Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-১৯-২০১৬

জুমার খুতবা কারো ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়নি

জুমার খুতবা কারো ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়নি

ঢাকা, ১৯ জুলাই- ‘সরকার জুমার খুতবা চাপিয়ে দিয়েছে’ এমন অভিযোগের জবাব দিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। সংস্থাটি বলেছে, এই খুতবা কারো ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়নি বা নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়নি। ইমাম ও খতিবরা যাতে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের জন্য প্রণীত খুতবা থেকে ধারণা নিয়ে খুতবা উপস্থাপন করতে পারেন, এ উদ্দেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে দেশের বিভিন্ন মসজিদে শুধু নমুনা হিসেবে খুতবা পাঠানো হয় বলে আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে সংস্থাটি।

ফাউন্ডেশন সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ নিজামউদ্দিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে দীর্ঘকাল যাবত জুমার খুতবা প্রণয়ন ও উপস্থাপন করা হয়ে থাকে।  এ মসজিদের খতিব মরহুম মুফতি সৈয়দ আমীনুল ইহসান (রহ.) এবং মরহুম মাওলানা উবায়দুল হক (রহ.) নিজেরা খুতবা প্রণয়ন করে উপস্থাপন করতেন। বর্তমানে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের ইমাম সাহেবগণসহ দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেম-ওলামা ও খতীবগণের সমন্বয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে পবিত্র কোরআন-সুন্নাহর আলোকে জুমার খুতবা প্রণয়ন করা হয়ে থাকে এবং তা নিয়মিতভাবে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে উপস্থাপিত হয়ে আসছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত কর্মকর্তা-কর্মচারী খুতবা প্রণয়নের সাথে সম্পৃক্ত নন। এ কমিটিতে শুধুমাত্র দেওবন্দ, হাটহাজারী ও পটিয়া মাদ্রাসাসহ মিসরের আল আজহার ও মদীনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সনদপ্রাপ্ত বিশেষজ্ঞ আলেম-ওলামা সম্পৃক্ত রয়েছেন।এ খুতবা পবিত্র কুরআন-সুন্নাহর আলোকে দেশের প্রচলিত প্রায় সকল খুতবার কিতাবকে সামনে রেখে প্রণয়ন করা হয়ে থাকে। এখানে কারো ব্যক্তিগত মতামত তুলে ধরা হয়নি এবং এর কোনো অবকাশও নেই।

ইসলাম সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে সমর্থন করে না। ইসলামের নাম ব্যবহার করে কেউ যাতে ইসলাম বিধ্বংসী কাজের সঙ্গে জড়িত না হয়, পবিত্র কোরআন-সুন্নাহর আলোকে তা জনগণের সামনে তুলে ধরা মুসলিম উম্মাহর প্রত্যেক খতিব, ইমাম ও আলেম-ওলামার দায়িত্ব। তারাই নায়েবে রাসুল হিসেবে মানুষকে হেদায়াতের পথে আহ্বান করবেন-এটাই ইসলামের দাবি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,খুতবা প্রণয়ন কমিটি থেকে প্রণীত কোন খুতবায় যদি ভুল-ভ্রান্তি থেকে থাকে তাহলে তা লিখিতভাবে ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে অবহিত করার জন্য সবিনয় অনুরোধ জানানো হয়েছে। খুতবার ভুল-ভ্রান্তির বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশ করলে ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ বিভ্রান্ত হতে পারেন। যদি কেউ পবিত্র কোরআন-সুন্নাহর আলোকে খুতবা প্রণয়ন করে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে প্রেরণ করেন তাহলে তা সাদরে গৃহীত হবে এবং তা বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে উপস্থাপনসহ দেশব্যাপী বিতরণের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।তাছাড়া আরবি ভাষায় পারদর্শি কোনো বিশেষজ্ঞ আলেম খুতবা প্রণয়ন কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত হতে আগ্রহী হলে ইসলামিক ফাউন্ডেশন তাকে স্বাগত জানাবে।

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ছাড়াও সামাজিক বিভিন্ন সমস্যাদি থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে ইসলামের মৌলিক বিষয়ের ওপর পবিত্র কোরআন-সুন্নাহর আলোকে খুতবা প্রণয়ন করে নিয়মিতভাবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে উপস্থাপন এবং দেশব্যাপী বিতরণ করা হবে। এ ব্যাপারে দেশের সর্বস্তরের শ্রদ্ধেয় আলেম-ওলামাগণের সুপরামর্শ ও সহযোগিতা প্রত্যাশা করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

এফ/২২:১২/১৯ জুলাই

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে