জাতীয়

চীন থেকে ৬ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন কেনা হবে

ঢাকা, ১১ আগস্ট – করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ প্রতিষেধক টিকা কার্যক্রম গতিময় করতে চীনা প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মা থেকে ৬ কোটি ডোজ সিনোফার্ম ভ্যাকসিন কেনার উদ্যোগ নিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ।

চীনের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির আলোকে এই টিকা সংগ্রহ করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুহার বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সরকার কোভিড মহামারি পরিস্থিতি মোকাবেলায় ভ্যাকসিন কেনার নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে চীনের সিনোফার্মসহ অন্য যে কোনো কার্যকর ভ্যাকসিন কেনার বিষয়টি গত ২৮ এপ্রিল অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, কোভিড-১৯ রোগের সংক্রমণ ও বিস্তার এবং জনগণকে কোভিড প্রতিরোধী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য গত ১৯ জুন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও চীনা প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের মধ্যে চুক্তিপত্রে উল্লেখিত একক মূল্যে দেড়কোটি ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন (ভেরো সেল), ইনঅ্যাকটিভেটেড বা সিনোফার্ম ভ্যাকসিন কেনার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তি অনুযায়ী ২০ লাখ ডোজ ভ‌্যাকসিন সরবরাহের পর সিনোফার্ম কর্তৃপক্ষ ১০ লাখ ৩০ হাজার ডোজ এবং অতিরিক্ত ২০ লাখ ডোজ, মোট ১ কোটি ৫০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন হ্রাসকৃত একক দামে সরবরাহের প্রস্তাব করলে তা গ্রহণ করে একটি সাপ্লিমেন্ট চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়। এই কেনার বিষয়টি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি গত ১৫ জুলাই তারিখের সভায় অনুমোদিত হয়। উল্লেখ্য, সিনোফার্ম-এর সঙ্গে এ পর্যন্ত এক কোটি ৭০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন কেনার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে বলে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী কোভিডের বিরুদ্ধে গোষ্ঠী হার্ড ইম্যুনিটি গড়ে তুলতে হলে মোট জনসংখ্যার শতকরা ৮০ ভাগকে ভ্যাকসিন দিতে হবে। সে অনুযায়ী দেশের ১৩ কোটি ৮২ লাখ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য কমপক্ষে ২৭ কোটি ৬৪ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে হবে। এই চাহিদার বিপরীতে এ পর্যন্ত ক্রয় এবং বিদেশ থেকে পাওয়া উপহার ও অনুদান মিলিয়ে প্রায় ২ কোটি ৫৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন সংগ্রহ করা হয়েছে।

ভ্যাকসিনের চাহিদা পূরণের জন্য আরও বেশি পরিমাণ ভ্যাকসিন সংগ্রহ করার বিশ্বের বিভিন্ন ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে দেখা যায় সিনোফার্ম বাংলাদেশের চাহিদামতো ভ্যাকসিন সরবারহ করতে সক্ষম।

এরই ধারাবাহিকতায় সিনোফার্ম ৬ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন সরবরাহের প্রস্তাব সম্বলিত একটি খসড়া চুক্তিপত্র পাঠায়। ওই প্রস্তাব স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক মূল‌্যায়ন করা হয়েছে এবং চুক্তিপত্রে উল্লেখিত একক দরে ৬ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন কেনার সুপারিশ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নতুন ক্রয় চুক্তির শর্তাবলি এবং আগে স্বাক্ষরিত ক্রয় চুক্তির শর্তাবলি হুবুহু একই আছে। ভ্যাকসিনের পরিমাণ ছাড়া দুটি চুক্তিপত্রের মধ্যে আর কোনো ভিন্ন নেই।

সূত্র জানায়, চীনা প্রতিষ্ঠান সিনোফার্ম-এর সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির আওতায় সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (ডিপিএম) সিনোফার্ম ভ্যাকসিন কেনার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। নতুন ক্রয় প্রস্তাবে জড়িত অর্থের পরিমাণ ১০০ কোটি টাকার বেশি হওয়ায় এক্ষেত্রে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের প্রয়োজন হবে।

সূত্র জানায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রাজস্ব বাজেটে বরাদ্দকৃত অর্থ থেকে ভ‌্যাকসিন কেনা ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক ব্যয় নির্বাহ করা হবে। তবে পরবর্তীতে কোনো উন্নয়ন সহযোগী বা সংস্থা থেকে আর্থিক সহায়তা বা ঋণ পাওয়া গেলে উক্ত অর্থ পুনর্ভরণ করা হবে।

সূত্র জানায়, আগামী কাল বুধবার (১০ আগস্ট) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় এ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১১ আগস্ট

Back to top button