Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-১৯-২০১৬

নীরব অভ্যুত্থানের আলামত: কে হচ্ছেন সৌদি রাজা?

নীরব অভ্যুত্থানের আলামত: কে হচ্ছেন সৌদি রাজা?

রিয়াদ, ১৯ জুন- আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান প্রায় এক সপ্তাহ ধরে আমেরিকা সফরকালে মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, অসুস্থ রাজার অবর্তমানে রাজ পরিবারের ভবিষ্যতসহ আরো অন্যান্য বিষয়ে ব্যাপক শলাপরামর্শ হয়েছে।

ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া রাই আলিউমের পরিচালক আব্দুল বারি আতাওয়ান সৌদি রাজার ছেলে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের আমেরিকা সফরের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, রাজার অবর্তমানে মোহাম্মদ বিন সালমান বর্তমান ও ভবিষ্যত রাজা হিসেবে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছেন। আতাওয়ান বলেন, যারা মোহাম্মদ বিন সালমানের সফর ভালোভাবে লক্ষ্য করেছেন তাদের এটা বুঝতে বাকি নেই যে, সালমানকে যেভাবে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে তাতে মনে হয় তিনিই একটি দেশের সরকার প্রধান এবং তাকে সৌদি সরকারের তৃতীয় কোনো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বলে মনে হয়নি।

মোহাম্মদ বিন সালমানকে সৌদি সরকারের তৃতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে মূল্যায়ন করা হয়। তিনি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফের স্থলাভিষিক্ত। মোহাম্মদ বিন নায়েফ বর্তমান রাজা সালমান বিন আব্দুল আজিজের মতই অসুস্থ অবস্থায় রয়েছেন। সৌদি আরবের ৮০ বছর বয়স্ক বর্তমান রাজা রাজ পরিবারের ক্ষমতার ধারা বজায় রাখার জন্য মোহাম্মদ বিন সালমানকে দ্বিতীয় ব্যক্তি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফের স্থলাভিষিক্ত করেছেন। কিন্তু প্রিন্স নায়েফও মারাত্মক অসুস্থ থাকায় মোহাম্মদ বিন সালমানের দ্রুত সামনে এগিয়ে আসার বিরাট সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বলে মার্কিন গণমাধ্যমগুলো মনে করছে।

বর্তমান সৌদি যুবরাজ নায়েফের অসুস্থতার খবর প্রকাশের একই সময়ে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার সাবেক কর্মকর্তা মরুস রিদেল বলেছেন, আমেরিকার বর্তমান সরকার তৃতীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি মোহাম্মদ বিন সালমানকে আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়াশিংটন সফরের আমন্ত্রণ জানান। কারণ তিনি খুব শিগগিরি সৌদি আরবের রাজা হতে চলেছেন। তাকে আমন্ত্রণ জানানোর প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আরো বেশি ঘনিষ্ঠতা, সম্পর্ক তৈরি করা ও পরিচিত হওয়া।

তবে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফও আমেরিকার খুব ঘনিষ্ঠ। কিন্তু অসুস্থতার কারণে তার পক্ষে বর্তমান রাজার স্থলাভিষিক্ত হওয়া সম্ভব নাও হতে পারে। এ কারণে আমেরিকা চায় তৃতীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি অর্থাৎ প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদি রাজ পরিবারের হাল ধরুক। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার তিন পদস্থ কর্মকর্তা বলেছেন, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফ অসুস্থতার কারণে তিনি আর রাজা হতে পারবেন না।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সৌদি আরবে কে রাজা হবে তা নিয়ে দেশটির রাজ পরিবারে ব্যাপক মতপার্থক্য রয়েছে। মোহাম্মদ বিন সালমানের রাজা হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় খোদ প্রিন্স ক্রাউন মোহাম্মদ বিন নায়েফসহ অন্যান্যদের পক্ষ থেকে ব্যাপক বিরোধিতার কথা শোনা যাচ্ছে। কারণ বিরোধীদের মতে, মোহাম্মদ বিন সালমানের আগ্রাসী ও ভুল নীতির কারণেই সৌদি আরবে তীব্র রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা সংকট তৈরি হয়েছে।

ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি আরবের ব্যর্থতা, সিরিয়ায় রিয়াদের লক্ষ্য অর্জিত না হওয়া এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে মোহাম্মদ বিন সালমানের ব্যর্থতার কারণে তিনি ব্যাপকভাবে সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন। একদিকে ক্ষমতা নিয়ে সৌদি রাজ পরিবারে তীব্র মতপার্থক্য অন্যদিকে মোহাম্মদ বিন সালমানকে ক্ষমতায় বসানোর মার্কিন তোড়জোড় থেকে সেদেশে নীরব অভ্যুত্থানের আলামত পাওয়া যায় বলে অনেকে মনে করছেন। খবর-রেতে।

আর/১০:১৪/১৯ জুন

মধ্যপ্রাচ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে