Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-২৭-২০১৬

অটোয়ার পালকী রেষ্টুরেন্টে এক মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যা

সুলতানা শিরীন সাজি


অটোয়ার পালকী রেষ্টুরেন্টে এক মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যা

অটোয়া, ২৬ মে-  গত ১৫ মে'২০১৬, রবিবার কলকাতায় বসবাসরত, এ সময়ের  জনপ্রিয় লোকসংগীত শিল্পী নাজমুল হক  এবং উত্তর আমেরিকার জনপ্রিয় শিল্পী মন্ট্রিয়লে বসবাসরত শিল্পী রিদম হাসান পালকী রেষ্টুরেন্টে আয়োজিত সংগীত সন্ধ্যায় সংগীত পরিবেশন করলেন।
 
রবিবার বিকালটায় ঠান্ডা বাতাসের জন্য অনেকটা শীতের অনুভব হচ্ছিল। তারপর ও অটোয়ায় সংগীত প্রিয় সুধীজন এসে পৌছেছিলেন বিকাল বেলাতেই। চা আর সমুচা দিয়ে আপ্যায়নের পরেই শুরু হয়ে যায় গানের অনুষ্ঠান।অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলাম আমি সুলতান শিরীন সাজি। নাজমুল হক এর সাথে অটোয়ার সুধী জনের এই প্রথম দেখা। দর্শকদের কেউ কেউ তারা মিউজিক অথবা অন্য কোন চ্যানেল এর মাধ্যমে উনার গান শুনেছেন জানালেন। তবলায় টরন্টো থেকে আসা তানজীর আলম রাজীব আর কী বোর্ডে ছিলেন আমাদের অনুষ্ঠানের আর একজন শিল্পী রিদম হাসান।নাজমুল হক হেমাঙ্গ বিশ্বাসের লেখা গান হবিগঞ্জের জালালী কইতর দিয়ে গান শুরু করেন।“ডানা ভাইঙ্গা পড়লাম আমি অটোয়ার উপর” বলে গাওয়ার পর অদ্ভুত  এক আবহের সৃষ্টি হয়। দর্শকরা নাজমুল হলের গানে এবং কথায় মিশে যান। এমনকি  দর্শকদের মধ্যে থেকে আড়াই বছরের সৌম্য লোকে বলেরে গাইতে থাকে মন খুলে। সৌম্যকে আমি মঞ্চে নিয়ে যাই,নাজমুল হকের সাথে সে গলা মিলিয়ে গাইতে থাকে,” লোকে বলে রে ঘর বাড়ি ভালা না আমার।“ নাজমুল হক অবাক হয়ে যান এবং এই বিদেশের মাটিতে সাড়ে তিন বছরের  একটা শিশুর গলায় গান শুনে আপ্লুত হন।


 
“ও আমার চাঁদের কনা”, সোহাগ চাঁদ বদনী নাচো তো দেখি”, “ভালো করিয়া বাজাও গো দোতারা”, “আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম”,মিলন হবে কতদিনেঃ,’গাছের পাতা টাকা কেনো হয়না”, “ও কি অ বন্ধু কাজল ভ্রমরারে”,”মাঝি বাইয়া যাওরে”,” আমায় ডুবাইলি রে আমায় ভাসাইলি রে”, “লাল পাহাড়ের দেশে যা কালো মেঘের দেশে যা”,”কালো জলে কুচলা তলে ডুবলো সনাতন” অনেক জনপ্রিয় গান করেন।
 
অভিবাসী জীবনে এ এক পরম পাওয়া। দর্শকদের মধ্যে থেকে অটোয়ায় ছুটিতে আসা কুয়েত এ কর্মরত ডঃ শাহরিয়ার হুদা বলেন, অসম্ভব ভালো লেগেছে তার কাছে নাজমুল হকের গান। অটোয়ায় বসবাসরত এবং কানাডার বিভিন্ন শহরে  গান গেয়ে জনপ্রিয় শিল্পী আশেক বিশ্বাস বলেন, নাজমুল হকের গায়কী তার কাছে খুব ভালো লেগেছে। অটোয়ায় বসবাসরত লেখক মহসিন বখত বলেন, নাজমুল হকের গান এ তিনি মাটির গন্ধ পেয়েছেন। অনেককাল মনে থাকবে এই সন্ধ্যার কথা। দর্শকদের অনেকেই এসে তাদের ভালোলাগার কথা জানান শিল্পীকে এবং আমাদের ধন্যবাদ জানান এমন এক সন্ধ্যার আয়োজনের জন্য।পুরো অনুষ্ঠানে রাজীবের যাদুকরী তবলা দর্শকদের মন ছুঁয়ে গেছে।


 
রিদম হাসান শুরু করেন আমায় প্রশ্ন করে নীল ধ্রুব তারা দিয়ে। অনেক বছর ধরে প্রবাসী রিদম সবসময় পুরানো দিনের গান গাইতে পছন্দ করেন।“বুঝিনিতো আমি”,“ওরে নীল দরিয়া”,“জীবনানন্দ হয়ে সংসারে“,“প্রথমত আমি তোমাকে চাই”,”আজ এই বৃষ্টির কান্না দেখে”,”একি হলো কেনো হলো”,”হঠাৎ রাস্তায় অফিস অঞ্চলে”,”কফি হাউসের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই”,”তুমি একজনই শুধু বন্ধু আমার”,”ও নদীরে একটি কথা শুধাই শুধু তোমারে”,”সারাদিন তোমায় ভেবে”, “যদি কাগজে লিখো নাম “,”এই মেঘলা দিনে একলা”, “এ তুমি কেমন তুমি “ গানগুলি গেয়ে  দর্শকদের মন জয় করেন। এছাড়া দর্শকদের অনুরোধে  তিনি দুইটা গজল করেন। রিদমের কী বোর্ড বাজিয়ে গান গাওয়া অটোয়ার দর্শকদের মন জয় করেছে। অনুষ্ঠান শেষ হয়ে যেন শেষ হচ্ছিল না।
 
অনুষ্ঠানের আয়োজক দেওয়ান শাহীন চৌধুরী তার বক্তব্যে শিল্পী এবং দর্শকদের শুভেচ্ছা জানান। শুধুমাত্র দর্শকদের সহযোগীতাতেই এই রকম আয়োজন সম্ভব বলে আমিও অনুষ্ঠান শুরু করেছিলাম। আমাদের সব আয়োজনে যারা সবসময় আমাদের পাশে থাকেন ,তাদের কাছে আমাদের কৃতজ্ঞতার অন্ত নাই। আর অটোয়ার দর্শকদের সবসময়  প্রশংসাও করেছেন দেশ বিদেশ থেকে আসা শিল্পীরা।
 
আমাদের এই সংগীত আয়োজনকে নানাভাবে সহযোগীতা করেছে আরেফিন কবীর,মিঠু মোহাম্মদ, সাবিনা সালাম লিন্ডা,অর্ণব চৌধুরী এবং সাবিনা ইয়াসমিন হলি।ছবি তুলেছেঃ লুবাবা খলিল।

কানাডা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে