ঢালিউড

মায়ের খোঁজ নেন না নায়িকা পপি

ঢাকা, ০৮ আগস্ট – ঢাকাই সিনেমার এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিকা পারভিন পপি নাকি তার মায়ের কোনো খোঁজ-খবর নেন না। একটি ভিডিও বার্তায় এমনই অভিযোগ করেছেন তার মা মরিয়ম বেগম। তিনি জানান, খোঁজ-খবর তো দূরের কথা তার ভরণ-পোষণের দায়িত্বও পালন করেন না পপি।

ভিডিও বার্তায় অভিনেত্রীর মা বলেন, ‘পপি আমার সাথে থাকে না, আমিও পপির সাথে থাকি না। পপি কোথায় থাকে আমি জানি না। আমি কোথায় থাকি পপি জানে না। পপি বলে, আমাকে সে ভরণ-পোষণ দেয়। সব মিথ্যা। তার বাসায়ও আমি থাকি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘২০০৭ সালের পর থেকে পপি আমার সাথে থাকে না। আমি কোথায় আছি, সেটাও জানে না।’

পপির মায়ের এই বক্তব্যের মধ্যে কিছুটা গড়মিল লক্ষ্য করা যায়। কেননা ২০১৯ সালে পপির সুবাদে ‘গরবিনী মা সম্মাননা’ লাভ করেন মরিয়ম বেগম। সে সময় একসঙ্গে তাদের অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল।

এ বিষয়ে জানতে পপির ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে। তবে বিভিন্ন সময়ে পপি বলেছেন, তিনি তার মাকে ভীষণ ভালোবাসেন। মায়ের সহযোগিতাতেই তিনি সিনেমার নায়িকা হতে পেরেছেন, এতদূর এগোতে পেরেছেন।

এদিকে, বেশ কিছু দিন ধরেই একেবারে উধাও হয়ে আছেন পপি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, মোবাইল ফোন কিংবা সরাসরি, কোথাও তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। ঢালিউড পাড়ায় শোনা যায়, বিয়ে করে সংসারী হয়ে গেছেন পপি। রাজধানীর একটি ডিপ্লোমেটিক এলাকায় স্বামীর ফ্ল্যাটে বসবাস করেন তিনি। কিছুদিন আগে তার অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার গুঞ্জনও ছড়িয়েছিল।

উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডে পা রাখেন পপি। অবশ্য তার মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম সিনেমা ‘কুলি’। তুমুল জনপ্রিয় এই সিনেমার মাধ্যমে ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের অবস্থান পাকা করে ফেলেন তিনি। এরপর অসংখ্য সফল ও দর্শকপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করেছেন পপি। শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন এই অভিনেত্রী।

এম এউ, ০৮ আগস্ট

Back to top button