Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৮-১১-২০১৬

আরও বাংলাদেশি কর্মী নিতে চায় জর্ডান

শরিফুল হাসান


আরও বাংলাদেশি কর্মী নিতে চায় জর্ডান
বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম জর্ডানের শ্রমমন্ত্রী আলী আল গাজায়ীর সঙ্গে বৈঠক করেন।

আম্মান, ১১ আগষ্ট- বাংলাদেশ থেকে তৈরি পোশাক খাত ও গৃহকর্মী হিসেবে অারও বেশি কর্মী নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে জর্ডান। বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলামের জর্ডান সফরকালে দেশটির শ্রমমন্ত্রী আলী আল গাজায়ি এ কথা জানান। দুই মন্ত্রীর বৈঠকে এই দুটি খাত ছাড়াও কৃষি, নির্মাণ খাতসহ অন্যান্য খাতে পুরুষ কর্মী নিতে জর্ডানের মন্ত্রীকে অনুরোধ জানান বাংলাদেশের মন্ত্রী।

পাঁচ দিনের সরকারি সফরের অংশ হিসেবে ৫ আগস্ট জর্ডান যান নুরুল ইসলাম। ৮ আগস্ট তিনি জর্ডানের শ্রমমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বর্তমানে বাংলাদেশের মন্ত্রী লেবানন সফরে আছেন।

২০০০ সালে ৯৫ জনের যাত্রার মধ্য দিয়ে জর্ডানে বাংলাদেশি কর্মী যাওয়া শুরু হয়। ২০১২ সালে জর্ডানের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক সই করে বাংলাদেশ। এরপর থেকে দেশটিতে বাংলাদেশি কর্মী পাঠানোর পরিমাণ বাড়তে থাকে। বর্তমানে দেশটিতে ১ লাখ ২৫ হাজারের বেশি বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় কাজ করছেন। তাঁদের মধ্যে এক লাখই নারী। ২০১৫ সালেও ২২ হাজার ৯৩ জন বাংলাদেশি কর্মীর জর্ডানে কর্মসংস্থান হয়েছে। আর চলতি বছরের ৪ আগস্ট পর্যন্ত দেশটিতে গেছেন ১৪ হাজার ১৯৪ জন বাংলাদেশি।

প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রীর সফরকারী দলের কয়েকজন প্রতিনিধি বলেন, জর্ডানের শ্রমমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে তৈরি পোশাক ও গৃহকর্মী খাতে বিপুল পরিমাণ নারী ও পুরুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেওয়ায় কৃতজ্ঞতা জানান বাংলাদেশের মন্ত্রী। তিনি বাংলাদেশি কর্মীদের বেতন–ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর জন্যও আহ্বান জানান। বর্তমানে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন খাতে নারী ও পুরুষ কর্মীদের দক্ষতা উন্নয়নে বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও জর্ডানের মন্ত্রীকে জানান তিনি।

জর্ডানের শ্রমমন্ত্রী আলী আল গাজায়ি ওই দেশে কর্মরত বাংলাদেশি তৈরি পোশাকশ্রমিক ও গৃহকর্মীদের কাজের প্রশংসা করেন। তিনি বাংলাদেশ থেকে আরও কর্মী নেওয়া এবং তাঁদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে বিবেচনার আশ্বাস দেন।


প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম জর্ডানের কয়েকটি তৈরি পোশাক কারখানা পরিদর্শন করেন।

দুই দেশের সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী, প্রতিবছর যৌথ কমিটির বৈঠক হওয়ার শর্ত আছে। ২০১৫ সালের এপ্রিলে যৌথ কমিটির প্রথম বৈঠকটি ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে দুই দেশের যৌথ কমিটির সদস্যরা নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। এবারের বৈঠক শেষে বাংলাদেশের মন্ত্রী জর্ডানের শ্রমমন্ত্রী আলী আল গাজায়িকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

এবারের যৌথ কমিটির বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব বেগম শামছুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব আজাহারুল হক, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক সেলিম রেজা, ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ জুলহাস, জর্ডানে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মো. এনায়েত হোসেন, প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রীর একান্ত সচিব মু. মুহসিন চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। জর্ডানের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন শ্রমসচিব ফারুক আল হাদিদি, অতিরিক্ত সচিব আমজাদ ওয়াহসাহ, হেড অব মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কার্স ডিপার্টমেন্টের ইব্রাহিম আল সাকেত, হেয়া নাকায়ি, হাইতাম খাসাওনা, হামাদ আল হাইসা, আবদুল্লাহ আজবুর ও ড. রাগাদা ফাওরি।

জর্ডানের শ্রমমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগে ৭ আগস্ট মন্ত্রী নুরুল ইসলাম জর্ডানের আম্মানের আল দুলাল ও আল হাসান এলাকায় পোশাক কারখানা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি জর্ডানে কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরির পাশাপাশি চিকিৎসা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার আহ্বান জানান। এ ছাড়া তিনি ক্ল্যাসিক ফ্যাশন লি. ও তুসকার অ্যাপারেল লিমিটেড কোম্পানি ঘুরে দেখেন। মন্ত্রী এ সময় কারখানার মালিক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও পোশাকশ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এফ/০৬:৪০/১১আগষ্ট

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে