Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.5/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৭-১৯-২০১৬

শ্বেতাঙ্গ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধের ডাক

শ্বেতাঙ্গ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধের ডাক

টেক্সাস, ১৯ জুলাই- সব বৈষম্য গুড়িয়ে দিতে সশস্ত্র প্রতিরোধের ডাক দিয়েছেন মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ যুবক গেবিন ইউজিন লং, যিনি সোমবার (১৭ জুলাই) দেশটির লুজিয়ানা রাজ্যে তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা করেছেন। ঘটনার তিনদিন আগে ধারণকৃত এক ভিডিওতে কৃষ্ণাঙ্গ মানুষদের প্রতি এ আহ্বান জানিয়ে গেবিন বলেছেন, রক্তাক্ত পথ ছাড়া কখনো এ বিশ্বে অধিকার আদায় হয়নি, আগামীতেও হবে না। পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলিতে নিহত এ যুবকের পরিচয় জানা যায় ছদ্মনামে ইউটিউবে পোস্ট করা তার এক ভিডিও দেখে।  

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ডালাসের পর আবারো পুলিশ খুনের পুনরাবৃত্তি ঘটলো। দেশটির মিনেসোটা ও লুজিয়ানা অঙ্গরাজ্যে দুইদিনে দুই কৃষ্ণাঙ্গ ফিলানডো ক্যাস্টাইল এবং অ্যালটন স্টারলিং হত্যায় আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে স্নাইপার রাইফেলের গুলিতে গত ৭ জুলাই রাতে ৫ পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যা করে আরেক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জনসন। তাকেও গুলি করে মারে পুলিশ।

কানসাস সিটির বাসিন্দা সাবেক মেরিন সেনা কর্মকর্তা  গেবিন ইউজিন লং ধারণকৃত ভিডিওতে বলেন, প্রতিবাদ নয়, রক্তাক্ত পথেই বিপ্লব সফল করতে হবে। বলেন, আমি ন্যাশন অব ইসলাম কিংবা ইসলামিক স্টেটের কেউ নই, মানুষ হিসেবে আমার অস্তিত্ব একক, লক্ষ্যও এক। নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নেই, নিজের ভাবনাও ভাবি নিজে।

ঘটনার ৯ দিন আগে ইউটিউবে ছাড়া আরেক ভিডিওতে গেবিন বলেন, আমি সচ্ছ মনের একজন মানুষ। এর আগেও বিভিন্ন সময়ে ধারণ করা ভিডিও ইউটিউবে পোস্ট করেন গেবিন ইউজিন লং। ডালাসে ৫ পুলিশ হত্যার ৩ দিন পর সম্ভবত সর্বশেষ ভিডিওটি ধারণ করেন গেবিন, যেখানে প্রতিবাদ, নির্যাতন এবং অত্যাচারীদের মোকাবেলার নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা স্থান পায়।  

দুই কৃষ্ণাঙ্গ যুবক হত্যার পর যুক্তরাষ্টজুড়ে কালো মানুষদের উপর পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদে যখন প্রবল প্রতিবাদ চলছে তখন অত্যাচারীদের বিরুদ্ধে জেগে উঠার এ আহ্বানের ভিডিও ধারণ করে ইউটিউবে পোস্ট করেন সাবেক এ সেনা কর্মকর্তা।


এক সপ্তাহ আগে ছাড়া এ ভিডিওতে গেবিন বলেন, আসুন দেখে নেই ইতিহাসের পাতা। অতীতের সব বিপ্লবের ইতিহাস এক ও অভিন্ন। নির্যাতকদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে নির্যাতিত মানুষ। এসব লড়াই ছিল রক্তাক্ত, ওই পথেই জিতেছে নির্যাতিত মানুষ।

নির্যাতকদের বিরুদ্ধে শুধুমাত্র প্রতিবাদ করে সাফল্যের ইতিহাস শুন্য উল্লেখ করে ওই ভিডিওতে বলা হয়, এতে কখনও কাজ হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না। লড়াই করতে হবে প্রবল শক্তিতে, এতে নির্যাতকরা পালাতে বাধ্য হবে। অত্যাচারি, নির্যাতকরা প্রতিবাদের ভাষা বুঝতে চায় না।

ভিডিওতে গেবিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা আনতে জর্জ ওয়াশিংটনসহ দেশটির প্রতিষ্ঠাতাদের ব্রিটিশ শোষকদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়েছে, যে স্বাধীনতা আমরা এখন উদযাপন করছি। এখন আমারা বলছি, স্বাধীনতার ওই লড়াই ছিল সঠিক। 

কিন্তু এখন আফ্রিকানরা যখন অধিকার প্রতিষ্ঠায় লড়ছে, তখন বলা হচ্ছে এটা সঠিক নয়।

ঠিক উল্টো বোল শোনা যায় ইউরোপীয়ানদের ক্ষেত্রে। ইউরোপীয়রা অধিকার নিশ্চিতে শোষকদের বিরুদ্ধে যখন লড়ছে তখন বলা হচ্ছে এটা সঠিক পথ। নিজের ইউটিউব পাতায় অনেক দিন ধরে ভিডিও পোস্ট করে যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশের নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিলেন।  

আর/১০:১৪/১৮ জুলাই

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে