Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.8/5 (17 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-১২-২০১৬

এমবিই খেতাব পেলেন ৩ ব্রিটিশ-বাংলাদেশি  

এমবিই খেতাব পেলেন ৩ ব্রিটিশ-বাংলাদেশি

 

লন্ডন,১২ জুন- ব্রিটেনের রাণীর জন্মদিনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত যুক্তরাজ্যরে তিন নাগরিক ‘মেম্বার অব দি অর্ডার অব দি ব্রিটিশ অ্যাম্পায়ার’ তথা এমবিই খেতাব পেয়েছেন।

সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য প্রতি বছর রাণীর জন্মদিন ও নববর্ষে বিভিন্ন ক্যাটাগরির খেতাব প্রদান করা হয়।

এবার রাণীর ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে স্থানীয় সময় শুক্রবার খেতাব প্রাপ্তদের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়।

খেতাব পাওয়া তিন বাঙালি হলেন- যুক্তরাজ্যের ব্রাডফোর্ডের বসবাসরত সমাজসেবী তৈয়বুর রহমান চৌধুরী, বার্মিংহ্যামের গ্রাফিথি আর্টিস্ট মোহাম্মদ আলী ও ব্রিটিশ বাঙালিদের ফুটবলে উৎসাহিত করার জন্যে ওল্ডহ্যামের বাসিন্দা জুয়েল মিয়া।

রাণী এলিজাবেথের জন্মদিন উপলক্ষে পুরো যুক্তরাজ্যে এবার ১১৪৯ জনকে খেতাব প্রদান করা হয়।

এর মধ্যে ৩১২ জন বিইএম (ব্রিটিশ এম্পায়ার মেডাল), ৪৭৭ জন এমবিই ও ২১৫ জন ওবিই (অফিসার্স অব দি অর্ডার অব দি ব্রিটিশ অ্যাম্পায়ার) খেতাব পেয়েছেন।
১৯১৭ সালে চালু হওয়া এই খেতাব প্রদান অনুষ্ঠানে এবারই সবচেয়ে বেশি এশীয় ও কৃষাঙ্গসহ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষরা সম্মাননা পেয়েছেন। মোট খেতাব প্রাপ্তদের ৮ দশমিক ২ শতাংশ অর্থাৎ ৯০ জন এ ধরনের কমিউনিটির মানুষ।

ব্রাডফোর্ডের বাসিন্দা সমাজসেবী তৈয়বুর রহমান বাংলাদেশি কমিউনিটিতে সুপরিচিতি। ব্রাডফোর্ড লোকাল অর্থরিটিতে সমাজকর্মী হিসেবে কর্মরত থাকাকালীন ৫০ টি পরিবারকে শিশু দত্তক নিতে সহায়তা করেন তিনি। এই কাজের স্বীকৃতির জন্য এমবিই খেতাব পেলেন এই ব্রিটিশ-বাংলাদেশি।

১৯৪৩ সালে সিলেটে জন্ম নেওয়া তৈয়বুর ১৯৬৩ সালে যুক্তরাজ্যে আসেন। ব্রাডফোর্ডে সত্তরের দশকে উত্তরা ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি রেস্টুরেন্ট ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়েন। বর্তমানে অবসর জীবন যাপন করা তৈয়বুর ব্রাডফোর্ডের বৃহত্তম বাংলাদেশি কমিউনিটি সংঘটন ‘বাংলাদেশ পিপলস অ্যাসোসিয়েশন’ এর প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

যুক্তরাজ্যের বাঙালি অধ্যুষিত ওল্ডহ্যাম শহরের বাসিন্দা জুয়েল মিয়া (৩৯) একজন সরকারি কর্মকর্তা। এশিয়ান কমিউনিটি বিশেষ করে বাংলাদেশি কমিউনিটির তরুণদের ফুটবল খেলার মাধ্যমে বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ থেকে দূরে রাখার জন্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন তিনি।

রেড স্টার বেঙ্গল ফুটবল ক্লাবের চেয়ারম্যান হিসাবে তরুণদের ফুটবল খেলায় অনুপ্রাণিত করা জুয়েল এশীয়দের নিয়ে ফুটবল দল টুর্নামেন্ট আয়োজন করেন। ১৯৯৪ সাল থেকে তিনি গোল্ডউইক বাংলাদেশি ইয়ুথ অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে কাজ করে আসছেন। জুয়েল মিয়া ওল্ডহ্যাম ভেটারেন্স কমিউনিটি ফাউন্ডেশনেরও চেয়ারম্যান।
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত গ্রাফিতি আর্টিস্ট মোহাম্মদ আলী বার্হিংহ্যামের স্পার্কব্রুকসে জন্ম নেন। ১০ বছর বয়স থেকে গ্রাফিতি আঁকা শুরু করা আলী ১৪ বছর বয়সে দেয়ালে প্রথম গ্রাফিতি আঁকেন। গ্রাফিথি আর্টিস্ট হিসেবে যুক্তরাজ্যের বাইরেও বিভিন্ন দেশে পরিচিত তিনি।

মোহাম্মদ আলী নিউ ইয়র্ক, আমস্টারডাম, লন্ডন, মেলবোর্ন, শিকাগো, টরন্টো, দুবাই, কুয়ালালমপুর, সিডনি, কোপেনহেগেন, স্টকহোম ও ভ্যাটিকান সিটিসহ আরও অনেক নগরীতে ম্যুরাল পেইন্ট করেছেন।

আর্টস কাউন্সিল ইংল্যান্ড ২০০৭ সালে তাকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ‘আর্টস অ্যান্ড ইসলাম’ শীর্ষক একটি ট্যুরের আয়োজন করে।বিভিন্ন অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত এই শিল্পী ইসলামিক স্ক্রিপ্ট ও প্যাটার্নের মাধ্যমে গ্রাফিতি করে থাকেন।

এ আর/ ০৮:৫৩/ ১২ জুন

যুক্তরাজ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে