Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.6/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-০৫-২০১৬

পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলে সমর্থন সিপিএমের

পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলে সমর্থন সিপিএমের

কলকাতা, ০৫ অগাস্ট- রাজ্যের নাম পরিবর্তন ইস্যুতে কংগ্রেস, বিজেপি সরাসরি বিরোধিতার অবস্থান নিলেও নরম বামফ্রন্ট। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগকে বিরোধিতা না করে স্বাগত জানিয়েছে সিপিএম।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবারই রাজ্য মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, রাজ্যের নাম পরিবর্তন করা হবে। বস্তুত ইংরেজিতে পশ্চিমবঙ্গকে ওয়েস্ট বেঙ্গল বলা হয়। তাতে সব রাজ্যর শেষে পশ্চিমবঙ্গের নাম আশে। যদি রাজ্যের নাম ‘বঙ্গ’ বা ‘বাংলা’ করা হয় তা হলে রাজ্যর নাম ২ অথবা ৩ নম্বরে চলে আসবে।

কিন্তু এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। নাম বদলের বিরোধিতায় বুধবার মহাজাতি সদনে বিজেপির প্রদেশ পরিষদ সম্মেলনে ঘোষণা করা হয়, আগামী ১৬ আগস্ট তারা নাম বদলের প্রতিবাদে ‘পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস’ পালন করবে। 

রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘এটা গিমিক ছাড়া কিছু নয়। নাম দিয়ে কিছু যায় আসে না। কাজ করতে হয়। উন্নয়ন করতে হয়। তা হলেই রাজ্যের মুখ উজ্জ্বল হবে। সরকার যদি ভাবে মানুষ চাইছে, তাহলে গণভোট করুক।’

এমনকি সরাসরি বিরোধিতার রাস্তায় কংগ্রেসও। বিধানসভায় কংগ্রেস বিধায়করা প্রস্তাবের বিপক্ষেই কথা বলবেন, এমন ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, ‘এখনই নাম পরিবর্তনের কোনো দরকার ছিল না। আগে রাজ্যের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হোক। দেশের মানুষের কাছে রাজ্য সম্পর্কে একটা ভাল বার্তা যাক। তারপর নাম পরিবর্তন করা দরকার। আর এ বিষয়ে সাধারণ মানুষের মতামত নেয়া হোক।’ 

বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান বলেন, ‘রাজ্যের নাম পরিবর্তন করার আগে সবার মতামত জরুরি। ১৯৯৯ সালে প্রস্তাব এসে বিধানসভায় আলোচনা হয়েছিল। কিন্তু কার্যকর হয়নি। আবারও নাম পরিবর্তন করতে চায় সরকার। বিধানসভায় আলোচনায় অংশ নেব। মতামত জানাব।’

অবশ্য এখানে সিপিএমের অন্য সুর। সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সুধাকর রেড্ডি বলেন, ‘ভাল পদক্ষেপ। আমরা একমত। এই নিয়ে কোনো সমস্যা থাকা উচিত নয়। বিরোধিতাও হওয়া ঠিক নয়। নাম পরিবর্তন বাস্তবের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে একটা প্রক্রিয়া।’ 

বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘১৯৯৯ সালে জ্যোতিবাবু মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন নাম পরিবর্তনের উদ্যোগ নেয়া হয়। আবার ২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাম পরিবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু দুটি ক্ষেত্রেই কেন্দ্রের অনুমোদন মেলেনি। এবার মন্ত্রিসভায় অনুমোদন হওয়ার পর সর্বদলীয় বৈঠক ডাকা হয়েছে। আগে সর্বদলীয় বৈঠক করা উচিত ছিল। তবে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে এগোনো উচিত সরকারের।’

সিপিএমের এই সমর্থনে অবশ্য অবাক অনেকেই।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে