Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-০৮-২০১৬

বৃষ্টিমুখর দিনে রোজার প্রথম ইফতারি

হাসান মাহমুদ রাজীব


বৃষ্টিমুখর দিনে রোজার প্রথম ইফতারি

ঢাকা, ০৮ জুন- রোজার প্রথম ইফতারিতে ছোট-বড় সবার আগ্রহ থাকে একটু বেশি। তেমনি রাজধানীর পাড়া-মহল্লা, অলিগলিতে ইফতারির পসরা সাজিয়ে বসা নিয়েও যেন চলে এক রকমের প্রতিযোগিতা।

কে কার আগে ইফতারি নিয়ে বসতে পারে? কার দোকানে বাহারি ইফতারির পণ্য বেশি? কে কত জোরে হাঁকডাক দিয়ে ক্রেতা সংগ্রহ করতে পারে ইত্যাদিতে সরগরম থাকে ইফতারির পূর্ব মুহূর্তগুলো।

এবার রাজধানীতে প্রথম ইফতারির দিনেই ছিল একদিকে বৃষ্টি, অন্যদিকে সড়কের কাদা-পানি। তারপরও ইফতারির সময় যতই ঘনিয়ে আসে মানুষের ঢল যেন ততোই বাড়ে। ইফতারির পণ্যগুলো রোদ ও বৃষ্টি থেকে রক্ষায় সড়কজুড়ে টানিয়ে দেওয়া হয় পলিথিন ও সামিয়ানা।

ঢাকার চকবাজার, নবাবপুর, বংশাল, সিদ্দিকবাজার, গুলিস্তান, বাবুবাজার, মিটফোর্ড, আরমানিটোলা, সুরিটোলা, চানখাঁর পুল, আজিমপুর, টিপু সুলতান রোডসহ পুরান ঢাকার সড়কের অলি-গলিতেও ইফতারির পসরা নিয়ে বসেন বিক্রেতারা।  

এসব দোকানে সূতি কাবাব, জালি কাবাব, শাকপুলি, টিকা কাবাব, ডিমচপ, কাচ্চি, তেহারি, মোরগ পোলাও, কবুতর ও কোয়েলের রোস্ট, খাসির রানের রোস্ট, দই-বড়া, মোল্লার হালিম, নুরানি লাচ্ছি, পনির, বিভিন্ন ধরনের কাটলেট, পেস্তা বাদামের শরবত, লাবাং, ছানা-মাঠা, কিমা পরোটা, ছোলা, মুড়ি, ঘুগনি, বেগুনি, আলুর চপ, জালি কাবাব, পেঁয়াজু, আধা কেজি থেকে ৫ কেজি ওজনের জাম্বো সাইজ শাহী জিলাপিসহ নানা পদের খাবার বিক্রি করা হয়।

এসব জায়গায় প্রতি লিটার পেস্তা বাদামের শরবত ২০০ টাকা, দই বড়া ৪০০ টাকা, শাহী বোরহানি ১২০ টাকা ও ফালুদা ১৫০ টাকা, প্রতিটি নার্গিস টিকা ৩০ টাকা, বিফ পরোটা ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা, শাহী চিকেন পরোটা ৪০ টাকা ও প্লেইন পরোটা ২০ টাকা এবং প্রতি কেজি শাহী জিলাপি ১৮০ টাকা, সূতি কাবাব (খাসি) ৬০০ টাকা, সূতি কাবাব (গরু) ৫৫০ টাকা, কোয়েল পাখির ঝাল ফ্রাই ৯০ টাকা, চিকেন ঝাল ফ্রাই ৩০০ টাকা, খাসির লেগ ঝাল ফ্রাই ৫৫০ টাকা ও খাসির গ্রিল ৬০০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়।

এমনকি শসা, বড়া, টমেটো, আইসক্রিম, ঝোলা ও বিভিন্ন পদের খেঁজুরও মিলছে এসব জায়গায়। তবে কিছু এলাকার বিক্রেতারা জানান, বৃষ্টির কারণে এবার প্রথম দিনে ইফতারি বিক্রিতে ভাটা পড়েছে। বৃষ্টি ও কাদা-পানি মাড়িয়ে দূরের ক্রেতারা কম এসেছেন।

পুরান ঢাকার চকবাজারের ৭০ সার্কুলার রোডের সকল ব্যস্ততা ছিল ইফতারিকে ঘিরে। মাথার ওপর বৃষ্টির বাগড়াও থামাতে পারেনি এ ব্যস্ততাকে। চকবাজারের অন্য সড়কের দোকানিদের তেমন ব্যস্ততা ছিল না। নামমাত্র খোলা ছিল তাদের দোকানগুলো। বেশকিছু দোকানে শাটারও লাগানো ছিল।

কিন্তু সার্কুলার রোডে ইফতারি বেচা-কেনাকে নিয়ে ছিল ব্যস্ততা। ছিল হাজারও মানুষের জটলা। লম্বায় হাফ কিলোমিটার সড়কে কত পদের ইফতারি তার কোনো হিসেব নেই। যেন একে অন্যের সঙ্গে কথা বলার কোনো সময় নেই। ইফতারি বিক্রেতারা ক্রেতাদেরকে আকর্ষণ করতে চিৎকার করছিল- নার্সি কাবাব ৩০ টাকা, শাহী জিলাপি কেজি ১৮০ টাকা।

চোখ জুড়ানো ও স্বাদে-গুণে অনন্য রকমারি ইফতারির পদ দেখতে হলে এখানকার জুড়ি নেই। কতো আইটেমের ইফতারি বিক্রি হয় এখানের ব্যবসায়ীরাও সঠিকভাবে বলতে পারবেন না। যে কারণে অনেক কাছে ইফতারি কেনার জন্য প্রিয় সড়ক চকবাজার ৭০ নম্বর সার্কুলার সড়ক।

পুরান ঢাকায় প্রায় ১৫ পদের ইফতার সামগ্রী দিয়ে তৈরি ইফতারির বিশেষ আইটেমের মধ্যে ছিল ‘বড় বাপের পোলায় খায়’। এটি তৈরিতে ডিম, গরুর মগজ, আলু, ঘি, কাঁচা ও শুকনা মরিচ, গরুর কলিজা, মুরগির মাংসের কুচি, মুরগির গিলা কলিজা, সূতি কাবাব, মাংসের কিমা, চিড়া, ডাবলি, বুটের ডাল, মিষ্টি কুমড়াসহ ১৫ পদের খাবার আইটেম ও ২৪ ধরনের মসলার প্রয়োজন হয়। খানদানি এই আইটেম প্রতি কেজি ৪০০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে