Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৬-০২-২০১৬

প্রধানমন্ত্রী সৌদি যাচ্ছেন শুক্রবার

প্রধানমন্ত্রী সৌদি যাচ্ছেন শুক্রবার

ঢাকা, ০২ জুন- সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল-সৌদের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী শুক্রবার চার দিনের সফরে সৌদি আরব যাচ্ছেন। শেখ হাসিনা শুক্রবার মক্কা শরিফে পবিত্র ওমরাহ পালন করবেন। ৫ জুন তিনি সৌদি বাদশাহর সঙ্গে জেদ্দার রাজকীয় প্রাসাদে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চার দিনের সৌদি সফর উপলক্ষে আজ বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এসব কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রীর সৌদি সফরে বাংলাদেশের পুরুষ কর্মীদের জন্য তেলসমৃদ্ধ আরব দেশটিতে কাজের ব্যাপক সুযোগ হবে কি না, জানতে চাইলে মাহমুদ আলী বলেন, ‘সফরে যাই। আলোচনা হোক, দেখা যাবে।’ সৌদি আরবে বাংলাদেশের নারী শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি জানান, তাঁদের নিরাপত্তার স্বার্থে এখন তো নারী শ্রমিকদের সঙ্গে তাঁদের বাবা ও ভাইকে পাঠানোর সুযোগ হয়েছে। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, শেখ হাসিনার সৌদি আরব সফরের সময় দুই দেশের মধ্যে পররাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের বৈঠক, সাংস্কৃতিক বিনিময় ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সহযোগিতার জন্য তিনটি সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে। 
পবিত্র মসজিদ হুমকিতে পড়লে সৈন্য পাঠাতে পারে বাংলাদেশ

সৌদি নেতৃত্বাধীন ৩৪ দেশের সন্ত্রাসবিরোধী জোটে বাংলাদেশ অংশ নেবে কি না, জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, সৌদি আরবের পবিত্র দুই মসজিদ হুমকির মুখে পড়লে ভবিষ্যতে সৌদি নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসবিরোধী জোটে সেনা পাঠাতে পারে বাংলাদেশ।

গত ডিসেম্বরে গঠিত সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটে বাংলাদেশ যোগ দিয়েছে। সৌদি আরব প্রস্তাব দিলে ওই জোটে বাংলাদেশ সেনা পাঠাবে কি না, জানতে চাইলে মাহমুদ আলী বলেন, ‘এটা তো হাইপোথিটিক্যাল হয়ে গেল। যখন সময় আসবে, তখন আমরা বিবেচনা করব। তবে আমি এখানে একটা কথা বলতে পারি যে এর আগে ইরাক যখন সাদ্দাম হোসেনের নেতৃত্বে কুয়েত আক্রমণ করেছিল, তখন কিন্তু আমরা সেনা পাঠিয়েছিলাম। আমরা পাঠিয়েছিলাম সৌদি আরবে অবস্থিত পবিত্র দুই মসজিদ রক্ষা করার জন্য। কাজেই এটা একটা আছে, অতীতে আমরা কী করেছি। ভবিষ্যতেও আমরা এটা করতে পারি। আপাতত এইটুকুই। যখন সময় আসবে, তখন আমরা দেখব।’ 

গত বছরের ডিসেম্বরে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবায়ের ৩৪ জাতির জোটের ঘোষণা দেন। ওই সময় তিনি বলেন, তথ্য বিনিময় ও সন্ত্রাস মোকাবিলার সামর্থ্য বাড়ানোর পাশাপাশি প্রয়োজনে আইএসের মতো আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনকে মোকাবিলায় সদস্যদেশগুলো সেনা পাঠাবে নতুন এই জোটে। আর জোটে যোগ দেওয়ার পর থেকেই সরকার বলছে, রিয়াদে প্রতিষ্ঠিত সন্ত্রাসবিরোধী জোটের কেন্দ্রের সঙ্গে বাংলাদেশ যুক্ত থাকবে, কোনো সামরিক অভিযানে নয়। 

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আমন্ত্রণে এ বছরের জানুয়ারিতে সৌদি আরব সফর করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী। মার্চে ফিরতি সফরে ঢাকায় আসেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবায়ের। 

সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে মাহমুদ আলী আজ বলেন, ‘এটি কোনো সামরিক জোট নয়। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে সৌদি আরব রিয়াদে একটি কেন্দ্র করছে। এটি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে জানিয়েছেন, এটির দুটি দিক—একটি নিরাপত্তা ও অন্যটি সামরিক দিক। প্রথম ভাগে আছে রাজনৈতিকভাবে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কীভাবে দমন করা যাবে। এ ক্ষেত্রে তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী সহযোগিতা করা।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, জোটের সামরিক ভাগের অনেক দেশের সাঁজোয়াযান সরবরাহ, সামরিক বিশেষজ্ঞ পাঠানো, সাইবার নিরাপত্তা ইত্যাদি নানা ক্ষেত্রে সহযোগিতা হতে পারে। মাহমুদ আলী বলেন, দুটি ভাগের মধ্যে সাহায্য-সহযোগিতা হবে সদস্যদেশের সামর্থ্য অনুযায়ী, স্বেচ্ছায়—কোনো বাধ্যবাধকতার আওতায় নয়। কোনো সভাতে সদস্যদের যোগদানও হবে স্বেচ্ছায়। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, সৌদি সামরিক জোটটি এখন প্রাথমিক পর্যায়ে থাকলেও নানা পর্যায়ের বৈঠক হচ্ছে। সম্প্রতি সদস্যদেশের সামরিক বাহিনীর প্রধানদের বৈঠকে যোগ দিয়েছেন সেনাবাহিনী প্রধান।

আর/১২:১৪/০২ জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে