Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-১৬-২০১৬

বাংলাদেশের গ্যাস আমদানির অনুরোধে ভারতের না

সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়


বাংলাদেশের গ্যাস আমদানির অনুরোধে ভারতের না

নয়াদিল্লি, ১৬ জুন- ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরা থেকে বাংলাদেশের গ্যাস আমদানির অনুরোধ ভারত আপাতত খারিজ করে দিল। বাংলাদেশকে ভারত জানিয়েছে, দেশে গ্যাসের এমন প্রাচুর্য নেই যে এখনই তা অন্য কোনো দেশকে দেওয়া যেতে পারে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে জ্বালানিবিষয়ক প্রথম আলোচনায় (এনার্জি ডায়ালগ) ভারত তার এই মনোভাব জানিয়ে দেয়।

গত সোমবার দিল্লিতে এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় যোগ দিতে বাংলাদেশ থেকে এসেছিলেন দেশের জ্বালানিসচিব নাজিমুদ্দিন চৌধুরী। ভারতের পক্ষ থেকে আলোচনায় অংশ নেন পেট্রোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস সচিব কে ডি ত্রিপাঠি। এ-সংক্রান্ত পরের বৈঠক বসবে আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে, ঢাকায়।

ত্রিপুরা থেকে গ্যাস আমদানি করতে বাংলাদেশ আগ্রহী অনেক দিন ধরে। গত সোমবার প্রথম আলোচনায় যে চার বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে কথা হয়, সেগুলোর মধ্যে এটিও ছিল। বাংলাদেশের আগ্রহ আরও বেশি এ কারণে যে মাত্র চার কিলোমিটার পাইপলাইন হলেই ত্রিপুরা থেকে বাংলাদেশ গ্যাস পেতে পারে। ওই চার কিলোমিটারের মধ্যে বাংলাদেশে দুই কিলোমিটার। কিন্তু কে ডি ত্রিপাঠি বৈঠকে বলেন, এই মুহূর্তে ভারতে গ্যাসের প্রাচুর্য নেই। নিজেদের প্রয়োজনের তুলনায় জোগান কম। তাই এই অনুরোধ এখনই মানা সম্ভব নয়।

বাংলাদেশের এই অনুরোধ না মানলেও অন্য এক আরজিতে আপত্তি না থাকার কথা ভারত জানিয়ে দিয়েছে। তুর্কমেনিস্তান থেকে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান হয়ে ভারতে যে গ্যাস পাইপলাইন আসার কথা, বাংলাদেশ তাতে নিজেদের সংযুক্ত করার অনুরোধ জানিয়েছে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সূত্রে জানা যায়, বৈঠকে বাংলাদেশ জানায় তারাও ওই চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত হতে চায়। প্রস্তাবিত ওই পাইপলাইন ভারতের যেখানে আসার কথা, তার ২০০ কিলোমিটারের মধ্যেই বাংলাদেশের সঙ্গে সংযুক্তি ঘটানো যায়। এই আরজির পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় প্রতিনিধিরা বৈঠকে জানান, ওই পাইপলাইন স্থাপনের কাজ তুর্কমেনিস্তানে সবে শুরু হয়েছে। এখনো অনেক সময় বাকি। তবে বাংলাদেশের এই অনুরোধে ভারতের আপত্তির কোনো কারণ নেই, বরং সহায়তায় প্রস্তুত।

বৈঠকে ভারতের নুমালিগড় থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুরে ডিজেল পাঠানোর যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তার দাম নির্ধারণ নিয়ে আলোচনা হয়। কিন্তু সরকারি সূত্রের খবর, দাম নিয়ে দুই দেশের এখনো মতৈক্য হয়নি। আগামী বছর ঢাকা বৈঠকে এ নিয়ে আবার কথা হবে। চলতি বছরের মার্চ মাসে ভারতের পেট্রোলিয়াম ও রসায়নমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি থেকে এক ওয়াগন ডিজেল বাংলাদেশে পাঠিয়েছিলেন।

গত সোমবারের ওই বৈঠকে ভারত চট্টগ্রামের কুতুবদিয়া দ্বীপে লিক্যুফায়েড ন্যাচারাল গ্যাস বা এলএনজি টার্মিনাল করার প্রস্তাব দেয়। ত্রিপাঠি বলেন, ভারত ওই টার্মিনাল থেকে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে এলএনজি সিলিন্ডার পাঠাতে চায়। এই আরজির জবাবে বাংলাদেশ জানায়, আলোচনা সাপেক্ষে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আর/১০:১৪/১৬ জুন

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে