Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-২১-২০১৬

পাখি’র প্রতি সমব্যথী জয়া!

পাখি’র প্রতি সমব্যথী জয়া!

কলকাতা, ২১ আগষ্ট- মধুমিতা চক্রবর্তী, কলকাতার অভিনেত্রী। ‘পাখি’ নামেই তার মূল পরিচিতি। ভারতীয় স্টার জলসার ‘বোঝে না সে বোঝে না’ দিয়েই নতুন নাম ও খ্যাতি পেয়েছেন তিনি।

সেই জনপ্রিয়তার ঢেউ আছড়ে পড়ছে এই বাংলার ড্রইংরুম হয়ে শপিং মলেও। অথচ সেই পাখিই এখন ত্যক্ত-বিরক্ত এপার বাংলা থেকে। ‘বাংলাদেশি মিডিয়া’ শুনলেই নাকি তার মুখ তেতো হয়ে যায়!

তার অভিযোগ, ভুয়া খবর প্রকাশ করেছে বাংলাদেশি কয়েকটি অনলাইন মিডিয়া। যার শিরোনাম ছিল, ‘‘ভারতীয় টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ‘পাখি’ দেহব্যবসার কারণে গোয়ায় গ্রেফতার হয়েছেন।’’ যদিও বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য কোনও অনলাইন মিডিয়ার নাম তাদের কাছ থেকে সে অর্থে পাওয়া যায়নি। তবে এমন একটি খবর নিয়ে তিনি খুব মর্মাহত বলে ভারতের বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশের নামজুড়ে দিয়ে গেল দুদিন ধরে বেশ ফলাও করে খবরটি প্রকাশ করছে। আর এমন খবরেই জলসার পাখি ঘোষণা দেন, লালবাজারের! তথা মামলা-মকদ্দমার।

তার এমন পরিস্থিতে টলিউডের ইন্দ্রানী হালদার, শ্রীলেখা মিত্রসহ বেশ কয়েকজন অভিনেত্রীকে পাশে পেয়েছেন এ তারকা। এবার তাকে সমবেদনা জানালেন ঢাকার অভিনেত্রী জয়া আহসানও!

জয়া এখন কলকাতায় অবস্থান করছেন। ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়াতে আজ (শনিবার) মধুমিতাকে সমবেদনা জানিয়ে জয়া বলেন, ‌‘নারীরাই মূলত এমন ধরনের অনলাইন অপব্যবহারের শিকার হচ্ছেন। অনেকেই নারীকে সহজলভ্য মনে করেন। আর শালীনতার সীমা অতিক্রম করেন।'


মধুমিতা চক্রবর্তী।

নিজের অভিনীত ‘আবর্ত’ ও ‘রাজকাহিনী’ ছবি দুটির উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‌‘‘আমিও এগুলোর শিকার হয়েছি। ‘রাজকাহিনী’ ছবির পর এমন আক্রমণের শিকার হয়েছি। কিন্তু আমি শুধু আমার চরিত্র নিয়ে কাজ করতে চেয়েছি। আমার ক্ষেত্রে এমন খবর যখন প্রকাশ হয়, আমি এগুলোকে পাত্তা দেই না। এগুলো না পড়ার চেষ্টা করি।’’

একই প্রসঙ্গে বেশ আক্রমণাত্মক আবহে পাওয়া গেছে বাংলাদেশি আরেক অভিনয়শিল্পী সোহানা সাবাকে। একই প্রতিবেদনে প্রকাশিত তার বক্তব্যটি হলো এমন, ‘এই অপরাধগুলোর কোনও দেশ নেই। এগুলো বড় অপরাধ। তবে বাংলাদেশের অখ্যাত কয়েকটি অনলাইন কাজটি করেছে। যারা নিজেদের সাইটের হিট বাড়ানোর জন্য এসব খবর প্রকাশ করে। যা শুধু একজন অভিনেত্রীর জন্যই নয়, যে কোনও নারীর জন্যই চরম বিব্রতকর।’

জয়া ও সাবা দুজনই কলকাতায় এখন কাজ করছেন। গত মাসে ‘ষড়রিপু’ নামে তার একটি ছবি মুক্তি পেয়েছে সেখানে। আর গত ১২ আগস্ট কলকাতায় জয়ার তৃতীয় ছবি ‘ঈগলের চোখ’ এসেছে।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার (১৯ আগস্ট) মামলা ঠুকেছেন মধুমিতা। এদিন সকাল সাড়ে দশটার দিকে লালবাজারের (থানা) জয়েন্ট সিপি হেডকোয়ার্টারের সঙ্গে দেখা করে বাংলাদেশের কিছু মিডিয়ার প্রতি অভিযোগ জানান। বেশ কয়েক দফা আলোচনার পর মামলা করেন তিনি। সেসময় সঙ্গে ছিলেন এ অভিনেত্রীর স্বামী সৌরভ। তিনি পুলিশের কাছে ‘বিকৃত’ নিউজের স্ক্রিনশট তুলে দেন।


জয়া আহসান।

কলকাতার শনিবারের (২০ আগস্ট) আনন্দবাজার পত্রিকা সূত্রে জানা যায়, আইপি অ্যাড্রেস ধরে ইতোমধ্যেই তদন্তপ্রক্রিয়া শুরু করেছে কলকাতা পুলিশ। বাংলাদেশের কোন কোন ওয়েব পোর্টাল থেকে ওই খবর বা ছবি আপলোড হয়েছে, কারা এটা করেছেন তা বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে দোষীদের গ্রেফতার করা হবে বলে মধুমিতাকে আশ্বস্ত করেছে শহরটির পুলিশ কর্মকর্তারা।

এফ/০৯:৫০/২১আগষ্ট

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে