Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৬-০২-২০১৬

টাকাকড়ি নিয়ে যে ৭টি ভুল করে থাকেন অল্পবয়সিরা

টাকাকড়ি নিয়ে যে ৭টি ভুল করে থাকেন অল্পবয়সিরা

টাকা ছাড়া কারও এক মুহূর্ত চলে না এবং বয়সকালে পর্যাপ্ত টাকা না থাকলে সংসার চালানো দায় হয়ে পড়বে! তাই অল্প বয়স থেকেই টাকা সংক্রান্ত বিষয়ে একটু অভিজ্ঞ হতে হবে। দেখে নিন কিছু খুবই সাধারণ ভুল এবং জেনে নিন এগুলিতে কী কী হতে পারে।

বয়স যখন অল্প, তখন থেকেই টাকা নিয়ে সচেতন হওয়া উচিত। কখনও এই ৭টি ভুল করবেন না:
১) অল্প বয়স থেকেই সঞ্চয়, ইনভেস্টমেন্ট, ইনসিওরেন্স না করা হল প্রথম ভুল। এই সময় থেকেই টাকাকে ডিম পাড়ানোর ব্যবস্থা করুন। 

২) শেয়ার, বন্ড ইত্যাদিতে ইনভেস্ট করার সঠিক সময় ৩০ বছর বা তার আগে, যখন পরিবারের দায়িত্ব কম এবং হাতে উদ্বৃত্ত টাকার পরিমাণ বেশি। একেবারেই কোনও রিস্ক না নেওয়াটাও এক ধরনের ভুল। অল্প বয়সে এই ঝুঁকি নিলে তবেই উচ্চহারে রিটার্ন পাওয়ার সম্ভাবনা। ভাল এজেন্টকে দিয়ে পোর্টফোলিও ম্যানেজ করান কিন্তু এড়িয়ে গেলে অনেকখানি অর্থলাভ থেকে নিজেই নিজেকে বঞ্চিত করবেন। ৪০ বছর হয়ে গেলে এই ধরনের ইনভেস্টমেন্ট বরং অনেকটা সতর্ক হয়ে করা উচিত কারণ তখন পরিবারের দায়িত্ব অনেক বেড়ে যায়। 

৩) না বুঝে, ভাল করে না জেনে যে কোনও স্কিমে টাকা ইনভেস্ট করা হল অল্পবয়সিদের তৃতীয় ভুল। কারণ যতটা টাকা দিয়ে ভুল স্কিম কিনে হয়তো ৫ শতাংশ লাভ পাবেন, সেই পরিমাণ টাকাতেই ঠিকঠাক স্কিম আপনাকে ২০ শতাংশ লাভও দিতে পারে। তাই শুধু এজেন্টের মুখের কথায় বিশ্বাস করবেন না। নিজে বিষয়টা সম্পর্কে ভাল করে জেনে-বুঝে তবেই সিদ্ধান্ত নিন। 

৪) চাকরি ছাড়লেই বেশিরভাগ মানুষ পুরনো পিএফ অ্যাকাউন্টটি ক্লোজ করে টাকা তুলে নেন। এটা না করে যদি ক্যারি ফরওয়ার্ড করে নেওয়া হয় তবে সুদ অনেক বেশি পাওয়া যায়। ধরা যাক ২৫ বছর বয়সে কেউ ২৫ হাজার টাকা প্রতি মাসে বেসিক বেতন পান। তাঁর যদি প্রতি বছর ১০ শতাংশ হারে ইনক্রিমেন্ট হয় এবং সুদের হার যদি ৮.৭ শতাংশ হয় তবে ২৫ বছরে তাঁর ইপিএফ অ্যাকাউন্টে জমবে ১.৬৫ কোটি টাকা। কিন্তু বার বার টাকা তুলে নিলে এই পরিমাণ অ্যাকুমুলেশন হবে না। 

৫) ইনসিওরেন্স কিন্তু ইনভেস্টমেন্ট শুধু নয়, এটি পরিবারের সিকিউরিটিও বটে। শুধু ইনভেস্টমেন্ট ভাবলে ছোট পলিসি টার্মের ইনসিওরেন্সর দিকে ঝোঁক থাকে। কিন্তু তার পরে যে লাইফ কভারেজ চলে যাচ্ছে সেই বিষয়টি মাথায় থাকে না। ২৫ বছরের কেউ ১৫ বছরের ইনভেস্টমেন্ট ভেবে যদি ইনসিওরেন্স করেন তবে তাঁকে লাইফ কভারেজের জন্য আবার ৪০ বছর বয়সে আর একটি ইনসিওরেন্স করতে হবে। কিন্তু সেই সময়ে বয়স বেড়ে যাওয়ার জন্য প্রিমিয়াম অ্যামাউন্ট অত্যন্ত বেশি হবে।

৬) অল্পবয়সে শপিং করার ঝোঁক বেশি থাকে আর সেই ঝোঁকেই অনেক সময়ে প্রয়োজনের অতিরিক্ত জিনিস কেনা হয়ে যায়। এই বদঅভ্যাসটি থেকে নিজেকে মুক্ত করতে পারলে সঞ্চয়ের পরিমাণ বাড়বে বই কমবে না। 

৭) এমার্জেন্সি ফান্ড না তৈরি করা অল্পবয়সিদের মধ্যে সবচেয়ে বহুলপ্রচলিত ভুল। এই অভ্যাসটি না থাকার জন্যেই ঋণ নেওয়ার প্রবণতা বাড়ে এবং বলা বাহুল্য এত অর্থলাভ তো হয়ই না, অর্থক্ষয় হয় প্রবলভাবে। 

আর/১০:০৪/০২ জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে