফর্ম পার্টনার’ প্রোগ্রামে ২০ লাখেরও বেশি ক্রিয়েটর বা কনটেন্ট নির্মাতা রয়েছেন। গত তিন বছরে তাদের ভালো অঙ্কের অর্থ প্রদান করেছে প্রতিষ্ঠানটি। দিন দিন এই অর্থ প্রদানের পরিমাণ সার্বিকভাবে বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে।

ভারতের প্রযুক্তিবিষয়ক সংবাদমাধ্যম গেজেটস নাউ এক প্রতিবেদনে জানায়, ইউটিউবের পার্টনার প্রোগ্রামের আওতায় গত তিন বছরে ক্রিয়েটর, আর্টিস্ট ও মিডিয়া কোম্পানিকে ৩০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থ প্রদান করেছে ইউটিউব। বর্তমানে ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামে যোগ্য যে কেউ যুক্ত হয়ে সহজে আয় করতে পারছেন।

এ বিষয়ে ইউটিউবের চিফ প্রোডাক্ট অফিসার নীল মোহন এক বিবৃতিতে বলেন, বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ২০ লাখেরও বেশি মানুষ আমাদের পার্টনার প্রোগ্রামে যুক্ত আছেন। এদের অনেকে চাকরি দিচ্ছেন এবং অবদান রাখছেন স্থানীয় ও বৈশ্বিক অর্থনীতিতে। ২০১৯ সালে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই ইউটিউবের ক্রিয়েটিভ ইকোসিস্টেমের মাধ্যমে ৩ লাখ ৪৫ হাজার মানুষের পূর্ণকালীন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এখন যেকোনও ব্যক্তি চাইলে ইউটিউবকে কাজে লাগিয়ে তার জীবিকা নির্বাহ করতে পারবেন।

ইউটিউবের পার্টনার প্রোগ্রামের জন্য নির্বাচিত হতে একজন ক্রিয়েটরের অন্তত এক হাজার সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে। পাশাপাশি গত ১২ মাসে ওই চ্যানেলে ওয়াচ-টাইম হতে হবে সবমিলিয়ে ৪ হাজার ঘণ্টা। এরকম কয়েকটি শর্ত পূরণের পরই ইউটিউব থেকে অর্থ আয় করা যাবে।

এম ইউ/২৪ আগস্ট ২০২১

Back to top button