চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে একদিনে আরও ১০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৮৭৯

চট্টগ্রাম, ১০ আগস্ট – প্রতিদিনই লম্বা হতে থাকা মিছিলে গত একদিনে যোগ হলেন আরও ১০ জন। যাদের ৫ জন নগরের বাকি ৫ জন উপজেলার বাসিন্দা। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা এসে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮২ জনে।

এছাড়া গত একদিনে নতুন করে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে আরও ৮৭৯ জন। তারমধ্যে ৬২৬ জন নগরের ও ২৫৩ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এ নিয়ে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৯১ হাজার ৯০৭ জনে এসে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে ৬৭ হাজার ৮৯৪ জন নগরের বাসিন্দা ও ২৪ হাজার ১৩ জন বিভিন্ন উপজেলার।

সোমবার রাতে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। কক্সবাজারসহ চট্টগ্রামের সরকারি-বেসরকারি ১১টি ল্যাব ও বিভিন্ন এন্টিজেন বুথে সর্বমোট ২ হাজার ৯৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়।

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৩৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৬৪ ও উপজেলার ৬৪ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে (বিআইটিআইডি) ৫৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ১১৯ ও উপজেলার ২২ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৪২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ১৩০ ও উপজেলার ৭ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৬৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ৩৮ ও উপজেলার ৭১ জনজীবাণুবাহক পাওয়া গেছে।

নমুনা সংগ্রহের পরপরই ফলাফল প্রদানকারী এন্টিজেন টেস্টে ৫৩০ জনের মধ্যে ১১৪ জন জীবাণুবাহক বলে জানানো হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ৪৯ জন ও উপজেলার ৬৫ জন। চট্টগ্রাম নগরীতে করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহকারী কয়েকটি কেন্দ্রে এন্টিজেন টেস্ট করা হয়ে থাকে।

এদিকে বেসরকারি ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির মধ্যে ইমপেরিয়াল হাসপাতালের ল্যাবে ১৫৪ নমুনা পরীক্ষা নগরের ৩২ জন ও উপজেলার ৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। শেভরন ল্যাবে ৩৮২ টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ৭৮ ও উপজেলার ৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতালে ৬২ জনের নমুনা পরীক্ষায় নগরে ১৮ জন ও উপজেলার ৪ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। আরটিআরএল ল্যাবে ২৪ নমুনা পরীক্ষা নগরের ১৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ৫৯ নমুনা পরীক্ষায় নগরে ২৩ জন আর উপজেলার ১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ১৮২ জনের নমুনা পরীক্ষায় নগরে ৫৯ জন ও উপজেলার ১০ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। এছাড়া কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে কেবল ২১ টি এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়নি কেউ।

এদিকে দক্ষিণ চট্টগ্রামের ৭ উপজেলার চেয়ে উত্তরের ৭ উপজেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছেই। সেদিক থেকে দক্ষিণ চট্টগ্রামে শনাক্তের সংখ্যা ছিল তুলনামূলক কম।

সর্বশেষ একদিনে চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তদের মধ্যে লোহাগাড়ার ১ জন, সাতকানিয়ার ৭ জন, বাঁশখালীর ৪ জন, আনোয়ারার ৬ জন, চন্দনাইশের ১ জন, পটিয়ার ২১ জন, বোয়ালখালীর ৪ জন, রাঙ্গুনিয়ার ২৫ জন, রাউজানের ৬৫ জন, ফটিকছড়ির ১০ জন, হাটহাজারীর ৮০ জন, সীতাকুণ্ডের ১৯ জন, মিরসরাইয়ের ৯ জন ও সন্দ্বীপের বাসিন্দা রয়েছেন ১ জন।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা শনাক্তের খবর জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ৩ এপ্রিল চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ৯ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম এক ব্যক্তি মারা যান।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১০ আগস্ট

Back to top button