Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.3/5 (12 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-১৪-২০১৭

'দেশে বিদেশে'র ফেসবুক পেজ-এর লাইক সংখ্যা ২৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে

'দেশে বিদেশে'র ফেসবুক পেজ-এর লাইক সংখ্যা ২৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে

টরন্টো, ১৪ মার্চ- বর্হিবিশ্বের প্রথম অনলাইন বাংলা পত্রিকা 'দেশে বিদেশে'র ফেসবুক পেজ এর 'লাইক' সংখ্যা ২৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ স্বীকৃত (ভেরিফাইড) এ পেজটিতে প্রতি মাসে যোগ দিচ্ছেন হাজার হাজার পাঠক। এছাড়া ফেসবুকে রয়েছে দেশে বিদেশে'র দুটো গ্রুপ যথাক্রমে 'দেশে বিদেশে ফ্যান গ্রুপ'  এবং 'দেশে বিদেশে রিডার্স গ্রুপ'। বর্তমানে গ্রুপ দু'টির একটিতে ৫৭ হাজার এবং অন্যটিতে ৩২ হাজারের অধিক সদস্য সংখ্যা রয়েছে। ফেসবুক ছাড়াও টুইটার, পিন্টারেষ্ট, লিঙ্কডইন, গুগল+ সহ জনপ্রিয় প্রায় সবগুলো সামাজিক গণমাধ্যমগুলোতে রয়েছে 'দেশে বিদেশে'র সরব উপস্থিতি। 'এখন আর আপনাকে খবর খুঁজতে হবে না, খবর এসে আপনার দরজায় কড়া নাড়বে।' এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সামাজিক গণমাধ্যমগুলোতে যাত্রা শুরু করে দেশে বিদেশে। পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ীদের ভালবাসায় এর অগ্রযাত্রা অব্যাহত আছে। 

প্রিয় পাঠক, আজকের এ সু-সংবাদটির অংশীদার আপনিও।

উল্লেখ্য, কানাডার প্রথম বাংলা পত্রিকা 'দেশে বিদেশে'র মুদ্রিত সংস্করণ প্রকাশিত হয় ১৯৯১ সালে। আন্তর্জালে যোগ দেয় ১৯৯৮ সালে। 
প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে পাঠকদের আগ্রহ এবং সুবিধাকে বরাবরই দেশে বিদেশে প্রাধাণ্য দিয়ে আসছে। এর ঊদাহরণ হলো- ব্যবহার বান্ধব বিশেষ মোবাইল সংস্করণ। আইওএস, এন্ড্রোয়েড এবং উইন্ডোজ এর জন্য ভিন্ন ভিন্ন অ্যাপ ইত্যাদি। কেবল আজকের পাঠকের কথা বিবেচনা করে নয়, 'দেশে বিদেশে' আগামীকালের পাঠকদের কথাও চিন্তা করে। বিশ্ব বাঙালির একটি আন্তঃসংযোগকারী বহুমুখি গণমাধ্যম হিসেবে 'দেশে বিদেশে' সকলের কাছে সমাদৃত। 

কানাডার বাংলা মিডিয়ার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস
কানাডার বাংলা গণমাধ্যমের ইতিহাস বেশিদিনের নয়। ১৯৯০ সালে 'বাংলার মুখ' টেলিজার্ণাল দিয়ে এর যাত্রা শুরু। কানাডার বাংলাভাষী কমিউনিটির প্রথম সংবাদ মাধ্যম। শ্র্রোতারা টেলিফোন ডায়াল করার মাধ্যমে সংবাদ শুনতে পেতেন। এরপর ১৯৯১ সালে 'দেশে বিদেশে'র আত্মপ্রকাশ। কানাডার প্রথম মুদ্রিত বাংলা পত্রিকা। ৪ পৃষ্ঠা থেকে ৬৪ পৃষ্ঠা; সাদাকালো থেকে রঙিন; একই সাথে দুই শহর (টরন্টো ও নিউইয়র্ক) থেকে প্রকাশ....। তারপর আরও আরও চমক! 
১৯৯৮ সালে বর্হিবিশ্বের প্রথম বাংলা অনলাইন পত্রিকা হিসেবে যাত্রা শুরু করে দেশে বিদেশে। এরপর একে একে মোবাইল ভার্সন, অ্যাপস, রেসপন্সিভ ডিজাইনসহ প্রযুক্তির নানান স্তরে বিচরণ শেষে ২০১৩ সালে ইন্টারেক্টিভ ডিজিটাল মিডিয়ায় এর উত্তরণ। ইতিমধ্যে লক্ষ লক্ষ পাঠকের পছন্দের 'দেশে বিদেশে পেজ'কে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ স্বীকৃতি (ভ্যারিফাইড) প্রদান করে। 

সর্বশেষ চমক ছিল ২০১৫ সালের ৬ জুন। এদিন টরন্টোতে হাসিখুশি ক্লাবের বার্ষিক অনুষ্ঠানে 'দেশে বিদেশে'র সম্পাদক নজরুল মিন্টো ২৪ ঘন্টার একটি পূর্ণাঙ্গ বাংলা টিভি চ্যানেল এর ঘোষণা দেন। এরপর গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬-তে দেশে বিদেশে'র ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মেট্টো টরন্টো কনভেনশন হল-এ আয়োজিত 'আনন্দ-উৎসব'-অনুষ্ঠানের বিশাল পর্দায় কানাডার প্রথম বাংলা টিভি চ্যানেল-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এর আগে ২৫ ডিসেম্বর ২০১৫ থেকে টিভি চ্যানেলটি পরীক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু করে। 

'দেশে বিদেশে টিভি'র শ্লোগান হচ্ছে 'শেকডের সাথে সংযোগ'। বর্হিবিশ্বে বসবাসকারী বাঙালি বংশদ্ভূত নতুন প্রজন্মের কর্মকাণ্ডকে প্রাধাণ্য দেয়ার লক্ষ্য নিয়েই এ টিভি চ্যানেলের যাত্রা শুরু।  

'দেশে বিদেশে টিভি' অ্যাডভান্স টেকনোলজি ব্যবহারের মাধ্যমে দর্শকদের একের পর এক চমক দিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় এর বলিষ্ঠ উপস্থিতি। যার মাধ্যমে আগ্রহীরা  বিভিন্ন সময় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বার্তা পাচ্ছেন এবং ইচ্ছে করলে হাতে থাকা যে কোন স্মার্ট ডিভাইসের মাধ্যমে লগইন করতে পারেন। ইতিমধ্যে 'দেশে বিদেশে টিভি'র ফেসবুক পেজ (https://www.facebook.com/deshebideshe.tv/)-এর ভক্ত সংখ্যা ৩২,০০০ ছাড়িয়ে গেছে।

মিডিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে