Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.3/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৭-১৩-২০১৬

৪ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী নিখোঁজ!

৪ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী নিখোঁজ!

ঢাকা, ১৩ জুলাই- দেশের চারটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক ছাত্র দীর্ঘদিন নিখোঁজ থাকার সন্ধান পেয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা। তিনদিন ধরে ওই চার বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে এই পেয়েছে গোয়েন্দারা। তাদের নিখোঁজ থাকার বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। অপর একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল জঙ্গি প্রশিক্ষণ দেওয়ার বিষয়টিও তাদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে। ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে ও ঈদের দিন শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় হতাহতের ঘটনা ঘটে। এ দুটি ঘটনায় নিহত হামলাকারীদের অধিকাংশ বিত্তশালী পরিবারের সন্তান এবং তারা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের পড়ূয়া ছাত্র। এই ঘটনার পরই সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দেশব্যাপী নিখোঁজ তরুণদের ব্যাপারে অনুসন্ধানের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়।
 
পুলিশ, র‌্যাবসহ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করে। আর তিনদিনের অনুসন্ধানে চার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এতসংখ্যক ছাত্র নিখোঁজ থাকার বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে গোয়েন্দাদের। এই নিখোঁজ ছাত্রদের মধ্যে ৯৫ ভাগের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কিংবা অভিভাবকদের পক্ষ থেকে আইনশৃঙখলা বাহিনীকে কিছুই জানানো হয়নি।
 
অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তারা জানান, আমরা ভাবতে পারিনি নামি-দামী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা এমনভাবে জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়বে এবং জবাই করে সাধারণ মানুষকে হত্যা করবে এটা বিবেকবান মানুষের কাজ নয়। ওই সকল ছাত্রদের ৯০ ভাগ উচ্চবিত্ত, ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীতে কর্মরত বা অবসরপ্রাপ্ত একশ্রেণীর কর্মকর্তাদের সন্তানও রয়েছে। ওই সব বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শ্রেণীর শিক্ষকও জঙ্গি প্রশিক্ষণে সক্রিয়ভাবে জড়িয়ে পড়েছে। তারা মেধাবী ছাত্রদের টার্গেট করে এবং এসব ছাত্ররা কি পছন্দ করে। শিক্ষকরা ওই সকল বিষয়ে তাদের চাহিদা নানা কৌশলে পূরণ করে থাকে। এই সমস্ত নানা কৌশলে নানা ছলনায় ছাত্রদের শিক্ষকের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা হয়। এরপর তাদের জঙ্গি তত্পরতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হন শিক্ষকরা। 

অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে ওই সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় ছাত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা স্বেচ্ছায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তথ্য দিয়ে জানান যে, ওই সকল বিশ্ববিদ্যালয়, ইংলিশ মিডিয়ামের এক শ্রেণীর শিক্ষক সক্রিয়ভাবে জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িত। এই সকল বিশ্ববিদ্যালয় ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলকে বহি:বিশ্বের কোনো কোনো দেশ জঙ্গি কার্যক্রমের জন্য মোটা অংকের অনুদান দিয়ে থাকে।
 
এই অনুদানকে পরবর্তীতে জাহির করা হয় এই সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলগুলো বহি:বিশ্বের ওই সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত। এই সকল বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকরাও জঙ্গি তত্পরতার সঙ্গে জড়িত। এই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করার উদ্দেশ্যই হচ্ছে শিক্ষার নামে জঙ্গি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়। 

অনুসন্ধানে এ ধরনের তথ্য বেরিয়ে আসছে। এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে মাঠ পর্যায়ে যারা রয়েছেন তাদের মধ্যে এক শ্রেণীর কর্মকর্তা টাকা কামানোর ধান্দা নিয়ে ব্যস্ত। রাজধানীসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পদ ধরে রাখার জন্য বা বদলি হয়ে আসার জন্য লেনদেন নিয়ে ব্যস্ত। এই সুযোগ নিচ্ছেন জামাত-শিবির মর্তাদশের একশ্রেণীর কর্মকর্তাদের একটি গ্রুপ। তারা আওয়ামী বা সরকার দলীয় লোক সেজে গুরুত্বপূর্ণ পদ বাগিয়ে নেন। 

তাদের এই ধরনের দলবাজি এবং দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণেই খোদ রাজধানীতে সহজেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, অভিজাত এলাকায়, মিরপুর ও উত্তরাসহ বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে উঠেছে। ইতিমধ্যে একটি গোয়েন্দা সংস্থার একজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে জঙ্গি তত্পরতার সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ শুরু হয়েছে। রাজধানীসহ সারাদেশে ৯২ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১৬২ স্কুল মিডিয়াম স্কুল রয়েছে। এ সকল বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুলের বেশিরভাগ মালিকও উচ্চবিত্ত পরিবার ও ক্ষমতাধর ব্যক্তিরা। এই সমস্ত স্কুলে শিক্ষার অন্তরালে কি ধরনের কার্যক্রম পরিচালিত হয় তা স্বয়ং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ও এর খোঁজ রাখে না। 

গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় নিহত জঙ্গিদের পরিচয় মেলার পর শীর্ষ প্রশাসন থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুসন্ধান কার্যক্রম চালিয়ে নিখোজ ছাত্রদের তালিকা প্রণয়নের নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অনুসন্ধান কার্যক্রম চালানোর জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়। এই নির্দেশনার প্রেক্ষিতে র‌্যাব, পুলিশ ও তিনটি গোয়েন্দা সংস্থা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে অনুসন্ধান শুরু করে।
 
র‌্যাবের ইন্টিলিজেন্স উইংয়ের পরিচালক লে. কর্ণেল আবুল কালাম আজাদ জানান, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাবের পক্ষ থেকে অনুসন্ধান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এ কার্যক্রম সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে চলবে।

আর/১৫:৪৪/১৩ জুলাই

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে