Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৯-১০-২০১৬

যে স্বাস্থ্যবিধিগুলো শিশুকে শেখানো উচিৎ ছোটকাল থেকেই

সাবেরা খাতুন


যে স্বাস্থ্যবিধিগুলো শিশুকে শেখানো উচিৎ ছোটকাল থেকেই

ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা প্রতিটা মানুষের সুস্থতার জন্য অপরিহার্য। সংক্রমণ জনিত বিভিন্ন প্রকারের রোগ ব্যধি থেকে মুক্ত থাকার জন্য শিশুকে স্বাস্থ্যবিধি শেখানো উচিৎ বাবা মায়ের। শিশুরা খুব দ্রুত শিখতে পারে। তাই ছোটকাল থেকেই স্বাস্থ্যবিধির নিয়মগুলো শিশুদের শেখালে তারা তা আত্মস্থ করতে পারে এবং এই ভালো অভ্যাস তারা সারা জীবনে মেনে চলতে পারে। যে স্বাস্থ্যবিধিগুলো শিশুকে শেখানো উচিৎ ছোটকাল থেকেই যে বিষয়ে জেনে নিই চলুন।

১। মৌখিক স্বাস্থ্যবিধি
প্রতিটা শিশুরই প্রতিদিনের রুটিনের অংশ হওয়া উচিৎ মৌখিক স্বাস্থ্যবিধির অনুশীলন করা। আসলে শিশুর প্রথম দাঁত উঠার সময় থেকেই পিতামাতার উচিৎ শিশুর মৌখিক স্বাস্থ্যের যত্ন নেয়া। শিশুর দাঁত ও মাড়ি পরিষ্কার রাখার মাধ্যমে নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ, দাঁতের ক্ষয় এবং শিশুর পরবর্তী জীবনে হৃদরোগের মত স্বাস্থ্য সমস্যাও প্রতিরোধ করা যায়। শিশুকে সঠিকভাবে দাঁত ব্রাশ করতে ও ফ্লস করতে শেখাতে হবে। প্রায় ২ মিনিট সময় নিয়ে দাঁত ব্রাশ করা ভালো, ঘুমাতে যাওয়ার আগে ও ঘুম থেকে জেগে দাঁত ব্রাশ করতে হয়, খাওয়ার পরে কুলকুঁচি করতে হয় ইত্যাদি বিষয়গুলো শেখান আপনার শিশু সন্তানকে।

২। নখের স্বাস্থ্যবিধি
সুস্থ থাকার জন্য নখের যত্ন নেয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তাই আপনার শিশুকে ছোটবেলা থেকেই নখের যত্ন নিতে শেখান। অপরিস্কার নখ ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন ক্ষেত্র হতে পারে। নখের ব্যাকটেরিয়া খুব সহজেই শিশুর চোখ, নাক ও মুখে প্রবেশ করে শিশুকে অসুস্থ করে তুলতে পারে। প্রতি সপ্তাহে একবার শিশুর নখ কেটে দিন। গোসলের পরে নখ কাটলে নখ নরম থাকে বলে কাটতে সুবিধা হয়, নেইল ফাইলার দিয়ে নখের খাঁজগুলোকে মসৃণ করা যায় এবং কখনোই নখের কিউটিকেল কাটা উচিৎ নয় কারণ এটি নখকে সুরক্ষা দেয় ইত্যাদি বিষয়গুলো শেখান আপনার সন্তানকে।

৩। স্নানের রীতিনীতি
কোন শিশু গোসল করতে পছন্দ করে আবার কোন শিশু গোসল করাকে অপছন্দ করে। কিন্তু সুস্থ থাকার জন্য গোসল করা অপরিহার্য একটি কাজ। তাই এই বিষয়টিতে শিশুকে অভ্যস্ত করে তুলতে হবে শিশুকাল থেকেই। আমাদের শরীরের সবচেয়ে বড় অঙ্গ হচ্ছে ত্বক যা বাহিরের ধুলাবালি, ময়লা ও জীবাণু থেকে আমাদের শরীরকে সুরক্ষা দেয়। নিয়মিত গোসলের মাধ্যমে ত্বক পরিষ্কার থাকে এবং সুস্থ ও সুন্দর থাকা যায়। খুব ছোট শিশুদের গোসল করিয়ে দিতে হয় এবং কখনোই শিশুকে বাথরুমে একা রেখে আসবেন না। শিশু যখন একটু বড় হবে তখন তাকে নিজে নিজেই গোসল করতে শেখান তবে এসময় তার সামনে থেকে সঠিক ভাবে গোসল করতে শেখাতে হবে। গোসলের সময় শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ পরিষ্কার করা, গোসলের পরে শরীর মোছা এবং ময়েশ্চারাইজার লাগানো শেখান।

এছাড়াও খাওয়ার আগে ও টয়লেট থেকে ফিরে শিশু যেন ভালো ভাবে হাত ধোয়, হাঁচি বা কাশি দেয়ার সময় রুমাল বা টিস্যু দিয়ে মুখ ঢেকে নেয়া, জামা-কাপড়, বইখাতা ও খেলনা গুছিয়ে রাখা ইত্যাদি কাজগুলো শিশুকে আস্তে আস্তে শেখানো উচিৎ।

লিখেছেন– সাবেরা খাতুন

এফ/১৫:৫৭/১০ সেপ্টেম্বর 

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে