Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৯-০৪-২০১৬

কাসেমের ফাঁসি: পাকিস্তানের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণে ক্ষোভ

কাসেমের ফাঁসি: পাকিস্তানের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণে ক্ষোভ

ঢাকা, ০৪ সেপ্টেম্বর- একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে পাকিস্তান ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেই চলছে। জামায়াত নেতাদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর প্রতিবারই তারা বিবৃতি দিয়েছে। বার বার সতর্ক করা সত্ত্বেও এবারও মীর কাসেমের ফাঁসির পর দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণায় একটি বিবৃতি দিয়েছে। এ ঘটনায় পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পাকিস্তানের এরকম বিবৃতিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অনেকেই।

এর আগে যুদ্ধাপরাধে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া মতিউর রহমান নিজামীকে ‘পাকিস্তানপ্রেমী’ বলেছিল দেশটি। পাকিস্তান সরকার ও জামায়াতে ইসলামীসহ বিভিন্ন দল মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের হোতা নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের নিন্দা জানায়।

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহমান মো. মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লা ও মো. কামারুজ্জামানের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময়ও একই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তান।

বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের ফাঁসি নিয়ে পাকিস্তান সরকারের প্রতিক্রিয়ার কড়া প্রতিবাদ জানায় বাংলাদেশ।

ওই সময় মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাকিস্তানের বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘এরা এর আগেও এ ধরনের ঔদ্ধত্য দেখিয়েছিলো। এর কড়া প্রতিবাদ জানাতে হবে। ভালো করে ছবক দিতে হবে।’

এরপর ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানের হাই কমিশনার সুজা আলমকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানায় বাংলাদেশের সরকার।

পাকিস্তান হাইকমিশনারকে বলা হয়, ‘এটি বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ বিচার নিয়ে মন্তব্য করা নাক গলানোর শামিল। এটা দুঃখজনক। ’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহরিয়ার কবির জানান, ‘পাকিস্তান বরাবরই ধৃষ্টতা দেখিয়ে আসছে। ওই দেশের বিচার করা উচিত। এটা কিন্তু করার সুযোগ আছে। সেই সুযোগ আমাদের নিতে হবে। তাহলেই তারা আর ধৃষ্টতা দেখাবে না।’   

জানতে চাইলে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজ বলেন, ‘এ বিষয়ে পাকিস্তানকে সতর্ক করা উচিত। তারা ধৃষ্টতার সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে।’

মীর কাসেমের রায় কার্যকরের পর পাকিস্তানের প্রতিক্রিয়ায় তাদের অপরাধ আবারও প্রমাণিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মণি।

রবিবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গঠনতন্ত্র উপ-কমিটির বৈঠক শেষে সাংবিাদিকদেরে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান যুদ্ধাপরাধীদের রায়ে প্রতিক্রিয়া দেখাবে এটা একটা স্বাভাবিক কারণ। এর আগেও তারা অন্যান্য যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় কার্যরকরের সময় প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছিল। এ ধরনের প্রতিক্রিয়া ন্যাক্কারজনক।’

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের এমন প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে আরও বেশি ষ্পষ্ট হয় যে এরা যুদ্ধাপরাধ করেছে। তারা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর পক্ষে বাংলাদেশি নিরহ জনগণের বিরুদ্ধে যে যুদ্ধাপরাধ করেছে আদালতে তো প্রমাণিত হয়েছে।’

কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘যাদের ফাঁসি দেয়া হচ্ছে তাদের এখনো নিজেদের লোক মনে করে পাকিস্তান। তাই নিজেদের লোক সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া দেখায় দেশটি।’

উল্লেখ্য, যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর ফাঁসির রায় কার্যকরের পর প্রতিক্রিয়া জানায় পাকিস্তান। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ রায় ত্রুটিপূর্ণ উল্লেখ করে মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরে গভীর মর্মাহত এবং কাসেম আলীর পরিবারে প্রতি সমবেদনা জানানো হয়।

আর/১০:১৪/০৪ সেপ্টেম্বর 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে