জাতীয়

পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা: ষড়যন্ত্র কি না যাচাই দাবি কাদেরের

ঢাকা, ১২ আগস্ট – বারবার পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা চালকের অদক্ষতা না অন্তর্ঘাত তা খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার সাহস-সক্ষমতার এই প্রজেক্ট নিয়ে অনেক ষড়যন্ত্র ছিল, এখনও আছে। কাজেই বিষয়টি আমাদের খতিয়ে দেখা দরকার।’

বুধবার (১১ আগস্ট) ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

পিলারে বারবার ফেরির ধাক্কায় ক্ষোভ প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ‘‘পদ্মাসেতু কোনো স্বপ্ন নয়, দৃশ্যমান বাস্তবতা। আগামী বছর জুনের মধ্যে পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে যান চলাচল করবে। পদ্মাসেতুর পিলারগুলো সব বসে গেছে এবং নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। গত এক মাসে এ পর্যন্ত চার বার পদ্মাসেতুতে ফেরির ধাক্কা। এই ধাক্কা বার বার কেন?

‘অদক্ষতার জন্য চালককে আপনি শাস্তি দিলেন, চাকরিচ্যুত করলেন। কিন্তু আমরা জানতে চাই, এটা চালকের অদক্ষতা না অর্ন্তঘাত— খতিয়ে দেখতে হবে। বার বার কেন পদ্মাসেতু আক্রান্ত হচ্ছে? নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার আগে আগেই কেন পদ্মাসেতুতে এ ধরনের ঘটনা ঘটছে?”

জীবন ও জীবীকার ভারসাম্য সৃষ্টির জন্য সরকার লকডাউন শিথিল করেছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া আর সব প্রতিষ্ঠান খুলে গেছে। প্রধানমন্ত্রী ক্রমান্বয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সক্রিয় চিন্তাভাবনা করছেন। সেজন্য প্রয়োজন গণটিকা কর্মসূচি বাস্তবায়ন, যা সারাদেশে বিপুল আগ্রহের সৃষ্টি করেছে।’

‘স্থায়ী লকডাউন কোনো সমাধান নয়’ মন্তব‌্য করে তিনি বলেন, ‘যদি আমরা সচেতন না হই। তাই করোনা নামক এই অদৃশ্য শত্রুকে মোকাবিলা করার জন্য আমাদের সচেতনতার অস্ত্র শাণিত করতে হবে।’

স্বাধীনতার ৫০ বছরেও স্বাধীনতার একটি বস্তুনিষ্ঠ পূর্ণাঙ্গ ইতিহাস না পাওয়ায় কথা তুলে ধরে কাদের বলেন, ‘স্বাধীনতার পূর্ণাঙ্গ ইতিহাস নতুন প্রজন্মের দাবি, সময়ের দাবি। আমি আশা করব, ইতিহাস অর্পিত এই দায়িত্বটি বাংলা একাডেমি শুরু করতে পারে।’

বঙ্গবন্ধুর একটা বস্তুনিষ্ঠ পূর্ণাঙ্গ জীবনী জাতির জন্য আজকে অপরিহার্য হয়ে পড়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার রাজনৈতিক সরকার। রাজনীতিকরা সিদ্ধান্ত নেয়, বাস্তবায়ন করে আমলারা। সরকার সঠিক পথেই আছে। সব পলিসির মূল ব্যক্তি হচ্ছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী। আমলারা পলিসি করে না, পলিসি নির্ধারণ করে রাজনীতিকরা। সেটার বাস্তবায়ন করে আমলারা। এ সরকার আমলানির্ভর নয়, এ সরকার গণমুখী সরকার। এ সরকার জনস্বার্থ নির্ভর সরকার।’

তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর ইতিহাসে ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ছিল সবচেয়ে বর্বর, নির্মম হত্যাকাণ্ড।’

করোনা মহামারিকালে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসাবে স্বেচ্ছাসেবক লীগ যে নিরলসভাবে মানবিক সহায়তার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে এজন্য সংগঠনের নেতাকর্মীদের প্রশংসাও করেন তিনি।

সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম বলেন, ‘১৫ আগস্ট ছিল ষড়যন্ত্রের নীলনকশা। এই কাণ্ডের মূল কারিগর ছিলেন জিয়াউর রহমান।’

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ’র সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব‌্য দেন সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান, সংগঠনটির সহসভাপতি গাজী মেসবাউল হোসেন সাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আফজালুর রহমান বাবু, ঢাকা মহানগন দক্ষিণের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন। এসময় সংগঠনের কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১২ আগস্ট

Back to top button