Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৯-০৩-২০১৬

ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে গণপূর্তমন্ত্রী : বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে প্রবাসেও ঐক্য চাই

ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে গণপূর্তমন্ত্রী : বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে প্রবাসেও ঐক্য চাই

ওয়াশিংটন, ০৩ সেপ্টেম্বর- ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এই এগিয়ে চলার পথ ত্বরান্বিত করতে প্রবাসীদের অকুন্ঠ সমর্থন আরো জোরদার করতে হবে। আর এজন্যেই প্রয়োজন সকল বাঙালির ইস্পাত দৃঢ় ঐক্য। ‘ফোবানা’ সে প্রেরণা জোগাচ্ছে’-এ অভিমত পোষণ করেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন। মন্ত্রী বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে আর্টিজান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পর গোটা দেশকে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ করার ক্ষেত্রে অবিস্মরণীয় ভ’মিকা রেখেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। তাঁর এ নেতৃত্বকে অভিনন্দিত করতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরী ছুটে যান ঢাকায়। হাতে হাত রেখে কেরী দৃপ্ত প্রত্যয়ে ঘোষণা করেছেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বাঙালির ঐক্যকে বিস্তৃত করতে হবে গোটাবিশ্বে। আর এভাবেই বাংলাদেশ আজ নানা ক্ষেত্রে মডেলে পরিণত হচ্ছে’। 

এ সময় গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ এগিয়ে চলার বেশ কিছু কার্যক্রম উপস্থাপন করেন গণপূর্ত মন্ত্রী। ‘বাংলাদেশে আরো ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ৩০ হাজার একর জমিতে এগুলো স্থাপনের পর প্রবাসীদের বিনিয়োগের দীগন্ত আরো প্রসারিত হবে’-বলেন মন্ত্রী। তিনি প্রবাসী বাঙালিদের দেশপ্রেমের ভ’য়সী প্রশংসা করে বলেন, ‘হাজার বছরের ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ বাঙালি কৃষ্টি ও কালচার সুদূর এ প্রসাসেও সমুন্নত রাখতে আপনাদের আন্তরিক প্রয়াসকে আমি স্যালুট জানাতে এসেছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে।’

উত্তর আমেরিকায় প্রবাসী বাঙালিদের মহামিলনমেলা হিসেবে পরিচিত ‘ফোবানা’ ফেডারেশন অব বাংলাদেশী এসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা’র ৩দিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধন করেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন। ২ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে এ সম্মেলন শুরু হয়েছে রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি সংলগ্ন আর্লিংটনের শেরাটন পেন্টাগণ সিটি হোটেলের বলরুমে। ৩০ বছর আগে এই ওয়াশিংটন ডিসি থেকেই ফোবানার যাত্রা শুরু হয়। শুরুর সময়ের আহবায়ক সাংবাদিক ইকবাল বাহার চৌধুরী তার স্মৃতিচারণকালে বলেন, ‘বিশ্বব্যাংকের মিলনায়তনে হয় প্রথম সম্মেলন। ৩০ বছরে ফোবানার যে অগ্রগতিসাধিত হয়েছে, একইতালে বাংলাদেশও অনেক এগিয়েছে। বাংলাদেশের এগিয়ে চলার পথকে আরো জোরদারের জন্যে প্রবাসীদের ঐক্যের বিকল্প নেই। আর সেই ঐক্যের অন্যতম অবলম্বন হচ্ছে ‘ফোবানা।’

সম্মেলনের হোস্ট কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘বলতে দ্বিধা নেই, ফোবানায় বিভক্তির যে অপবাদ ছিল, এবার সেটি নেই। এই সম্মেলনে কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় ৫০ সংগঠনের শিল্পী আর কলাকুশলীরা এসেছেন। নতুন প্রজন্মের সংখ্যাও অনেক। অর্থাৎ বাঙালি কালচার প্রবাস প্রজন্মে বিস্তৃত করার যে স্বপ্ন ছিল, তা আজ বাস্তবে পরিণত হয়েছে।’

ফোবানার শুরু থেকে আজ অবধি নেতৃত্ব প্রদানকারি ইকবাল বাহার চৌধুরী, ড. নূরন্নবী, ওয়াহেদ হোসেনী, সোলায়মান আলী, সুলতান আহমদ, জাহানারা আলী, মীর চৌধুরী, মাহাবুব রেজা রহিম, জাকারিয়া চৌধুরী, নাহিদ চৌধুরী মামুন, আজাদুল হক, ডিউক খান, রেহান রেজা, রবিউল করিম বেলাল, এম রহমান জহির, জসীমউদ্দিন, হাসমত মবিন, এম মাওলা দিলু প্রমুখ মঞ্চে উঠে মঙ্গল প্রদীপ জ্বালানোর পর সম্মেলনের প্রধান অতিথি ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন বিপুল করতালির মধ্যে ফিতা কেটে সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এর আগে বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সকলে দাঁড়িয়ে এক নিরবতা পালন করেন। এরপর মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি জাগানিয়া সঙ্গীত পরিবেশন করে নতুন প্রজন্মের শিল্পীরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের উপ-প্রধান মাহবুব হাসান সালেহ, ফোবানার চেয়ারম্যান নাহিদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর, নির্বাহী সচিব আজাদুল হক প্রমুখ।

ফোবানার ৩ দশক পূর্তির এ উৎসব আনুষ্ঠানিকভাবে শুরুর আগে বিশিষ্টজনদের সৌজন্যে এক ডিনার পার্টিতে প্রবাসে বাঙালিদের এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে অবিস্মরনীয় ভূমিকার জন্যে বেশ কয়েকটি সংগঠন ও ব্যক্তিকে ক্রেস্ট প্রদান করেন গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন। ক্রেস্ট প্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন পিপল এ্যান্ড টেকের প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আবু হানিফ, লেখক-অর্থনীতিবিদ ড. ফাইজুল ইসলাম ও ইনারা ইসলাম, উৎসব ডটকমের রায়হান।

বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসি’র আয়োজনে ‘ফোবানা-ওয়াশিংটনে বাংলা আর বাঙালির মুখ’ স্লোগানে এই সম্মেলনে বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করবেন। এছাড়াও রয়েছে বিষয়ভিত্তিক বেশকিছু সেমিনার। মার্কিন কংগ্রেসের ডজনখানেক সদস্য ছাড়াও স্টেট ডিপার্টমেন্টের পদস্থ কর্মকর্তারা আসবেন শুভেচ্ছা জানাতে।

আর/১৭:১৪/০৩ সেপ্টেম্বর 

যূক্তরাষ্ট্র

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে