ফুটবল

দর্শক নিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার ফুটবল

দীর্ঘ ১৮ মাস পর পরিপূর্ণ দর্শক নিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ। করোনাভাইরাসের দেড় বছর আগে থেকেই দর্শক বিহীন ফুটবল হয়েছে ইংল্যান্ডে। ভাইরাসের প্রকোপ কমায় এবার লিগ কর্তৃপক্ষ দর্শকদের মাঠে উপস্থিত হয়ে খেলা দেখার সুযোগ দিচ্ছে। এটা শুরু হয়েছিল অবশ্য ইউরো ২০২০ দিয়ে।

বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় নবাগত ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে তাদের মাঠে আর্সেনালের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে ২০২১-২২ মৌসুমের লিগ। ব্রেন্টফোর্ডের ম্যানেজার টমাস ফ্রাঙ্ক বলেন, ‘একটি নতুন যুগের সুচনা হতে যাচ্ছে যে অভিজ্ঞতা আমাদের কারুরই ছিল না।’

দর্শকদের মাঠে প্রবেশ করার অনুমতি দেয়া হলেও কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে এবং সেগুলো কঠোরভাবে মানতে হবে। মাঠে প্রবেশ করতে হলে টিকা নেয়ার প্রমাণ দিতে হবে স্টেডিয়াম গেটে। তাছাড়া ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে করোনা টেস্টে নেগেটিভ হওয়ার রিপোর্ট থাকতে হবে তাদের কাছে। ইউকে সরকার এখনও ভ্যাকসিনেশন পাসপোর্ট প্রথা চালু করেনি।

তবে শিগগিরই ২০ হাজারের বেশি লোক জমায়েত যে সব অনুষ্ঠানে হবে সেখানে এই নিয়ম চালু করবে বলে জানানো হয়েছে। ইংলিশ লিগ এর প্রধান নির্বাহী রিচার্ড মাস্টার্স বিবিসিকে বলেন, ‘এটা স্মরনীয় মুহূর্ত। আমরা ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাবো। তবে আমরা সতর্ক থাকবো এবং জনগনের নিরাপত্তাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ।’

দর্শকরা মাঠে যেতে পারলে ক্লাবগুলোর আর্থিক অবস্থাও ভাল হবে। ক্লাবগুলো গেট মানি পাবে এবং নতুন টেলিভিশন স্বত্ত্ব থেকেও তাদের আয় বাড়বে। যে কারণে ক্লাবগুলো শক্তি বাড়াতে খেলোয়াড় সংগ্রহ করছে। যদিও স্পেনের বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, ইউভেন্টাসসহ বেশ কিছু ক্লাব খেলোয়াড় বিক্রি করে বেতন ভাতা খাতে ব্যয়ের পরিমান কমিয়েছে। কিন্তু ইংলিশ ক্লাবগুলো তা করেনি। তারা নতুন খেলোয়াড় কিনে শক্তি বাড়িয়েছে।

গতবারের চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি প্রিমিয়ার লিগের ট্রান্সফার রেকর্ড করে অ্যাস্টন ভিলা থেকে ১০ কোটি পাউন্ডের বিনিময়ে দলে নিয়েছে জ্যাক গ্রিলিশকে। ট্রান্সফার উইন্ডো শেষ হওয়ার আগে তারা টটেনহ্যাম থেকে আরও বেশী দামে নিতে পারে হ্যারি কেইনকে। ইংলিশ অধিনায়ক প্রকাশ্যেই টটেনহ্যাম ছাড়ার ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন। তাই হয়তো রবিবার ম্যানসিটির বিপক্ষে টটেনহ্যামের হয়ে তাকে মাঠে দেখা যাবে না।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও ১০ কোটি পাউন্ডের বেশী অর্থ ব্যয় করে দলে নিয়েছে জ্যাডন স্যাঞ্চো এবং রাফায়েল ভারানেকে। আট বছরের শিরোপা খড়া কাটানোই তাদের লক্ষ্য। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং ইউরোপিয়ান সুপার কাপ বিজয়ী চেলসিও পিছিয়ে নেই। টমাস টুখেলের ছোয়ায় বদলে যাওয়া চেলসি শক্তি বাড়াতে এসি মিলান থেকে ৯ কোটি ৭০ লক্ষ পাউন্ডের বিনিময়ে দলে নিয়েছে রোমেলু লুকাকুকে। টুখেল বলেন, আমাদের লক্ষ্য যে কয়টি প্রতিযোগিতায় অংশ নেব তার সবগুলো শিরোপা জেতা। আমরা যদি গত মৌসুমের মতো নিজেদের খেলাটা খেলতে পারি তাহলে অনেক কিছুই করা সম্ভব হবে।’

খুব বেশী পিছিয়ে নেই লিভারপুল। সেন্ট্রাল ডিফেন্সের শক্তি বাড়াতে তারা দলে নিয়েছে ইব্রাহিম কোনাটেকে। ডিফেন্ডারদের ইনজুরি গত মৌসুমে ভুগিয়েছে লিভারপুলকে। অনেক কষ্টে তারা শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছিল। দীর্ঘ দিনের ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন ভার্জিল ফন ডিক, জর্ডান হেন্ডারসন, জো গোমেস। কোচ ইয়োর্গেন ক্লপ বলেন, আমাদের অনেক কিছুই আপনারা বাইরে দেখে দেখতে পান না। এবার নিজ দর্শকের সামনে ভিন্ন লিভারপুলকে দেখা যাবে।’

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১৩ আগস্ট

Back to top button