পশ্চিমবঙ্গ

১০ বছর ধরে উনি কী করেছেন? বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে মমতাকে তোপ দিলীপের

সায়নী জোয়ারদার

কলকাতা, ০৭ আগস্ট – দিল্লি থেকে ফিরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর গরম বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। দিলীপ ঘোষের কটাক্ষ, “নিজে ব্যর্থ হলেই তার দায় অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।” এই বিজেপি সাংসদের কথায়, কলকাতাকে প্লাবন থেকে বাঁচাতে পারেন না, অথচ ডিভিসিকে বছর বছর কাঠগড়ায় তোলেন এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। একই সঙ্গে দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, কেন্দ্রের পাঠানো কোটি কোটি টাকা কোথায় গিয়েছে তার কোনও হিসাব নেই।

শনিবারই দিল্লি সফর সেরে খড়গপুরে পৌঁছন দিলীপ ঘোষ। ট্রেনে হিজলিতে নামেন। জেলার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভ্যাস হয়ে গিয়েছে নিজে না পারলে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপানোর। ১০ বছর ধরে রাজ্যের ক্ষমতায় রয়েছেন উনি। তবু কলকাতাকে জলের হাত থেকে বাঁচাতে পারেননি। শুধু মিথ্যা কথা বলে যাচ্ছেন।”

দিলীপ ঘোষের কথায়, হাজার হাজার কোটি টাকা কেন্দ্র রাজ্যকে দিয়েছে। সেগুলির কোনও হিসাব নেই। ‘ওনার ভাইদের পেটে চলে গিয়েছে’। সম্প্রতি হাওড়ায় প্লাবিত এলাকা দেখতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, এই প্লাবন ‘ম্যান মেড’। ডিভিসির জল ছাড়ার কারণেই এই বিপত্তি বাংলার মানুষের। এদিন তারই পাল্টা দিলীপ ঘোষ বলেন, ডিভিসি রাজ্যের সঙ্গে কথা বলেই জল ছাড়ে। এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সামলাতে না পেরে কেন্দ্রের ঘাড়ে দোষ ঠেলছেন।

এ প্রসঙ্গে ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যান নিয়েও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সাংসদ দেবকে কটাক্ষ করেন দিলীপ ঘোষ। বলেন, “ওনার দিদি ১০ বছরের মুখ্যমন্ত্রী। উনি সাত বছর ধরে সাংসদ। তাও কিছু করেননি কেন? বন্যা হলেই ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কথা মনে পড়ে? মানুষ জলে ভাসবে বলেই কি ওনাকে ভোট দিয়েছিলেন? এখন বলছেন দিদি প্রধানমন্ত্রী হলে নাকি ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যান হবে! সাত মন তেলও পুড়বে, আর রাধাও নাচবে।” দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, “কপালেশ্বরী নদীর জন্য ২২৫ কোটি টাকা মানসবাবু (ভুঁইঞ্যা) দিল্লি থেকে নিয়েছিলেন। তিনি তখন সেচমন্ত্রী ছিলেন।” সে টাকা কোথায় গেল, এদিন সে প্রশ্নও তোলেন দিলীপ ঘোষ।

এন এইচ, ০৭ আগস্ট

Back to top button