Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-০৬-২০১৬

ভ্রমণ করুন ঐতিহ্যের শহর প্রাগ

ভ্রমণ করুন ঐতিহ্যের শহর প্রাগ

ইউরোপে চমৎকার একটি ভ্রমণ গন্তব্য হতে পারে প্রাগ। এখানে বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থাপত্য আপনাকে নিয়ে যাবে প্রচীন ইউরোপীয় সভ্যতার কাছে। প্রাগ বিখ্যাত এর অসংখ্য পাব এবং বিয়ার হলের জন্য। প্রাগের সংস্কৃতি- অপেরা এবং সিম্ফনি অসংখ্য মানুষকে টেনে আনে তার কাছে। আসুন জেনে নিই, প্রাগের ঐতিহ্যবাহী দর্শনীয় জায়গাগুলোর কথা।
 
প্রাগ ক্যাসল
বিশ্বের সবচেয়ে বড় দূর্গের একটি প্রাগ ক্যাসল। একই সাথে দুই কাজ তার। এটি প্রেসিডেন্টের বাসভবন এবং একই সাথে জনপ্রিয় পর্যটক ভ্রমণস্থল। এর কমপ্লেক্সে দাঁড়িয়ে দেখতে পাবেন সেন্ট ভাইটাস ক্যাথেড্রালসহ আরও আকর্ষনীয় স্থাপত্য।ক্যাসলটি প্রায় ১০০০ বছর পুরোনো এবং বিশাল এলাকা জুড়ে এর অবস্থান।
 
অভিজ্ঞদের মতে, শুধু ক্যাসলটি ঘুরে বেড়াতেই আপনার লেগে যেতে পারে একটি দিন। সেন্ট ভাইটাস ক্যাথেড্রাল, রয়েল পেলেস, সেন্ট জর্জ ব্রাসিলিকা, পাওডার টাওয়ার এবং গোল্ডেন লেন অবশ্যই দেখবেন, যত তাড়াই থাকুক না কেন! গ্রীষ্মে যদি যান তাহলে অবশ্যই বাগানে কিছুক্ষণ সময় কাটাতে ভাল লাগবে আপনার।
 
চার্লস ব্রীজ
চার্লস ব্রীজ যুক্ত করেছে পুরাতন শহর স্টের মেস্টো এবং লেজার টাউন মালা স্ট্রানাকে। ব্রীজটির উপর লাইন ধরে দাঁড়িয়ে আছে ৩০টি ভাস্কর্য্য। পর্যটকেরা ব্রীজ থেকে চমৎকার প্রকৃতিকে উপভোগ করতে আসে, কাটাতে আসে নিরিবিলি অলস একটি বেলা।
 
ভাস্কর্য্যগুলো ব্রীজটিকে আলাদা করেছে বিশ্বের অন্যসব সেতুর ধারণা থেকে। যারা প্রাগের রাতের জীবন উপভোগ করতে চান তারা যেতে পারেন ফাইভ স্টোরি নাইট ক্লাবে। এটি চার্লস ব্রীজ থেকে ১৫০ ফুট পূর্বে অবস্থিত।
 
ড্যান্সিং হাউজ
অদ্ভুত নকশার বাড়িটি দেখতে আসেন অসংখ্য পর্যটক, ছবি তোলেন এর সামনে, রাখেন ভ্রমণ স্মৃতির ডায়েরিতে। বাড়িটির নকশা করেছেন ভ্লাদো মিলিউনিক ১৯৯২ সালে। তাঁকে এসিস্ট করেছিলেন ফ্রাংক গেহ্রি। নির্মাণ কাজ শেষ হয় ১৯৯৬ সালে।
 
বাড়িটিকে ডাকা হয় "Fred and Ginger" কিংবদন্তি নৃত্যশিল্পী ফ্রেড এস্টায়ার এবং জিঞ্জার রগার্স এর নামে। এর আরেকটি নাম "Drunk House"। বাড়িটি দেখে খাবার খেতে চলে যেতে পারেন উপরের ২টি ফ্লোর নিয়ে করা Céleste Restaurant & Bar এ। ড্যান্সিং হাউজের অবস্থান প্রাগ ডাউনটাউনে এবং সহজেই প্রবেশ করতে পারবেন কারলোভো নামেস্তি মেট্রো স্টপ থেকে।
 
প্রাগ এস্ট্রনমিক্যাল ঘড়ি
ওল্ড টাউন স্কয়ারে এর অবস্থান, ১৫ শতকে নির্মিত ঘড়িটি পরিণত হয়েছে প্রাগের ঐতিহ্যে। অনেকবার এর মেরামত করতে হয়েছে। কিন্তু এর আকর্ষণ কমে নি এক বিন্দু। ঘড়িটি কিন্তু দিনের সময়ের হিসেব দেয় না।
 
এটি চলে মহাবিষুবের নিয়ম মেনে চাঁদের হিসেবে। প্রাচীন ইতিহাসে সাক্ষী ঘড়িটি অবশ্যই দেখতে যাবেন। অসংখ্য পর্যটক ওল্ড টাউন দর্শনে আসেন এবং কেউই মিস করতে চান না ঘড়িটি। এটি একই সাথে মজার এবং ঐতিহ্যের সম্মিলন।

পর্যটন

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে