Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৭-১৩-২০১৬

দাঁত ক্ষয় প্রতিরোধে এই অভ্যাসগুলো ত্যাগ করুন

সাবেরা খাতুন


দাঁত ক্ষয় প্রতিরোধে এই অভ্যাসগুলো ত্যাগ করুন

আপনার কি প্রায়ই দাঁত ব্যথা করে? ঠান্ডা বা গরম খাবারে কি আপনার দাঁত শির শির করে? যদি আপনার উত্তর হয় হ্যাঁ তাহলে আপনি দাঁত ক্ষয়ের ঝুঁকিতে আছেন। যা অনেক অস্বস্তি ও ব্যথার সৃষ্টি করতে পারে। দাঁত ক্ষয় হতে শুরু করলে দাঁতের রঙও নষ্ট হতে থাকে। সঠিক সময়ে চিকিৎসা করা না হলে দাঁত দুর্বল হয়ে যায় এবং দাঁতের মূলের কোষ মরে যায়। এর ফলে দাঁতটি স্থায়ীভাবেই হারাতে পারেন আপনি। আপনি কি জানেন আপনার প্রাত্যহিক কিছু অভ্যাসের জন্যই আপনার দাঁত ক্ষয়ের সমস্যাটি হতে পারে? চলুন তাহলে সেই অভ্যাসগুলো সম্পর্কে জেনে নিই।

১। চিনিযুক্ত পানীয়  
দাঁত ক্ষয় হওয়ার একটি প্রধান কারণ হচ্ছে চিনি, বিশেষজ্ঞরা এটি প্রমাণ করেছেন। যদি সুস্থ দাঁত চান তাহলে সফট ড্রিংক, সোডা, কৃত্রিম ফলের জুস পান করা থেকে বিরত থাকুন।

২। ভিটামিন ট্যাবলেট চিবিয়ে খাওয়া  
বেশীরভাগ ভিটামিন ট্যাবলেটই চিবিয়ে খাওয়া যায় এবং এগুলো স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। কিন্তু এগুলো যেহেতু এসিডিক প্রকৃতির হয় তাই নিয়মিত এই ট্যাবলেট চিবিয়ে খেলে দাঁত ক্ষয় হতে পারে।

৩। দাঁত কামড়ানো
কারো কারো দাঁত কামড়ানোর বদঅভ্যাস থাকে। এর ফলে দাঁতের এনামেল ক্ষয় হয়ে যায় এবং পরিণামে দাঁতক্ষয় হয়।

৪। খুব জোরে দাঁত ব্রাশ করলে
খুব জোরে জোরে দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতের এনামেল নষ্ট হয়ে যায় এবং দাঁতের মূলও ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এই কারণে দাঁতে ছিদ্রও হতে পারে।

৫। টুথপিক ব্যবহার করা
যদি আপনি নিয়মিত দাঁত পরিষ্কারের জন্য টুথপিক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনি আপনার দাঁতের সেনসিটিভ অংশের ক্ষতি করছেন। এতে আপনার দাঁত ক্ষয় হতে পারে।

৬। অ্যালকোহল সেবন
বেশিরভাগ অ্যালকোহল এসিডিক ধরণের হয়। তাই যারা নিয়মিত অ্যালকোহল সেবন করেন তাদের দাঁত ক্ষয় হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।

৭। পেইন কিলার সেবন
অনেক ব্যথানাশক ঔষধই লালার উৎপাদন কমিয়ে দেয়। ফলে মুখগহ্বর ড্রাই হওয়ার প্রবণতা দেখা দেয়। এর ফলে এনামেল ক্ষয় হতে শুরু করে। যার পরিণতিতে দাঁত  ক্ষয় হয়।

দাঁতে ছিদ্র হলে দাঁতক্ষয় হওয়া শুরু হয়। আস্তে আস্তে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। এই গর্তের মধ্যে খাদ্যকণা জমতে থাকে ও ব্যাকটেরিয়ার জন্ম হয়। এতে দাঁতের আরো ক্ষতি হয়। দাঁতক্ষয় বিভিন্ন মাত্রার হতে পারে এবং এনামেলের ক্ষতির উপর এটি নির্ভর করে। ডেস্টিস্টরা দাঁত ক্ষয়ের চিকিৎসায় ফিলিং করেন এবং ক্যাপ পরিয়ে দেন। খুব বেশি ক্ষয় হয়ে গেলে রুটক্যানেল করান।  

লিখেছেন- সাবেরা খাতুন

এফ/০৯:১০/১৩জুলাই

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে