Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (3 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-২৯-২০১৬

বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে আরএফএল

আরেফিন শোহাগ


বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে আরএফএল

আরএফএল গ্রুপ। বাংলাদেশের বৃহৎ প্লাস্টিক ও ইলেকট্রনিকসহ নানা ধরণের পণ্য সামগ্রী উৎপাদনকারী একটি প্রতিষ্ঠান। ১৯৮১ সালে রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেডের (আরএফএল) পথচলা শুরু। বর্তমানে আরএফএল গ্রুপের ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন আর. এন. পাল।

আরএফএল গ্রুপ বাংলাদেশের একটি সুপ্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। শুরু থেকে বর্তমান পযর্ন্ত তাদের পণ্যের গুনগত মান ধরে রেখেছে। প্লাস্টিকের চেয়ার-টেবিল থেকে শুরু সকল ধরনের ফার্নিচার রয়েছে তাদের। এছাড়া মগ, বালতিসহ ঘরের সকল ধরণের প্লাস্টিকের আসবারপত্র অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে উৎপাদন করছে এই কোম্পানি। এদের আরও রয়েছে, ইলেকট্রনিকস ও রিশকা পার্টসসহ নানান ধরনের পণ্য। সম্প্রতি আরএফএল গ্রুপের ডিরেক্টর আর. এন. পাল এ প্রতিবেদককে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই কোম্পানির ভবিষ্যত পরিকল্পনাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরেছেন। এখানে তা উপস্থাপন করা হলো। 

প্রতিবেদক: আপনার কর্মজীবন শুরুর প্রেক্ষাপট ও বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কিছু বলুন?
আর. এন পাল : আরএফএল গ্রুপ দিয়েই আমার কর্ম জীবন শুরু হয়েছে। এ কোম্পানির বিভিন্ন পদে থেকেই আজকে আমি এ পর্যায়ে এসেছি। ক্ষুদ্র পরিসরে যাত্রা শুরু করলেও আজকে আরএফএল গ্রুপের ৩৫টিরও বেশি শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আরএফএল-এর কারখানাগুলোয় কাজ করছে প্রায় ৮০ হাজারেরও বেশি নারী-পুরুষ। আরএফএল গ্রুপের ওপর নির্ভরশীল রয়েছে আরও ৫ লাখ পরিবার। সব মিলিয়ে প্রায় ৮ লাখের অধিক জনগোষ্ঠী আরএফএল গ্রুপের ওপর নির্ভরশীল। আধুনিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম কাজে লাগিয়েই দৃঢ় পদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছে আমাদের এই কোম্পানিটি। বিশ্ব মানের পণ্য বাংলাদেশের জনগণের মাঝে পৌঁছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

প্রতিবেদক: আপনার কোম্পানির উৎপাদিত পণ্যের বাজার পরিস্থিতি সম্পর্কে বলবেন কী?
আর. এন পাল : ব্যবসার পরিধি বাড়ার সাথে সাথে দেখলাম যে দেশের চাহিদা মিটিয়ে এখন বিদেশে রপ্তানি করা যায়। যেই ভাবা সেই কাজ। ১৯৯৬ সালে ফ্রান্সে আরএফএল পণ্য প্রেরণের মাধ্যমে বহির্বিশ্বে রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে আফ্রিকা মহাদেশ ছাড়াও এশিয়া, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের ১২০টির বেশি দেশে রপ্তানি হচ্ছে আরএফএলের পণ্য। এখানে মজার ব্যাপার আরএফএল এমন কয়েকটি দেশেও তার পণ্য রপ্তানি করে যেখানে বাংলাদেশের কূটনৈতিক মিশন নেই। ওই দেশের মানুষরা আরএফএল পণ্যে দেখে “মেড ইন বাংলাদেশ”। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে আরএফএল

প্রতিবেদক: আপনাদের উৎপাদিত পণ্যের বিশেষত্ব সম্পর্কে বলুন?
আর. এন. পাল : দেশের সীমানা ছাড়িয়ে ১২০টিরও বেশি দেশে নিয়মিত রপ্তানি হচ্ছে আরএফএল পণ্য। জাতীয় রপ্তানি বৃদ্ধি এবং মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে আরএফএল গ্রুপ। এছাড়া ২০১২-১৩ অর্থবছরে সর্বোচ্চ মূল্য সংযোজন কর পরিশোধকারী হিসেবে আরএফএলকে সম্মাননা দেয় সরকার। পণ্যের মান সর্বোচ্চ রেখেছে আরেএফএল। পাশাপশি এর মূল্য মানুষের ক্রয় সীমার মধ্যে রাখা হয়েছে। সামনে আরএফএল ডোর, থ্রেট পাইপ, ট্যাং, ওয়াটার পাম্প ও টিউবয়েলসহ নানা নতুন পণ্য নিয়ে আসবে। পণ্যের সঠিক মান বজায় রেখে আরএফএল ইতোপূর্বে দেশ-বিদেশে সুনাম কুড়িয়েছে, ভবিষ্যতেও আরএফএল এর গুনগত মান বজায় থাকবে।

প্রতিবেদক: দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আপনার কোম্পানির ভূমিকা সম্পর্কে বলুন?
আর. এন. পাল : আরএফএল গ্রুপ দেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে শুরু থেকেই গুরুত্তপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। ভবিষ্যতেও এ কোম্পানি দেশ, মাটি ও মানুষের উন্নয়নে ভুমিকা অব্যাহত রাখবে। আরএফএল শুরুতেই রংপুর ও নাটরে কারখানা স্থাপন করেছে। যাতে করে গ্রামের মানুষের কর্মসংস্থান বৃদ্ধি পায় এবং তারা স্বাস্থ্যকর পরিবেশে কাজ করতে পারে। এভাবেই বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলাসহ বিদেশেও কারখানা গড়ে তুলবে আরএফএল গ্রুপ।

প্রতিবেদক: দেশের তরুণ সমাজের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?
আর. এন. পাল: দেশের তরুণ সমাজ আমাদের ভবিষ্যত। তাদের হাত ধরেই এগিয়ে যাবে আমাদের বাংলাদেশ। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, লেখাপড়ার পাশাপাশি যেকোন একটি বিষয়ে উপর বিষেশ জ্ঞান অর্জন করতে হবে। আর সব সময় কাজকে ভালোবাসতে হবে। বর্তমান যুগে বিজ্ঞান পৃথিবীকে সহজ করে দিয়েছে। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

প্রতিবেদক: আরএফএল গ্রুপ নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ কর্ম-পরিকল্পনা কী?
আর. এন. পাল : আরএফএল গ্রুপের কর্ম পরিধি আরও বাড়ানো হবে। আর এর মাধ্যমে বাংলাদেশও এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশের বিপুল জনগোষ্ঠীকে এক সম্পদে পরিণত করতে হবে এবং এর মাধ্যমে বাংলাদেশের জনগণই একদিন বিশ্ব অর্থনীতির চাকা সচল রাখবে। আরএফএল গ্রুপ একদিন বিশ্ব বাজারে রাজত্ব করবে, ইনশাল্লাহ।

আর/১০:৩৪/২৯ মে

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে