Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৭-২১-২০১৬

‘ধার্মিক প্রজন্ম’ গড়তেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান টার্গেট করছেন এরদোয়ান  

‘ধার্মিক প্রজন্ম’ গড়তেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান টার্গেট করছেন এরদোয়ান

 

আঙ্কারা, ২১ জুলাই- তুরস্কে শুক্রবারের ব্যর্থ অভ্যুত্থানের পর থেকে এ পর্যন্ত ৫০ হাজারের বেশি লোককে চাকুরিচ্যুত করেছে এরদোয়ান সরকার। এদের বড় একটি অংশকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। প্রথম দুই দিনে সরকারের টার্গেটে প্রধানত সেনাবাহিনী এবং বিচারক ও বিচার বিভাগের কর্মচারীরা থাকলেও এবার টার্গেট হয়ে দাঁড়িয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এ পর্যন্ত ২১ হাজার শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া ১৫ হাজারের বেশি শিক্ষা কর্মকর্তাকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। পাশাপাশি সারা দেশে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দেড় হাজারেরও বেশি ডিনকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান সেই নির্দেশ বুধবার আরো করেছেন। তুরস্কের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের বিদেশ সফর আপাতত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রশ্ন হচ্ছে, অভ্যুত্থানের পর কেন শিক্ষকদের প্রধান টার্গেটে পরিণত করেছেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান।

এর উত্তর খুঁজতে হলে ফিরে যেতে হবে ১৯৯৭ সালে। ওই বছর শেষবার তুরস্কে সেনাবাহিনী সফল অভ্যুত্থান করে। অভ্যুত্থানের পর সারা দেশে বহু ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছিলো। নতুন করে জোর দেয়া হয় ধর্মনিরপেক্ষ শিক্ষায়।


২০০২ সালে এরদোয়ানের ইসলামপন্থী একে পার্টি নির্বাচনে জিতে ক্ষমতা নেয়ার পর পরিস্থিতি বদলাতে থাকে। ইসলামি শিক্ষা জোরদার করাকে এরদোয়ান তার ব্যক্তিগত মিশন হিসাবে নিয়েছেন। ক্ষমতায়ে এসে তিনি বলেছিলেন, ‘ধমনী কেটে দিলে কোনো মানুষ কি বাঁচতে পারে?’

গত ১৪ বছরে তুরস্কে ছেলেমেয়েদের জন্য আলাদা আলাদা ধর্মীয় স্কুল, যেগুলো তুরস্কে ইমাম-হাতিপ নামে পরিচিত, তা প্রায় শতভাগ বেড়ে গেছে। বন্ধ করে দেয়া অনেক ধর্মীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়। এরদোয়ান একাধিকবার খোলাখুলি বলেছেন, তিনি একটি ‘ধার্মিক’ প্রজন্ম তৈরি করতে চান এবং সেজন্য পুরো শিক্ষা খাতকে সংস্কার করতে চান।

ঐতিহাসিক কারণে তুরস্কের সমাজের মতই শিক্ষা খাতেও ইসলামপন্থী এবং ধর্মনিরপেক্ষতার একটি দ্বন্দ্ব সবসময়ই রয়েছে এবং গত দেড় দশকে তা বেড়েছে। অনেক পর্যবেক্ষক মনে করছেন, অভ্যুত্থানের সুযোগ নিয়ে এরদোয়ান এবার শিক্ষাখাতে তার মিশন বাস্তবায়ন দ্রুততর করতে চাইছেন।

এফ/০৭:৪২/২১জুলাই

ইউরোপ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে