Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-২১-২০১৬

দেশের থেকে আলাদা টাইম-জোন চালুর দাবিতে কেন্দ্রের দ্বারস্থ হচ্ছে রাজ্য

দেশের থেকে আলাদা টাইম-জোন চালুর দাবিতে কেন্দ্রের দ্বারস্থ হচ্ছে রাজ্য

আসাম, ২১ জুন- আসাম-সহ ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোর জন্য সারা দেশের থেকে আলাদা একটি টাইম-জোন চালু করার দাবি জোরালো হয়ে উঠেছে।

আসামের প্রভাবশালী মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা বিবিসিকে জানিয়েছেন, দেশের এই অঞ্চলে ঘড়ির কাঁটা এগিয়ে দিয়ে যাতে জ্বালানি সাশ্রয় করা যায় ও উৎপাদন বাড়ানো যায়, সে বিষয়ে তারা কেন্দ্রের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেছেন।

পূর্ব-পশ্চিমে প্রায় তিন হাজার কিলোমিটার বিস্তৃত ভারতে এখন একটিই টাইম জোন চালু আছে – কিন্তু বিকল্প ব্যবস্থা চালু হলে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের, এমন কী গোটা দেশেরই স্থানীয় সময় এক হয়ে যেতে পারে।

ভারতের পূর্বপ্রান্তে আসামের ডিব্রুগড়ে বা নাগাল্যান্ডের কোহিমায় যখন সূর্যোদয় হয়, পশ্চিমের পোরবন্দরে সূর্য ওঠে তার প্রায় দুঘন্টা বাদে। অথচ এই দুই প্রান্তেই স্থানীয় সময় একই, ফলে আসাম বা উত্তর-পূর্ব ভারতে মানুষ যখন সকাল দশটায় অফিস-কাছারি শুরু করেন তখন সেখানে বেলা অনেক গড়িয়ে গেছে। আবার অফিস শেষ হওয়ার আগেই অন্ধকারও ঘনিয়ে আসছে।

এই অসুবিধা দূর করার জন্য সেখানে একটি আলাদা টাইম জোন চালু করার দাবি দীর্ঘদিনের – আর সেটাকেই আবার নতুন করে উসকে দিয়েছেন রাজ্যের নতুন সরকারের সম্ভবত সবচেয়ে ক্ষমতাবান মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। তিনি বিবিসিকে বলেছেন, উত্তর-পূর্ব ভারতে পৃথক একটি টাইম জোন চালু করতে তারা কেন্দ্রের সঙ্গে আলাপ আলোচনা চালাচ্ছেন – কারণ না-হলে অর্থনৈতিকভাবে বিপুল অপচয় হচ্ছে। এই অঞ্চলের মানুষ অনেক আগে দিনের কাজ শুরু করতে পারেন, কিন্তু সেটা হচ্ছে না-বলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির প্রচুর বাজে খরচ হচ্ছে। দিনের আলোর সঠিক ব্যবহার না-হওয়ায় মানুষ স্ট্রেসে ভুগছে, তাদের বায়োলজিক্যাল ক্লক বিঘ্নিত হচ্ছে।


পূর্ব পশ্চিমে চওড়া প্রায় সব দেশেই, যেমন আমেরিকা বা চিনে প্রায় পাঁচ-ছটি টাইম জোন আছে, রাশিয়ায় আছে এগারোটি। এখানে ভারত এক বিরাট ব্যতিক্রম, কারণ উত্তরপ্রদেশের একটি ছোট শহরের স্থানীয় সময়ই এখানে সারা দেশের একমাত্র সময় হিসেবে গণ্য করা হয়। উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আলাদা সময় চালু হলে তা ওই এলাকাকে বাকি দেশ থেকে আরও বিচ্ছিন্ন করে দেবে, ট্রেন-বিমান চলাচলে সমস্যা হবে এমন আশঙ্কাও অবশ্য অনেকের আছে। গত পনেরো বছর ধরে আসাম শাসন করেছে যারা, সেই কংগ্রেসের জাতীয় মুখপাত্র ও এমপি সুস্মিতা দেব তাই মনে করেন বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক ভিত্তিতে পরামর্শ করা দরকার।

“মনে হয় না দল হিসেবে কংগ্রেসের এতে আপত্তি থাকবে, তবে সর্বদলীয় বৈঠক ডেকে ও জনমত যাচাই করেই বিষয়টি নিয়ে এগোনো দরকার। এটা তো সত্যিই পাঁচটারও অনেক আগে এখানে সূর্য ওঠে, সন্ধ্যাও হয় অনেক তাড়াতাড়ি। কিন্তু আলাদা সময় জোন চালু হলে বাকি দেশের সঙ্গে সমন্বয়ের ক্ষেত্রে অসুবিধা হতে পারে বলেও অনেকে মনে করেন – কাজেই সব দলকে ডেকে, ওয়েবসাইটে প্রস্তাবটি আপলোড করে মানুষের মতামত নিয়েই এই প্রস্তাব কার্যকর করা উচিত।”

আসামের চা-বাগানগুলোতে অবশ্য বেসরকারিভাবে আগে থেকেই নিজস্ব সময়সূচী চালু আছে, যাকে সাধারণভাবে চা-বাগান টাইম বলে ডাকা হয়। রাজ্যের অনেক সরকারি কর্মকর্তাও মনে করেন, ঘড়ির কাঁটা এগিয়ে নিতে পারলে তাতে আসামের লাভই হবে – ক্ষতি নয়।

আসামের প্রবীণ আমলাদের অন্যতম এমজিভিকে ভানুর মতে, “অফিস-কারখানার সময়সূচী যদি নতুন টাইম-জোনের সঙ্গে মিলিয়ে স্থির করা হয় তাতে উৎপাদন-ক্ষমতা অবশ্যই বাড়বে। চাবাগানের মতো যে সব শিল্প নিজেদের টাইম জোন ফলো করছে সেখানে তা ইতিমধ্যেই প্রমাণিত। আর আমেরিকা-রাশিয়ার উদাহরণ থেকেই তো বোঝা যায় আলাদা টাইম জোন একটা অঞ্চলকে বাকি দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেবে এটা একেবারে বাজে কথা – বরং এটা এলাকার অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও অবকাঠামো উন্নয়ন ডেকে আনবে।”

তবে ২০০৭ সালে বেঙ্গালুরুর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড স্টাডিজের বিজ্ঞানীরা গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে রায় দিয়েছিলেন, আলাদা টাইম জোন বিশৃঙ্খলা ডেকে আনতে পারে – তার চেয়ে পুরো ভারতীয় সময়টাই আধঘন্টা এগিয়ে নেওয়া ভাল। সেই সুপারিশ মানা হলে ভারত ও বাংলাদেশের স্থানীয় সময় একই হয়ে যাবে, যা ঘটার সম্ভাবনা আছে পুরোদস্তুর।

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে