Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.3/5 (3 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-০৩-২০১৬

৬৬৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকার বাজেট দিতে যাচ্ছে ঢাবি

মুনির হোসাইন


৬৬৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকার বাজেট দিতে যাচ্ছে ঢাবি

ঢাকা, ০৩ জুন- আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭ ) জন্য ৬৬৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। যা চলতি অর্থবছরের বাজেটের থেকে ২৪৪ কোটি ১৯ লাখ টাকা বেশি। 

নতুন অর্থবছরে বাজেটের ৫৪৮ কোটি ১৫ লাখ টাকাই ব্যয় হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ও পেনশন বাবদ। যা মোট বাজেটের ৮২ দশমিক ৭৩ শতাংশ। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এ খাতে ব্যায় ছিল মোট বাজেটের ৭৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাশাসনিক ভবনস্থ হিসাব বিভাগ সূত্রে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
 
আগামী বৃহস্পতিবার ২০১৬-১৭ অর্থবছরের নতুন বাজেট অনুমোদনে ঢাবির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হবে। এ সময়ের মধ্যে বড় ধরনের কোন পরিবর্তন না হলে এটাই হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আগামী অর্থবছরের চূড়ান্ত বাজেট।
 
প্রাথমিকভাবে তৈরি এ বাজেট বিশ্লেষণে দেখা যায়, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বাবদ মোট বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে ৩৯৮ কোটি ১৫ লাখ টাকা। যা মোট বাজেটের ৬০ দশমিক ০৯ শতাংশ। আর অবসরে যাওয়া শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশনের জন্য বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে ১৫০ কোটি টাকা। এটি মোট বাজেটের ২২ দশমিক ৬৪ শতাংশ।
 
বাজেটের ৮২ দশমিক ৭৩ শতাংশ শুধু শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ও পেনশন বাবাদ ব্যায় হওয়ায় অন্যান্য খাতের জন্য বরাদ্দ থাকছে মাত্র ১৭ দশমিক ২৭ শতাংশ অর্থ। 

এ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বই ক্রয়, জার্নাল প্রকাশ, কেমিক্যালস, আসবাবপত্র ও অন্যান্য যন্ত্রপাতি ক্রয়, গবেষণা এবং হাসপাতাল ও ওষুধপত্র ক্রয়সহ যাবতীয় কাজের জন্য যে পরিমাণ অর্থই বরাদ্দ থাকছে তা একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য একেবারেই অপ্রতুল।
 
তবে নতুন বাজেটে গবেষণা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। চলতি অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৪ কোটি ৫০ লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা। তা থেকে বাড়িয়ে নতুন অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে ১১ কোটি ৫৪ লক্ষ টাকা। যা মোট বাজেটের ১ দশমিক ৭৩ শতাংশ। 

এছাড়াও বই ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ১ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। আর বুকস অ্যান্ড জার্নাল ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে ৯৭ লক্ষ টাকা। এ দুই খাতে ২০১৫-১৬ অর্থবছর থেকে যথাক্রমে মাত্র ৮ ও ১২ লক্ষ টাকা বরাদ্দ বাড়ছে।
 
এদিকে আগামী অর্থবছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্ষিক আয় ধরা হয়েছে ৩৯ কোটি টাকা। যার বেশীর ভাগই হবে বিবিধ আয় থেকে। আর ছাত্র-ছাত্রীদের ফি এবং দালানকোঠা, ভূমি ও সম্পত্তি থেকে আসবে বাকি অর্থ।
 
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত হিসেব পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, নতুন পে-স্কেলে বেতন-ভাতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণেই বাজেটের বড় একটি অংশ এ খাতে ব্যয় হচ্ছে। তবে নতুন বাজেট নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট। আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন ঘাটতি থাকবে না বলেও জানান তিনি।

আর/১০:০৪/০৩ জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে