Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 5.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-০৯-২০১৬

ব্রিটিশরা এখনও ভারতে ট্রেন চালাচ্ছে। সেই রেল রুটের নাম শুনলে চমকাবেন

ব্রিটিশরা এখনও ভারতে ট্রেন চালাচ্ছে। সেই রেল রুটের নাম শুনলে চমকাবেন

ব্রিটিশদের হাত থেকে ভারতীয় রেলের সাবালকত্ব পাওয়ার পর ৬৫ বছর পেরিয়ে গিয়েছে। বর্তমানে রেলের অত্যাধুনিকীরণে পিপিপি পার্টনারশিপেরও কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু, সকলেই ভুলে গিয়েছেন আজও ভারতের বুকে একটি রুটে ট্রেন চলছে বেসরকারি উদ্যোগে।

স্বাধীনতার পর ১৯৫১ সালে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় পরিণত হয়েছে রেল। কিন্তু, দেশের মধ্যে এখনও একটি রেল রুট আছে যার মালিক ব্রিটিশ একটি সংস্থা। শুধু তাই নয়, এই রুটের যাবতীয় সিগন্যাল এখনও মান্ধাতা আমলের। সিগন্যাল পোস্টগুলি এখনও লিভারপুলের কারখানার ছাপ মারা। 

আর এই রেলরুটের নাম ‘শকুন্তলা রেলওয়ে’, কবি কালিদাসের ভরত দুষ্মন্ত এবং শকুন্তলার কাহিনির শকুন্তলার নামে। ১৯১০ সালে এই রেলরুটটি স্থাপিত হয়। তৎকালে এই রেলরুটটি বিদর্ভ থেকে তুলো নিয়ে যাওয়ার কাজে ব্যবহার করত একটি ব্রিটিশ সংস্থা। ম্যানচেস্টারে তুলো পাঠাতে নিজেদের খরচেই এই রেল রুটটি তৈরি করেছিল ওই ব্রিটিশ সংস্থা। ফিরতি পথে ট্রেনে যাত্রী নিয়ে আসা হত।

বর্তমানে ‘শকুন্তলা রেল’ অমরাবতী জেলার জবতমাল ও আচলপুরের মধ্যে লাইফলাইন। ১৯৫১ সালে যখন ভারতের সমস্ত রেলকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসা হয় সেসময় ন্যারোগেজে চলা এই রেল রুটটিকে আর ভারতীয় রেলের মানচিত্রে ঢোকানো হয়নি।

বর্তমানে এই ‘শকুন্তলা রেলে’-র মালিক ব্রিটেনের ‘কিলিক-নিক্সন’নামে একটি সংস্থা। তবে, ইলেক্ট্রিক নয় এইখানে ট্রেন চলে স্টিম ইঞ্জিনে।
 

এই অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষের কাছে ‘শকুন্তলা রেল’ যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম। কারণ কম খরচে তাঁরা ঘণ্টা চারেকের মধ্যে প্রায় দু’শো কিলোমিটার যাওয়ার সুযোগ পান। কিন্তু, কোনও কারণে এই ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকলে তখন দ্বিগুণ অর্থ পকেট থেকে তো খসাতেই হয় সেইসঙ্গে সময়ও লাগে দ্বিগুণ।

ট্রেন লাইন যেখান দিয়ে গিয়েছে তার দু’পাশে রয়েছে বিস্তীর্ণ তুলো ক্ষেত। ফলে এই ট্রেন যাত্রাপথে প্রাকৃতিক শোভা দেখার মতো। সেইসঙ্গে ব্রিটিশ ইতিহাসের গন্ধ, যা একজন পর্যটককে কৌতুহলী করে। এই জন্য সারা বছরই বহু পর্যটক এই ট্রেন রুটে আসেন শুধু এর ইতিহাস ও বর্তমান গৌরবকে প্রত্যক্ষ করতে।

এ আর/ ১২:৪২ / ০৯জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে