Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-১৯-২০১৬

সুপেয় পানির আওতায় আসছে ১১ লাখ বস্তিবাসী

মামুন আব্দুল্লাহ


সুপেয় পানির আওতায় আসছে ১১ লাখ বস্তিবাসী

ঢাকা, ১৯ জুলাই- রাজধানীর প্রায় ১১ লাখ বস্তিবাসীর জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা করছে সরকার। এ জন্য ৬০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হচ্ছে। ফ্রান্সের সাহায্য সংস্থা এএফডি এ প্রকল্পে ৪৪ কোটি টাকা অনুদান দেবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে ঢাকা ওয়াসা। ২০১৮ সালে এর কাজ শেষ হবে। 

আগামী বৃহস্পতিবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করবে পরিকল্পনা কমিশন। 

কমিশন সূত্র জানায়, সায়েদাবাদ পর্যায়-৩ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা ওয়াসার পানি সরবরাহ সেবার মানোন্নয়নের মাধ্যমে এ পানি সরবরাহ করা হবে। এতে নিম্ন আয়ের মানুষের পানি সমস্যা দূর হবে।

রাজধানীতে বসবাসরত বস্তিবাসীদের প্রায় প্রত্যেককেই পানি সংগ্রহ করতে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়। কখনো রাস্তার ধারের পাইপ থেকে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে, কখনো অবৈধ সংযোগ থেকে বাড়তি টাকা দিয়ে পানি সংগ্রহ করেন তারা। আবার কখনো পানি আনতে হয় অনেক দূর থেকে। এ অবস্থার অবসানে রাজধানীর তিন হাজার পয়েন্ট থেকে বস্তি এলাকায় পানি সরবরাহ করা হবে।

এ প্রসঙ্গে প্রকল্প পরিচালক কামরুন নাহার বলেন, ‘রাজধানীর নিম্ন আয়ের বাসিন্দাদের পানি সরবরাহের জন্য এ প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়েছে। শিগগিরই এটি অনুমোদন পাবে বলে আশা করছি।’

ওয়াসার লাইন থেকে বস্তিতে পানির সংযোগ প্রদান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এসব সংযোগ দেওয়ার সময় খুবই নিম্নমানের মালপত্র ব্যবহার করা হয়। ফলে বস্তির মানুষ দূষিত পানি ব্যবহারে বাধ্য হচ্ছে এবং পানিবাহিত রোগের প্রকোপ বাড়ছে। অবৈধ পানি সরবরাহে জড়িত সিন্ডিকেটটি নির্ধারিত মূল্যের চার থেকে পাঁচগুণ বেশি অর্থ আদায় করছে, অথচ ওয়াসা কোনো রাজস্ব পাচ্ছে না।’

ঢাকা ওয়াসা বস্তি এলাকায় বৈধ পানি সংযোগের জন্য এর আগেও একটি কর্মসূচি নিয়েছিল। ইউনিসেফ, ওয়াটার এইড এবং কয়েকটি উন্নয়ন সহযোগীর সহযোগিতায় ওই কর্মসূচির আওতায় বৈধ পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। 

সর্বশেষ হিসাবে তখন ৪০০ বস্তিতে দুই হাজার ৩০০টি ওয়াটার পয়েন্ট স্থাপন করা হয়। 

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী, দেশে বস্তিবাসীর সংখ্যা ২২ লাখ ৩২ হাজার। এর অর্ধেকেরও বেশি রাজধানীতে বসবাস করে। তারা মূলত ঝুপড়ি, টং, ছই, টিনের ঘর, আধাপাকা ভবন ও জরাজীর্ণ দালানে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করেন। একটি টয়লেট ব্যবহার করেন কমপক্ষে ১৫ জন। 

আর/১১:১৪/১৯ জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে