Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৯-০১-২০১৬

কথা বলতে পারছেন না শাহজাহান সিরাজ

কথা বলতে পারছেন না শাহজাহান সিরাজ

ঢাকা, ০১ সেপ্টেম্বর- বিএনপির সাবেক মন্ত্রী এবং মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা শাহজাহান সিরাজ গুরুতর অসুস্থ।

দীর্ঘ দিন ধরে তিনি ক্যান্সার ও মস্তিস্কে নানা জটিলতার ভুগছেন। তাঁর সহধর্মিণী রাবেয়া সিরাজ বলেছেন, হঠাৎ করেই তিনি কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছেন। গত দুই বছর ধরেই মুখে খাবার খেতে পারছেন না। আপাতত তিনি বাসায়ই রয়েছেন। তবে ভিসা নেয়া হলেও তাকে থাইল্যান্ডে নেয়ার সাহস পাচ্ছি না এই অবস্থায়।

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী এই রাজনীতিক ২০১২ সালে চোখের চিকিৎসার জন্য ভারতে যাওয়ার পর পরীক্ষা-নীরিক্ষায় তাঁর শরীরে দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যানসার ধরা পড়ে। এরপর সেখান থেকেই তাঁকে নেয়া হয় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথে।

সেখানে তাঁর ফুসফুসের টিউমার অপসারণ করা হয়। চার দফা দেয়া হয় কেমোথেরাপি। কিছুটা সুস্থ হলে দেশে ফিরে আসেন।

রাবেয়া সিরাজ জানান, ২০১৪ সালের শেষের দিকে হঠাৎ চুপচাপ হয়ে যান তিনি। ঐ সময় থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার মাথায় টিউমার ধরা পড়ে। কিন্তু আগে থেকেই তার ডায়াবেটিস, কিডনিসহ নানা জটিল রোগ থাকায় মাথায় অস্ত্রোপচার করা যায়নি। পরে চিকিৎসকরা ওষুধের মাধ্যমে টিউমারটি অপসারণের পরামর্শ দেন।

কিছুদিন পর তার শারীরিক অবস্থা হঠাৎ খারাপ হয়ে পড়ে। দ্রুত তাকে এ্যাপোলো হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা জানান, তিনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত। এছাড়া খাবার তার খাদ্য নালীর পরিবর্তে কণ্ঠনালী দিয়ে ফুসফুসে ঢুকে যায়। তাই মুখের পরিবর্তে তার পেটে টিউব লাগিয়ে তরল খাবার খাওয়ানোর পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী তার পেটে লাগানো হয় টিউব। এরপর থেকে মুখ দিয়ে কোনো খাবার খাননি। ওই টিউব দিয়ে তরল খাবার খাওয়ানো হয়।

১৯৪৩ সালে টাঙ্গাইলে জন্মগ্রহণ করা শাজাহান সিরাজ। ছাত্রলীগের রাজনীতির মধ্য দিয়ে উঠে আসার এই কিংবদন্তি ‘স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী পরিষদ’ (নিউক্লিয়াস) সক্রিয় কর্মী, ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা ও সশস্ত্র যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ‘বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স’ (বিএলএফ) বা মুজিব বাহিনীর কমান্ডার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে স্বাধীনতা উত্তর কালে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ গঠন ও জাসদের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন।

তিনবার মন্ত্রিত্বের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪ সালে বিএনপিতে যোগ দেয়ার পর প্রথমে নৌ পরিবহনমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। ২০০১ সালে ফের চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় এলে তাকে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে পাটমন্ত্রীর দায়িত্ব পান তিনি। ওয়ান-ইলেভেনে সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে দেশের বাইরে ছিলেন তিনি। দেশে ফিরে রাজনীতিতে নিস্ক্রিয় হয়ে পড়েন। অলিখিত অবসর নেন বিএনপির রাজনীতি থেকে।

আর/১০:১৪/০১ সেপ্টেম্বর 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে