ঢালিউড

পরীমনির ঘটনা জায়েদ খান ব্যক্তিগতভাবে নিয়েছে: গিয়াস উদ্দিন সেলিম

ঢাকা, ১৩ আগস্ট – যে প্রক্রিয়ায় পরীমনি ও চয়নিকা চৌধুরীকে আটক করা হয়েছে সেটি সমর্থন করেন না বলে জানিয়েছেন পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিম। এ ঘটনা শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান ব্যক্তিগতভাবে নিয়েছেন বলেও মনে করেন তিনি।

‘মনপুরা’খ্যাত এই চিত্রপরিচালক বলেন, ‘পরীমনি এবং চয়নিকা চৌধুরীকে আটকের ঘটনা দেখে আমার মনে হয়েছে আমরা বোধহয় আরো দুজন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করছি। পরীমনিকে যেভাবে আটক করা হয়েছে, তাতে তার সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। কারণ কোনোরকম সার্চ ওয়ারেন্ট ছাড়া কাজটি করা হয়েছে। এটি খুবই উদ্বেগজনক।’

‘তবে সরকার এদিকে যথাযথ নজর দেবেন এবং এর প্রতিকার করবেন’ বলেও আশাপ্রকাশ করেন তিনি।

পরীমনি গ্রেপ্তারের পরপরই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি এই চিত্রনায়িকার সদস্যপদ স্থগিত করে। এ প্রসঙ্গে গিয়াস উদ্দিন সেলিম বলেন, ‘জায়েদ খানের কথা টক শোতে শুনেছি। তিনি ব্যক্তিগতভাবে বিষয়টি নিয়েছেন। সংগঠনটির কার্যনির্বাহী সদস্যরা নেতা হিসেবে বিষয়টি দেখেননি বরং ব্যক্তিগতভাবে বিষয়টি নিয়েছেন বলে আমার মনে হয়েছে।’

‘বন্ধু বাড়াতে হবে। বন্ধু না থাকলে সংগঠন দাঁড়াবে না। তাদের কথাবার্তা খুবই দায়সাড়া এবং এই মনোভাব অপেশাদার’ বলেও উল্লেখ করেন এই নির্মাতা।

পরীমনিকাণ্ডে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রল হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে গিয়াস উদ্দিন সেলিম বলেন, ‘আমরা শুধু অন্যের ভুল-ত্রুটি ধরার জন্য এই মিডিয়া ব্যবহার করছি। নিজে কেমন সেই চিন্তাটা অনেকেই করেন না। আমরা জাতিগতভাবে, অন্যের ভুল নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করি। এক ধরনের মিডিয়া, ক্যামেরা ট্রায়াল হচ্ছে। বিচারে অপরাধ প্রমাণ হওয়ার পর একজন মানুষকে অপরাধী বলা যায়। কিন্তু সেটা হচ্ছে না, তার আগেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অসুস্থভাবে আমরা বিচার করে ফেলছি।’

উল্লেখ্য গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘স্বপ্নজাল’ সিনেমায় পরীমনির অভিনয় প্রশংসিত হয়।

এন এইচ, ১৩ আগস্ট

Back to top button