Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-২৬-২০১৬

‘ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ’

‘ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ’

ঢাকা, ২৬ আগষ্ট- ওয়ানডে ক্রিকেটে এখন তরুণ বলা চলে টাইগার ক্রিকেট দলকে। ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়ার পর প্রায় ১৮ বছর কেটে গেছে বাংলাদেশের। টাইগাররা শুরুর দিকটায় বারবার হোঁচট খেলেও, সময়ের সাথে সাথে এখন তারা অনেক পরিণত একটি দল। গত কয়েক বছরে উন্নতির গ্রাফটা আকাশে ছড়িয়েছে। বর্তমান প্রজন্মকে তাই বাংলাদেশ ক্রিকেটের স্বর্ণযুগ বলেও দাবি করেন অনেকে।

দ্বিমত পোষনের কোন সুযোগ নেই যে প্রকৃতপক্ষেই একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেদের সেরা সময়টা কাটাচ্ছে বাংলাদেশ। তবে আজকেই এই যে উন্নতি, সেজন্য পূর্বসূরীদের চেষ্টা ও আত্মত্যাগকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের ‘প্রথম সুপারস্টার’ হিসেবে স্বীকৃত ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আশরাফুল।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে আশরাফুল বলেন, ‘আমরা এখন দারুণ একটি দল। তবে উন্নতির শুরুটা কিন্তু অনেক আগে থেকেই শুরু হয়েছিল। আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন যাদের দেখে ক্রিকেট খেলা শুরু করেছি তাদের কথা অবশ্যই বলতে হবে। আবার এখনকার ক্রিকেটারদের দেখে ভবিষ্যতে অনেকে ক্রিকেট খেলায় আসবে। এভাবে সকলের মিলিত প্রচেষ্টায়ই আজ আমাদের এই অবস্থান।’

একটা কথা তো সত্য যে বিগত প্রজন্ম যা পারেনি, আজকের সাকিব-তামিমরা সেটাই অনায়াসে করে দেখাচ্ছেন। তাহলে সাবেক ক্রিকেটারদের মধ্যে কি প্রতিভার কোন খামতি ছিল? আশরাফুল মোটেই তা মনে করেন না। ‘প্রতিভা আমাদের দেশে সবসময়ই ছিল। আমাদের আগের প্রজন্মও প্রতিভার দিক থেকে কোন অংশে পিছিয়ে ছিল না। কিন্তু তফাতটা আসলে দৃষ্টিভঙ্গিতে। আজকের ক্রিকেটাররা অনেক সিরিয়াস, অনেক হার্ড ওয়ার্ক করে। এটাই মূলত সাফল্যের মূল চাবিকাঠি। আজকের ক্রিকেটাররা যেমন অনেক সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে, তেমনি সেগুলো কাজেও লাগাচ্ছে।’

বাংলাদেশ দলের বর্তমান সাফল্যের কৃতিত্ব প্রধান কোচ চান্ডিকা হাথুরুসিংহকেও দিলেন আশরাফুল। তার মতে, এই শ্রীলংকানের কল্যানেই মানসিকভাবে পূর্বের যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি আক্রমনাত্বক ও ইতিবাচক হয়েছে এদেশের ব্যাটসম্যানরা।‘হাথুরুসিংহকে অবশ্যই ক্রেডিট দিতে হবে। তিনি ব্যাটসম্যানদের মেন্টালিটি চেঞ্জ করে দিয়েছেন। ব্যাটসম্যানদের ফ্রিলি খেলার সুযোগও তিনি করে দিয়েছেন। তাই আজকের ব্যাটসম্যানরা মাঠে নেমে নিজেদের ন্যাচারাল গেমটা খেলতে পারছে। এর ফলে তারা সাফল্যও পাচ্ছে। আর এই সবকিছু মিলিয়েই আজকে আমাদের এত উন্নতি।’

গত দেড় বছরে একে একে অনেক সাফল্য যোগ হয়েছে টাইগারদের ঝুলিতে। ঘরের মাঠে পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ আর ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজ হারিয়েছে টাইগাররা। তবে বিশ্বকাপ ২০১৫ এর কোয়ার্টারফাইনালে ওঠাকেই সবচেয়ে বড় অর্জন মনে করেন আশরাফুল। পাশাপাশি তার বিশ্বাস ভবিষ্যতে বিশ্বমঞ্চে আরও ভাল করার যোগ্যতা রয়েছে বাংলাদেশের। কিন্তু সেজন্য বিসিবিকে আরও অনেক আন্তরিক হতে হবে, পাশাপাশি বিভিন্ন উদ্যোগও নিতে হবে বলে মত আশরাফুলের।

বাংলাদেশ জাতীয় দলের এই সাবেক অধিনায়ক মনে করেন, এখন থেকেই যদি প্রস্তুতি শুরু করা যায় সেক্ষেত্রে আগামী বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠাও কোন অসম্ভব ব্যাপার হবে না। তবে আশরাফুল যেসব প্রস্তুতি গ্রহণের কথা বললেন, সেগুলো কেমন হওয়া উচিৎ? এ ব্যাপারেও আশরাফুল নিজেই উপায় বাতলে দিলেন।

‘আমাদের পরবর্তী বিশ্বকাপ খেলতে হবে ইংল্যান্ডের মাটিতে। ইংল্যান্ডের কন্ডিশন কিন্তু আমাদের এখানকার কন্ডিশনের তুলনায় সম্পূর্ণ আলাদা। তাই চাইলেই সেখানে গিয়ে কাঙ্ক্ষিত অর্জন সম্ভব না। প্রস্তুতিটা শুরু করতে হবে এখন থেকেই। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের সাথে খাপ খাওয়ানোটা সবচেয়ে বেশি জরুরি। এজন্য ইংল্যান্ড সফরের কোন বিকল্প নেই। জাতীয় দলের যেমন ইংল্যান্ড সফরে যাওয়া উচিৎ, তেমনি বয়সভিত্তিক দলগুলো যেমন অনূর্ধ্ব ১৯ কিংবা ‘এ’ দলকে ইংল্যান্ড সফরে পাঠানো উচিৎ। গত বিশ্বকাপে আমরা কোয়ার্টারফাইনালে খেলেছি। তাই আমাদের নেক্সট টার্গেট আরও বড় হওয়া উচিৎ। সেমিফাইনালে খেলার লক্ষ্য তো থাকবেই, এমনকি ফাইনালেও খেলার আশা করা যায়।’

উল্লেখ্য, স্পট ফিক্সিং এর দায়ে তিন বছর নিষেধাজ্ঞা কাটানোর পর এ বছরই ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরতে যাচ্ছেন আশরাফুল। ইতিমধ্যেই আগস্টের ১৩ তারিখ তার উপর থেকে আংশিক নিষেধাজ্ঞা উঠে গেছে। তবে পুরো নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ করে জাতীয় দল ও বিপিএলের মত ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্টের জন্য বিবেচিত হতে আরও বছর দুয়েক অপেক্ষা করতে হবে আশরাফুলকে। পূর্নাঙ্গ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আদৌ আর জাতীয় দলে ফেরা হবে কিনা তা সময়ই বলে দেবে।

আর/১০০:১৪/২৬ আগষ্ট

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে