Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৮-০৯-২০১৬

পদত্যাগের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে, এবার গোলাম আকবর

পদত্যাগের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে, এবার গোলাম আকবর

ঢাকা, ০৯ আগষ্ট- কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর থেকেই ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে বিএনপি। পদ পাওয়া নেতাদের মধ্যে বেশির ভাগেরই অভিযোগ অবমূল্যায়নের। ‘ঢাউস’ জাতীয় কমিটি ঘোষণার প্রথম দিনই পদ ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন দুইজন কেন্দ্রীয় নেতা। পদত্যাগের ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের প্রবীণ নেতা বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানও। শোনা যাচ্ছে পদত্যাগের তালিকায় রয়েছেন আরও অনেকেই। সবশেষ এই তালিকায় যুক্ত হচ্ছেন উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য দলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকার।

কমিটি ঘোষণার পর থেকেই তাঁর মন খারাপ। ঘনিষ্ঠজনদের কাছে তিনি ক্ষোভের কথা জানিয়েছেনও। গোলাম আকবর খন্দকার মনে করেন, তাকে যে পদ দেয়া হয়েছে এতে তিনি অপমানিত ও হতাশ। কারণ সাংগঠনিক সম্পাদক থেকে উপদেষ্টা পরিষদে জায়গা দেয়া হলেও তাকে রাখা হয়েছে ৪৪ নম্বরে।

গত ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তিন দফায় ৪২ নেতার নাম ঘোষণা করা হয়। সবশেষ গত শনিবার ৫০২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হয়। স্থায়ী কমিটি, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদ ও নির্বাহী কমিটি মিলিয়ে মোট পদের সংখ্যা ৫৯২ জন।

পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীসহ সব জায়গা কমিটি নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলছে। নেতাদের বড় অংশ নিজেদের অনুসারীদের কাছে কমিটি নিয়ে ক্ষোভ ও হতাশা ব্যক্ত করেন।

অভিযোগ উঠেছে, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও বেগম খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী দলের একটি পক্ষকে কোণঠাসা করতে কমিটিতে নিজেদের পছন্দের লোকদের অন্তর্ভুক্ত করেছেন। এছাড়াও অতীতের চেয়ে বেশি সংখ্যায় শীর্ষ নেতাদের ছেলে-মেয়ে, পুত্রবধূ,ভাই কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পেয়েছেন। যা নিয়ে কড়া সমালোচনা হচ্ছে দলের ভেতরে-বাইরে।

উপদেষ্টা পরিষদকে বিএনপির মূল কমিটি হিসেবে ধরা হয় না। গঠনতন্ত্র অনযায়ী চেয়ারপারসনের উপদেষ্টারা বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য। আগে এই পদের জন্য নির্ধারিত সংখ্যা থাকলেও এবার গঠনতন্ত্র সংশোধন করে বলা হয়েছে, প্রয়োজনে খালেদা জিয়া ইচ্ছামতো উপদেষ্টা নিয়োগ দিতে পারবেন।

আগে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সংখ্যা ৩৬ সদস্যের হলেও এবারের সংখ্যা  ৭৩ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, বিগত সময়ে যারা আন্দোলন সংগ্রামে নিষ্ক্রিয় ছিল তাদের অনেকটা শাস্তি হিসেবে এই পদে রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোলাম আকবর বলেন, ‘পরিবার ও অনুসারীদের পক্ষ থেকে পদত্যাগ করার জন্য চাপ আছে। চিন্তা করছি কী করবো।’

গোলাম আকবরের ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, মূল দল থেকে বাইরে উপদেষ্টা পরিষদে যে জায়গায় তাকে রাখা হয়েছে এতে তিনি খুবই ভেঙে পড়েছেন। শেষ পর্যন্ত পদ ছেড়ে দেয়ার সম্ভাবনা আছে।

আর/১০:১৪/০৮ আগষ্ট

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে