Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-২৫-২০১৬

বাংলাদেশ চা উৎপাদনে ১৬২ বছরের রেকর্ড ভাঙছে  

বাংলাদেশ চা উৎপাদনে ১৬২ বছরের রেকর্ড ভাঙছে  

সিলেট, ২৫ আগষ্ট- বাংলাদেশে চা একটি বৃহৎ শিল্প। আগামী ২০ বছরে এই শিল্প আরো বড় হবে। চা শিল্পের উন্নয়নে সরকারের আন্তরিকতা রয়েছে। এছাড়া চলতি বছর চা উৎপাদনে রেকর্ড সৃষ্টি হবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম এনডিসি পিএসসি।

দেশের চা শিল্প নিয়ে পরিকল্পনা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের চা শিল্পকে আমরা প্রসারিত করতে চাই। চা বাগানের প্রতিটি ইঞ্চি মাটি আমরা কাজে লাগানোর চেষ্টা করছি। কোনো এক সময় চা বোর্ড থেকে বলা হয়েছিল, যেসব জায়গায় চা চাষ সম্ভব নয় সেখানে রাবার চাষ করার জন্য। পরে চা বোর্ডের রিসার্চে বের হলো- চা বাগানে রাবার চাষ করাটা ঠিক নয়। সেজন্য আমরা এখন এটা বন্ধ করে দিয়েছি। যে জায়গায় চা হবে না সেখানে অন্য ফসল লাগাতে হবে।

তিনি বলেন, চা শিল্পের উন্নয়নের একটি পরিকল্পনা তৈরি করেছি। সেই পরিকল্পনাটি মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছি। সেটা পরিকল্পনা কমিশন পর্যন্ত গেছে। তারা কিছু অবজারভেশন দিয়ে চা বোর্ডে পাঠিয়েছেন। আশা করছি দ্রুত সেটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চা বোর্ডের প্রথম বাঙালি চেয়ারম্যান। ১৯৭২ সালে ভারত থেকে ২৯ কোটি টাকা নিয়ে যন্ত্রপাতি এনেছিলেন। সহজ শর্তে মেশিনারিজ, ঋণ দিয়েছিলেন চা শিল্পের মালিকদের। এছাড়া চা শ্রমিকদের বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দিয়ে ভোটের অধিকার দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু।

চা শিল্পের উন্নয়নে সরকারের আন্তরিকার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এই চা শিল্পের উন্নয়নের জন্য কৃষি ব্যাংক থেকে ১০০ কোটি টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে বাগান মালিকদের। সরকার এতো আন্তরিক এই শিল্পের উন্নতির জন্য।

চায়ের উৎপাদন বাড়ানোর বিষয়ে তিনি বলেন, এর আগে চায়ের উৎপাদন ছিল ২৫ মিলিয়ন কেজি। সেখান থেকে আমরা বাড়িয়ে গত বছর চায়ের উৎপাদন ছিল ৬৮.৩৮ মিলিয়ন কেজি চা। চলতি মওসুমে রেকর্ড পরিমাণ চা উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবার চা শিল্পের ১৬২ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ চা উৎপাদন হবে। এ বছর দেশে ৭০ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদন হবে, যা সর্বকালের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে।

শ্রীমঙ্গলে চায়ের নিলাম কেন্দ্র করার পরিকল্পনার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ১৯৪৮ সাল থেকে চট্টগ্রামে চা নিলাম হচ্ছে। তাই এই বিষয়ে শ্রীমঙ্গলে চা নিলাম কেন্দ্র তৈরি করার চিন্তা করছি। এছাড়া পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও নীলফামারীর চা বাগানগুলোতে এ বছর ৫ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদন হবে। আগামী পাঁচ বছরে হয়তো সেখানে ২০ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদন হবে। সেজন্য পঞ্চগড়ে চায়ের নিলাম কেন্দ্র করার চিন্তাভাবনা রয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের চা শিল্প বড়। আগামী ২০ বছরের মধ্যে এ শিল্প আর বড় হবে। তিনি বলেন, অনলাইনে চা বিক্রির চিন্তাভাবনা রয়েছে। যাতে বায়াররা ঢাকায় বসে চায়ের অর্ডার দিতে পারেন। আমার এই ট্রেডের গতিশীলতা আনতে আমি চেষ্টা করছি।

চোরাইপথে চা বিক্রি বন্ধ করার প্রসঙ্গে চা বোর্ডের এই চেয়ারম্যান বলেন, এটা বন্ধ করতে গত বছর আমি পুরস্কার ঘোষণা করেছি। কোথাও কেউ চোরাইপথে চা বিক্রি করলে আমাকে গোপনে জানাবেন। সরাইলে চেকপোস্ট বসিয়ে আমি ট্রাক চেক করেছি। এই অঞ্চলের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেয়া আছে। চায়ের চালান আসল কি নকল সেটা জানানোর জন্য। চা শিল্পের প্রতিটা ক্ষেত্রে খুচরা বিক্রেতা, মজুদকারী প্রত্যেকের লাইসেন্স থাকতে হবে। লাইসেন্স ছাড়া চায়ের বিক্রি বা ব্যবসা কেউ করতে পারবেন না। কারো কাছে যদি এ বিষয়ে ইনফরমেশন থাকে তাহলে এটা আমাদের জানিয়ে সহযোগিতা করুন। আমাদের চা-ও বিদেশে রপ্তানি হোক স্টো আমরা চাই।

সারা পৃথিবী এখন ওপেন ইকোনমি। যারা রপ্তানি করতে পারবেন তারা ভালো দাম পাবেন। ভোক্তারা নির্ধারণ করবেন তারা বাংলাদেশি চা খাবেন, নাকি ভারত বা শ্রীলঙ্কার চা খাবেন।

চা বাগানের শ্রমিক সংকট নিরসনের কৌশল সম্পর্কে তিনি বলেন, গবেষণা করে এখন থেকেই যান্ত্রিক পদ্ধতি নির্ভরশীল হতে হবে। বিদেশ থেকে চায়ের প্লাকিং মেশিন (চা পাতা উত্তোলনের যন্ত্র) প্রুনিং মেশিন (সমানভাবে চা গাছের মাথা কাটার যন্ত্র)সহ আরো মেশিন সংগ্রহ করা হবে বলে জানান তিনি।

অবৈধভাবে চা বাগানের গাছ কাটার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, গাছ কাটার ব্যাপারগুলো ফরেস্ট ডিপার্টমেন্ট দেখে। বাগানের ছায়া গাছগুলো কাটতে হলে ডিসির অনুমোদন লাগবে। ফরেস্টের অনুমোদন লাগবে। চা বোর্ডের অনুমোদন লাগবে।

তার পরও আমি বলবো, আপনারা আমাকে সহায়তা করুন। টি-বোর্ডের ওয়েব সাইটে ই-মেইল অ্যাড্রেস দেয়া আছে। ওই মেইলে অভিযোগগুলো পাঠান। আমি যথাযথ ব্যবস্থা নেবো।

সূত্র: মানবজমিন।

এফ/১১:২০/২৫আগষ্ট

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে