Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.1/5 (35 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-২৯-২০১২

বগুড়ায় র‌্যব কর্মকর্তার অপসারণ চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি

বগুড়ায় র‌্যব কর্মকর্তার অপসারণ চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি
বগুড়া শহর যুবলীগ নেতা আব্দুল মতিনকে র‌্যাব-১২ বগুড়া অফিসের সদস্যরা গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে এমন অভিযোগ এনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা ও শহর যুবলীগের নেতাকর্মীরা।  
মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে বগুড়ার জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আনওয়ার হোসেন এই স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।  
শহর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক উদয় কুমার বর্মন স্মারকলিপিতে বলা হয়, বগুড়ার র‌্যাব কর্মকর্তা সুমিত চৌধুরী নিজের হীন স্বার্থ লাভের জন্য ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে একের পর এক যুবলীগনেতাদের গ্রেফতার করে নির্যাতন করে যাচ্ছে। বগুড়ায় যুবলীগ সাংগঠনিকভাবে অত্যন্ত শক্তিশালী। সেই সাংগঠনিক ভীত দূর্বল বিএনপি-জামায়াতের এজেন্ট হিসেবে কাজ করার অংশ হিসেবে মতিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
যুবলীগনেতা মতিনকে পরিকল্পিতভাবে গ্রেফতার ও নির্যাতন করার বিষয়ে সুষ্ঠ তদন্ত পূর্বক দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানানো হয় এতে।  
স্মারকলিপিতে আরও উল্লৈখ করা হয়, ঘটনার দিন র‌্যাবের উপ অধিনায়ক সুমিত চৌধুরী মতিনের বাসায় ঢুকে তার আলমারিতে রক্ষিত ১৯ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। পরে মিথ্যা জুয়ার আসরের নাটক সাজিয়ে মাত্র ১০ লাখ ৬০ হাজার ৬ শত ২০ টাকা উদ্ধার দেখিয়ে মতিনের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার মামলা দায়ের করেন।   
এর আগে জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, যুবলীগ নেতা মতিনকে নিঃশর্ত মুক্তি না দিলে এবং র‌্যাব কর্মকর্তা সুমিত চৌধুরীকে অপসারণ করা না হলে ১ সেপ্টেম্বর সাতমাথায় অবস্থান ধর্মঘটসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।
স্মারকলিপি প্রদানকালে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন- বগুড়া শহর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক উদয় কুমার বর্মণ, জেলা যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক সাগর কুমার রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল মোর্শেদ আপেল, যুবলীগ নেতা আমিনুল ইসলাম ডাবলু, শুভাশীষ পোদ্দার লিটন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাশরাফি হিরো, যুবলীগ নেতা রবিউল ইসলাম লিটন প্রমুখ।
গত ২৫ আগস্ট জেলার  যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা র‌্যাব-১২ বগুড়ার স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র এ.এস.পি সুমিত চৌধুরীসহ গ্রেফতার অভিযানে অংশ নেওয়া অন্য র‌্যাব সদস্যদের অপসারণ দাবি করেন।   
উল্লেখ্য, র‌্যাব-১২ স্পেশাল কোম্পানি বগুড়ার স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র এএসপি সুমিত চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি অভিযান দল বৃহস্পতিবার দিনগত রাত সোয়া ২ টার দিকে তাকে বাড়ির পাশে চকসূত্রাপুর চামড়া গুদাম এলাকায় নিজস্ব ব্যাবসায়ীক কার্যালয় থেকে হিরোইন, ফেন্সিডিল, বিয়ার, বিদেশি টাকা ও ধারালো অস্ত্রসহ শীর্ষ সন্ত্রাসী যুবলীগ নেতা আব্দুল মতিন ওরফে পিস্তল মতিনকে (৩৭) আটক করে র‌্যাব।
পরে ২৪ আগস্ট বিকেলে র‌্যাব বাদী হয়ে দণ্ডবিধির ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মতিনের বিরুদ্ধে একটি মামলা (নম্বরঃ ৪৯/তারিখঃ ২৪-০৮-২০১২) করলে পুলিশ ঐ  মামলায় মতিনকে গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে জেল হাজতে পাঠায়।

বগুড়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে