জাতীয়

হেলেনা-পরীমনিসহ সাতজনের তদন্তের দায়িত্ব চেয়ে র‌্যাবের চিঠি

ঢাকা, ০৯ আগস্ট – আওয়ামী লীগের উপকমিটি থেকে বহিষ্কারের পর র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার হেলেনা জাহাঙ্গীর, মডেলদের দিয়ে অনৈতিক কাজের প্রধান সমন্বয়ক শরফুল হাসান ওরফে মিশু হাসান, তার সহযোগী মাসুদুল ইসলাম জিসান, চিত্রনায়িকা পরীমনি, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ সাতজনের মামলার তদন্তের অনুমতি চেয়ে পুলিশ সদরদপ্তরে আবেদন করেছে এলিট ফোর্স র‌্যাব।

এই সাতজনের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদী হয়ে ১০টি মামলা করেছে। সেই মামলার তদন্তের দায়িত্ব চেয়ে পুলিশ সদরদপ্তরে চিঠি দিয়েছে বাহিনীটি। পুলিশ সদরদপ্তর থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি গেলে মামলা তদন্তের অনুমতি দেবে মন্ত্রণালয়।

সোমবার র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন ঢাকাটাইমসকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

আল মঈন বলেন, সম্প্রতি আওয়ামী লীগের উপকমিটি থেকে বহিষ্কারের পর র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার হেলেনা জাহাঙ্গীর, শরফুল হাসান ওরফে মিশু হাসান, মাসুদুল ইসলাম জিসান, চিত্রনায়িকা পরীমনি, ম্যানেজার সবুজসহ গ্রেপ্তার প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ, পরীমনির কথিত মামা ও সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুর বিরুদ্ধে দায়ের করা ১০ মামলার তদন্ত দায়িত্বভার চেয়ে পুলিশ সদরদপ্তরে চিঠি দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে র‌্যাব এসব মামলার তদন্ত করবে।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বনানীতে আওয়ামী লীগের উপকমিটির সদস্যপদ হারানো এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক হেলেনা জাহাঙ্গীরের রাজধানীর গুলশানের বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদক উদ্ধার করে র‌্যাব। এসব মাদকের মধ্যে রয়েছে ১৭ বোতল বিদেশি মদ, বিপুল ইয়াবা, হরিণের চামড়া, ক্যাসিনো সরঞ্জাম, ওয়াকিটকি। এছাড়া মিরপুরে হেলেনার জয়যাত্রা টেলিভিশনে অভিযান চালানো হয়। পরে হেলেনার বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদী হয়ে তিনটি মামলা করে।

এদিকে ৩ আগস্ট রাতে রাজধানীর বারিধারায় অভিযান চালিয়ে মডেল পিয়াসা ও তার সহযোগী মৌ আক্তারের প্রধান সমন্বয়ক মিশু ও তার সহযোগী জিসানকে অস্ত্র, ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে র্যা ব বাদী হয়ে মোট চারটি মামলা করে। পরদিন রাজধানীর বনানীতে অভিযান চালিয়ে চলচ্চিত্র নায়িকা পরীমনি ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে মদ, ভয়ংকর মাদক এলএসডি ও আইস উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় র্যা ব বাদী হয়ে বনানী থানায় একটি মামলা করে।

একই দিন বনানীতে অভিযান চালিয়ে বিদেশি মদ, বিকৃত যৌনাচার সরঞ্জামসহ প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়। রাজের বিরুদ্ধেও দুটি মামলা করেছে র‌্যাব।

সূত্র : ঢাকাটাইমস
এম এউ, ০৯ আগস্ট

Back to top button