Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-০৫-২০১৬

অনেক স্বাভাবিক মানুষ এখন হিজড়া: ভয়াবহ চাঁদাবাজি

আরিফুল ইসলাম


অনেক স্বাভাবিক মানুষ এখন হিজড়া: ভয়াবহ চাঁদাবাজি

ঢাকা, ০৫ জুলাই- বর্তমানে হিজরার অপর নাম আতঙ্ক ।এরা রাস্তাঘাট যেখানে সেখানে ইচ্ছে মত চাঁদা আদায় করে । কেউ টাকা দিতে রাজি না হলে তাকে সবার সামনে লাঞ্চিত করা হয়। হিজড়াদের উৎপাত শহর কেন্দ্রীক হলেও বর্তমানে গ্রামে-গঞ্জেও এদের প্রভাব ছড়িয়ে পড়েছে। রাস্তা, দোকন, বাসা, পরিবহণ কোন স্থানেই হিজরা থেকে রেহাই পাচ্ছে না সাধারণ নাগরিকরা।

প্রতিদিনি রাস্তা, দোকানে চাদা উঠায় হিজরারা। কিন্তু ঈদের আগে এরা বিশেষ অভিযানে নেমেছে। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়েও চাঁদাবাজি করছে। ফর্মগেট এলাকার ভুক্তভূগী এক বাড়ির মালিক বলেন, চার হিজরা আমার বাসায় ঢুকে পাঁচ হাজার টাকা দাবি করে, ঈদ উপলক্ষ্যে তাদের নাকি অনেক খরচ আছে। আমি তাদের ৩০০ টাকা দিতে চাই তারা নিতে না চাইলে আমি তাদের চলে যেতে বলি। তখনি তারা আমাকে পরিবারের সামনে লাঞ্চিত করতে শুরু করে। পরে প্রতিবেশীরা আমাকে উদ্ধার করেন।

তিনি বলেন, কয়েক মাস আগে আমার এক ছেলে জন্মগ্রহণ করার পর আমার বাসায় এ হিজরারা ৭ হাজার টাকা দাবি করে আমি তাদেরকে ৩ হাজার টাকা দিয়ে ম্যানেজ করি। এরা শুধু আমার নয় এই মহল্লার প্রায় সব বাসায় বিভিন্ন অজুহাতে চাঁদা আদায় করে।

হিজরাদের কাছে বিষটি জানতে চাইলে, তারা বলে তুই কে? ঈদে আমাদের অনেক খরচ আছে টাকা উঠাইতে আসছি। সাহেবের কাছ থেকে টাকা নিব। ওনার টাকা কি তুই দিবি। পুলিশ ঢাকার কথা বললে হিজড়ারা বলে পুলিশ ডেকে কোন লাভ হবে না। আমাদের টাকা দরকার কাল আবার আসব।

অঙ্গ কেটে বানানো হচ্ছে হিজড়া:
রাস্তায় হিজড়া হিসেবে দলবদ্ধভাবে যাদের দেখা যায় তাদের কতজন প্রকৃত হিজড়া? দেহাকৃতি হিজড়ার মতো হলেও তাদের অধিকাংশই এক সময় স্বাভাবিক মানুষ ছিলেন। বিশেষ অঙ্গ কর্তনের মধ্য দিয়ে হিজড়ার খাতায় নাম লেখান। রাজধানীসহ বাইরের বেশকিছু বেসরকারি ক্লিনিকে পেশাদার ও ডিগ্রিধারী চিকিৎসকদের দিয়ে গোপন অঙ্গ কেটে হিজড়া তৈরি করার প্রচুর ঘটনা জানা গেছে। হিজড়া নামের আড়ালে লিঙ্গ কর্তন করা হাজার হাজার পুরুষ ঢাকাসহ সারা দেশে চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, খুন-খারাবিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছেন। বিষয়টি অঙ্গছেদনকারী সার্জিক্যাল চিকিৎসকরাও স্বীকার করেছেন। সার্জিক্যাল ক্লিনিকে অঙ্গ কেটে হরমোন চিকিৎসার মাধ্যমে শারীরিক অবয়বে পরিবর্তন আনা হয়। অনুসন্ধানে জানা যায়, এই রাজধানীতেই অঙ্গ ছেদন করা হিজড়া রয়েছে প্রায় কয়েক হাজার।

ট্রাফিক সিগন্যালে হিজড়াদের চাঁদাবাজি:
হিজড়াদের টাকা তোলার বিষয়টি নতুন কিছু নয়। আগে মানুষ যা দিত, তা নিয়েই খুশি থাকতেন হিজড়ারা। কিন্তু এখন তাদের আচরণ বদলে গেছে। রাস্তাঘাট, বাসাবাড়ি, দোকানপাট যেখানে-সেখানে টাকার জন্য মানুষকে নাজেহাল করছে তারা। হিজড়াদের কয়েকজন অভিযোগ করছেন, রাজধানীতে অনেক ‘নকল’ হিজড়া আছে, যাদের মূল উদ্দেশ্য মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিনা পরিশ্রমে অর্থ উপার্জন করা। ট্রাফিক সংকেতে যানবাহন থামার পর হিজড়ারা সামনে এসে দাঁড়ালে যাত্রীদের কিছু করার থাকে না। রাজধানীর বিভিন্ন সিগন্যালে দলবেঁধে ওঁৎপেতে থাকে হিজড়ার দল।

নবজাতকের খবর পেলেই টাকা দাবি:
রাজধানীতে হিজড়ারা রীতিমতো আতঙ্কে পরিণত হয়েছেন। ঢাকার যেকোন প্রান্তে কোনো বাড়িতে নবজাতকের আগমনী বার্তা পেলেই হুমড়ি খেয়ে পড়েন হিজড়ারা। নিজস্বভঙ্গীর নাচ-গানের পর বকশিশের দাবি। তাদের বঞ্চনা। পরিস্থিতি ঘোলাটে হতে থাকে। গৃহস্থ তখন রীতিমতো বিব্রত। পুরোপুরি জিম্মি হয়ে পড়েন তিনি। পরিশেষে নানারকম ভয়ভীতি দেখিয়েও আর অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে হাতিয়ে নেন হাজার হাজার টাকা। এজন্য কোনো বাসায় বাচ্চা হলে বাবা-মা যতটা পারেন খবরটা গোপন রাখার চেষ্টা করেন।

রাতের ঢাকায় অন্য রূপে হিজড়া:
হিজড়ারা শুধু ছোটখাটো চাঁদা বা ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবনযাপন করতেন। এখন তারা বদলে নিয়েছে তাদের জীবিকার ধরন। জড়াচ্ছেন নানা অনৈতিক ও প্রতারণামূলক কাজে। রাজধানী যখন রাতের আঁধারে ঢাকা পড়ে তখন বোরখায় নিজেদের ঢেকে নানা অপকর্মে লিপ্ত হন তারা। সাধারণ ছাপোষা পুরুষরাই তাদের টার্গেট। বোরখায় ঢাকা থাকায় প্রথমে বোঝা যায় না তাদের। পরবর্তিতে কথা বললে বোঝা যায়। হিজড়াদের অনেকের অভিযোগ, অনেক সময় সাধারণ ছেলেরা হিজড়া সেজে চালাচ্ছে এসব অপকর্ম। ফুটপাতে হাঁটতে গিয়ে তাদের চোখে চোখ পড়লে শুরু হয় ইশারায় কথা। তারপর দরদাম, সমঝোতা হলে এক রিকশায়, তারপর দেখা যায় তাদের সহিংস চেহারা। আবার কখনও পূর্ব নির্ধারিত বাসায়।

এফ/১০:৪৫/০৫জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে